জনৈক ফেসবুক সেলিব্রেটির একদিন

সকালবেলা অফিসের দিকে রওনা হলেন জনৈক ফেসবুক সেলিব্রেটি।

: ওই রিকশা গুলশান যাবা?

: চলেন।

: ভাড়া কত?

: ৫০ টাকা দিয়েন!

: আমি ফেসবুক সেলিব্রেটি! ২৫ টাকায় যাবা?

: ফেসবুক সেলিব্রেটি! তাইলে যামুনা! আমার রিকশায় খালি মানুষ টানি!

রিকশা না পেয়ে ফেসবুক সেলিব্রেটি এবার উবারে কল দিলেন।

: হ্যালো স্যার স্লামালেকুম! উবার থেকে বলছি। কোথায় যাবেন?

: কোথায় যাবেন এই কথাটা কিন্তু আপনি জিজ্ঞেস করতে পারেন না! আপনাদের রাইট নাই!’

: আমাদের রাইট লাগে না! রাইট আমরা বানাই!

: এই তুমি জানো আমি কে বলছি? আমি একজন ফেসবুক সেলিব্রেটি বলছি! তোমার নামে জাস্ট একটা স্ট্যাটাস দিব!

: একটা ক্যান, দশটা দিয়েন, আমি লাইক মাইরা দিবোনে!

কিছুই না পেয়ে হেঁটে হেঁটে অফিস আসলেন ফেসবুক সেলিব্রেটি। অফিসে ঢুকেই শুনলেন বস ক্ষেপা! ফেসবুক সেলিব্রেটিকে তার রুমে ডেকেছেন-

: স্যার আমাকে ডেকেছেন?

: হুমম মিস্টার ফেসবুক সেলিব্রেটি! আপনাকে আর চাকরিতে রাখছি না! প্রতিদিন লেট করে আসেন! হেড অফিস বলছে আপনারে ব্লক করে দিতে!

: স্যার, সিসি ক্যামেরাটা একটু বন্ধ করবেন?

: সিসি ক্যামেরা বন্ধ করবো ক্যান?

: আপনার পা ধইরা মাফ চাইতাম স্যার! আমি তো ফেসবুক সেলিব্রেটি! হুটহাট তো পা ধরতে পারিনা! কারণ আমি আপনার পা ধরছি এটা ভাইরাল হলে আমি শেষ!

: ফেসবুকি সেলিব্রেটি আপনি আমার রুম থেকে যান তো! পুরাই ডিস্টার্ব।

রাতের বেলা মন খারাপ করে বাসায় ফিরছে ফেসবুক সেলিব্রেটি। আজ খুব ধকল গেছে। কোনরকমে চাকরিটা বাঁচানো গেছে। কিন্তু বস খুব ঝাড়ি দিছে। রাতে টাকলু বসরে নিয়ে একটা প্যারোডি লিখতে হবে! দশ বারো হাজার লাইক পাইতেই হবে!

: বস যা যা আছে সব দিয়া দেন?

: তুমি আমাকে ছিনতাই করছো? তুমি জানো আমি কে?

: কে আপনি?

: আমি একজন ফেসবুক সেলিব্রেটি!

: ও ফেসবুক সেলিব্রেটি! তাইলে তো প্যান্টও খুলবেন! কোন ডিসকাউন্ট নাই! নিচে আন্ডারওয়্যার আছে? থাকলে ওইটাও দ্যান!

ফেসবুক সেলিব্রেটি নংকু হয়ে একটা ঝোপে লুকিয়ে আছেন। রাত আর একটু গভীর হলেই তিনি বাসায় ফিরবেন। সাধারণ কেউ হলে অবশ্য এখনই ফেরা যেত। কিন্তু তিনি যে ফেসবুক সেলিব্রেটি!

https://www.mega888cuci.com