জার্মানিও হারে, প্রথম পর্ব থেকে ছিটকেও যায়!

নিজের বিখ্যাত সেই বক্তব্যটা কিছুটা পরিমার্জন করেছিলেন গ্যারি লিনেকার। সুইডেনের বিপক্ষে ১০ জনের দল নিয়েও অন্তিম মুহূর্তে টনি ক্রুসের সেট পিস থেকে জয় নিশ্চিত হওয়ার পর টুইট করে লিখেছিলেন, ‘ফুটবল একটা সাধারণ খেলা। ২২ জন মানুষ একটি বলের পিছনে ৮২ মিনিট দৌঁড়ায়, জার্মানি লাল কার্ড পায়, বাকি ১৩ মিনিট একটা বলের পেছনে ১৩ মিনিট দৌঁড়ায়, আর সব কিছুর শেষে কোনো না কোনো ভাবে জার্মানিই জিতে যায়।’

না, ১৯৮৬ সালের গোল্ডেন বুট জয়ী লিনেকার সব সাহেব সব সময় শতভাগ সঠিক নন। জার্মানিও কখনো কখনো হেরে যায়। শুধু হারাই নয়, কখনো কখনো তাঁরা প্রথম পর্ব থেকে বাদও পড়ে যায়। যেমনটা ঘটলো এবারেরর রাশিয়া বিশ্বকাপে। নক আউট রাউন্ডে যেতে যেখানে নুন্যতম একটা হয় জরুরী ছিল জার্মান মেশিনদের জন্য সেখানে দলটা ২-০ গোলে হেরে গেল দক্ষিণ কোরিয়ার কাছে।

সেই দক্ষিণ কোরিয়া, যারা এবারের গ্রুপ পর্বে একটা ম্যাচও জিততে পারেনি। অথচ, আজ সুযোগ বুঝে জার্মানদে জালে ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধের শেষ ভাগে দুবার করে বল জড়িয়ে দিল। ফলাফল ফুটবল ইতিহাস দেখলো তাঁর ইতিহাসের সবচেয়ে বিস্ময়কর ম্যাচগুলোর একটি।

এই জয়ের অবশ্য কাগজে কলমে কোনো লাভ হয়নি দক্ষিণ কোরিয়ার। তবে ৩ খেলায় ৩ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের চতুর্থ স্থান থেকে গ্রুপ পর্ব থেকেই বিশ্বকাপ মিশন শেষ করলো জার্মানরা। তিন খেলায় তিন পয়েন্ট নিয়ে বিদায় নিল দক্ষিণ কোরিয়া, তারপরও বিশ্বকাপটা চিরস্মরণীয় হয়ে লেখা থাকবে কোরিয়ানদের হৃদয়ে।

গ্রুপের অপর ম্যাচে মেক্সিকোকে ৩-০ গোলে হারিয়ে শেষ ষোলোতে জায়গা করে নিলো সুইডেন। আগের ম্যাচেই জার্মানদের বিপক্ষে ২-১ গোলে হারের পর ব্যাকফুটেই ছিল দলটি।  সেই চাপ নিয়ে মেক্সিকোর বিপক্ষে যেন তেন নয়, বড় ব্যবধানের জয় দিয়েই নক আউট রাউন্ড নিশ্চিত করে নিল সুইডিশরা।

গত ৮০ বছরের মধ্যে জার্মান কেবল নিষেধাজ্ঞার কারণে ১৯৫০ সালের বিশ্বকাপ খেলতে পারেনি। এর বাদে আর কোনোবারই প্রথম রাউন্ড থেকে বাদ পড়ার কোনো নজির নেই। বিশ্বকাপের প্রথম পর্ব থেকেই তাঁরা বাদ পড়েছিল কেবল একবার, সেটা ১৯৩৮ সালের ঘটনা।

৮০ বছর আগের সেই ঘটনার পূনরাবৃত্তি হল ২০১৮ সালে এসে। সেবারের ফ্রান্স বিশ্বকাপের বিপর্যয় ফিরলো রাশিয়াতে। বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা আগেও প্রথম পর্ব থেকে বিদায় নিয়েছে, তবে এর আগের কোনোটাই জার্মানির মত অজেয় ছিল না। নি:সন্দেহে এই বিপর্যয়ের যন্ত্রনা অনেকদিন ভোগাবে জার্মানদের।

https://www.mega888cuci.com