উদযাপনই যখন প্রতিবাদের ভাষা

সুইজারল্যান্ড এবং সার্বিয়ার মধ্যকার খেলাতে দু’টো গোল হয়েছে। দুইটা গোল করেছে সুইস ফরওয়ার্ড গ্রানিত শাকা এবং জারদান শাকিরি। সাদা চোখে এই গোলদুটি আপনার চোখে খুবই সাধারণ মনে হতে পারে। এটা স্বাভাবিকই।

তবে, কসোভো এবং আলবেনিয়ানদের কাছে এই গোলদু’টি যেন দু’টি বোমার মতন। মজার বিষয় হচ্ছে সুইজারল্যান্ড এর নাগরিকরা এই গোলদুটি যতটা না উদযাপন করেছে তার চেয়ে বেশি উদযাপন করেছে আলবেনিয়ানরা। এই গোল দুটির সাথে জড়িয়ে আছে হাজার হাজার মানুষের রক্তের ইতিহাস।

শাকা ও শাকিরি এই দু’জনের কেউ কিন্তু জন্মসুত্রে সুইজারল্যান্ডের নাগরিক নন। তাঁরা হচ্ছেন জন্মসূত্রে আলবেনিয়ান, আরো স্পষ্ট করে বলতে গেলে তাঁদের বাড়ি ছিল কসোভোতে। ১৯৯৫ সালে সার্বিয়ান আর্মির প্রচন্ড নির্যাতন এবং গনহত্যার মুখে এদের দু’জনের পরিবার সুইজারল্যান্ড পালিয়ে আসে। শাকিরির বাবা কসোভোর স্বাধীনতার জন্য জেল খেটেছেন দীর্ঘদিন এবং প্রচণ্ড নির্যাতনের স্বীকার হয়েছেন। এর পরে বহু চড়াই উতরাই পেড়িয়ে এখন সুইজারল্যান্ড জাতীয় দলের জার্সি গায়ে বিশ্বকাপে খেলছে তাঁর ছেলে!

সার্বিয়ান বাহিনীর সেই গনহত্যাকে মনে করে দেয়ার জন্য ওরা দুজনই সার্বিয়ার বিপক্ষে গোল করার পরে হাত দিয়ে এক ধরনের সংকেত তৈরি করে যেটা দিয়ে আসলে ‘আলবেনিয়ান ঈগল’ বোঝানো হয়েছে। এবং তারা এটা ইচ্ছাকৃত ভাবে সার্বিয়ান সমর্থকদের সামনে বার বার করতেই থাকে। যাতে বিষয়টা তাদের কলিজা পর্যন্ত গিয়ে ঠেকে।

আর মজার বিষয় হচ্ছে তারা এই কাজ রাশিয়াতে বসে করছে। এই জটিল সমীকরন বুঝতে হলে আপনাকে সেই ঘটনার পুরো বিষয়টা জানতে হবে। শাকিরি আরো মারাত্মক কাজ করেছে,সে তার পায়ের গোড়ালিতে এক পাশে সুইজারল্যান্ড এর পতাকা রেখেছে এবং অন্যপাসে কসোভোর পতাকা রেখেছে এবং মজার বিষয় হচ্ছে সুইজারল্যান্ড সরকারও বিষয়টাতে কোনো আপত্তি করেনি। এর একটা প্রধান কারণ হচ্ছে সার্বিয়া এখনো কসোভোকে স্বাধীন দেশ হিসেবে স্বীকৃতি দেয়নি।

বিশ্বের বড় বড় সব মিডিয়া দেখলা  ফেটে পরেছে এই ঘটনায়। গার্ডিয়ান তাদের প্রথম পাতায় এটা নিয়ে একটা বিস্তারিত রিপোর্ট করেছে। সার্ববাহিনির গনহত্যার সেই ঘটনা পুরো পৃথিবী ভুলেই গেছিলো। কিন্তু, সেই গনহত্যা থেকে বেচে আসা মাত্র দু’জন মানুষ পুরো পৃথিবীর চোখে আঙু দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে এবং মনে করিয়ে দিয়েছে যে তখন কি ঘটেছে, সেটাও আবার ফুটবল মাঠে!

যদিও, এই উদযাপনের খেসারত সম্ভবত দিতেই হচ্ছে দুই সুইস ফুটবলারকে। সার্বিয়ান ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের সেক্রেটারি জেনারেল জোভান সার্বাটোভিচ জানিয়েছেন, সংস্থাটি ফিফার কাছে লিখিত অভিযোগ পাঠাবে। ফিফা অভিযোগ আমলে নিয়ে দুই ফুটবলারকে দুই ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ করার ক্ষমতাও রাখে।

https://www.mega888cuci.com