কেন দেখবেন সাউথ ইন্ডিয়ান সিনেমা?

ভারতের দক্ষিণী ভাষার সিনেমা নিয়ে আমার জ্ঞান সীমিত,সিনেমা যা দেখেছি তা হয়তো সংখ্যায় ও গোণা যাবে। তবে, যতটুকু দেখেছি, তাতেই বুঝেছি যে এসব সিনেমা মানেই ঢিশুম ঢিশুম মারামারি আর অতিমানবীয় সব স্টান্ট নয়। দক্ষিণ ভারতে এখন ভারতের সবচেয়ে কনটেন্টবহুল সিনেমা নির্মিত হয়। সেখান থেকেই পছন্দের কয়েকটা সিনেমার কথা বলবো। সিনেমাগুলে দেখলে আপনিও তামিল-তেলেগু সিনেমার প্রেমে পড়তে বাধ্য।

  • রোজা (১৯৯২)

শৈশবে আমার দেখা প্রথম দক্ষিণী ভাষার সিনেমা,যদিও দেখেছিলাম হিন্দি ভাষায়। জঙ্গীবাদ ও গভীর ভালোবাসার গল্পের এই সিনেমাটি আমার দেখা মনিরত্নমের সেরা সিনেমা। অরবিন্দ স্বামী আর মাধুর অনবদ্য অভিনয়। সঙ্গে আছে এ.আর.রহমানের অনবদ্য সঙ্গীত। ‘রোজা জানেমান’ গানটা আমার সব সময়ের প্রিয়,প্রথম ছবিতেই পেয়েছিলেন জাতীয় পুরস্কার। এই সিনেমাটি যারা দেখবেন তাঁদের একই সাথে ‘বোম্বে’ সিনেমাটাও দেখা উচিৎ।

  • নায়াকান (১৯৮৭)

কিংবদন্তি অভিনেতা কমল হাসান নিজেকে অনন্য করেছেন এই ‘নায়াকান’ সিনেমা দিয়ে। অসহায় এতিম ছেলে থেকে একপর্যায়ে শহরের বড় মাফিয়া ডনের চরিত্রে তিনি অনবদ্য ভাবে ফুটিয়ে তুলেছিলেন। সেই সুবাদেই কমল হাসান এই সিনেমার জন্য অর্জন করেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। পরিচালক মনিরত্নমের ক্যারিয়ারে এই ছবিটি সেরা তিনটি কাজের একটি। এই ছবিটি পরে বলিউডে ‘দয়াবান’ নামে রিমেক হয়।

  • ব্যাঙ্গালোর ডেইজ (২০১৪)

তিন বন্ধুর জীবনের নানাদিক, আনন্দ, দু:খ নিয়েই এই ছবির গল্প। সঙ্গে এসেছে তাদের জীবনসঙ্গীদের গল্পও। এই ছবি দেখতে দেখতে কখন যে সময় ফুরিয়ে এসেছিল, বোঝায় যানি। অঞ্জলি মেননের পরিচালনায় মালায়লাম ইন্ডাস্ট্রির মহাতারকা নিভিন পাউলি, দুলকার সালমান, নাজারিয়া নাজিম, পার্বতী, ফাহাদ ফাসিল সবাই আছেন এই ছবিতে।

  • ১৯৮৩ (২০১৪)

১৯৮৩ সালের ভারতের ক্রিকেট বিশ্বকাপকে অনুপ্রেরণা নিয়ে মালায়লাম সিনেমা ১৯৮৩। ক্রিকেট পাগল রামেশান চরিত্রে নিভিন পাউলির অনবদ্য অভিনয়, ক্রীড়াভিত্তিক সিনেমা হিসেবেও এটি অন্যতম সেরা সিনেমা। পরিচালক ছিলেন আব্রিদ।

  • কোডে (২০১৮)

ভাই-বোনের গল্প। তবে এখানে বোন মৃত। সে ফিরে এসে অনেক বছর বাদে দেশে ফিরে আসা ভাইয়ের মানসিক জগতে। দু’জনের সম্পর্কের গাঢ়তা ও গল্পের বুননে ছবিটি পেয়েছে অন্যমাত্রা। অভিজিৎ, নাজারিয়া নাজিম, পার্বতী অভিনীত এই ছবিটি বানিয়েছেন অঞ্জলি মেনন। এই নির্মাতা যদি এইভাবে একের পর এক সিনেমা বানিয়ে যান, নারী নির্মাতা হিসেবে তো বটেই, ভারতীয় উপমহাদেশে নির্মাতা হিসেবেও সুপ্রতিষ্ঠিত হয়ে যাবেন।

https://www.mega888cuci.com