হে কুল ড্যুড, ইন্ডাস্ট্রিতে আপনার অবদান কী!

বাংলাদেশের সিনেমা স্টারদের নিয়ে কুল ড্যুডরা কয়দিন পর-পর ট্রল করে মজা নেন। ওমর সানি ইদানিং সবচেয়ে বেশি ট্রল হচ্ছেন। এবার ইরফান খানের মৃত্যুর পর সানি সাহেবের ফেসবুক পোস্ট নিয়ে বেশ ট্রল হচ্ছে। ইরফান ওনার পরে সিনেমা জগতে এলেও অনেক বড় অভিনেতা, এরকম কিছু একটা লিখেছেন বলেই এত হাসাহাসি।

ইরফান ওনার অনেক আগে সিনেমায় এসেছেন, এটা না জানা ওনার অজ্ঞতা। ওভাবে বলাটাও ঠিক হয়নি। সেটা উনি বুঝে সরিও বলেছেন। তারপরও আপনারা হাসাহাসি করে যাচ্ছেন। উনি যে বলেছেন, গ্রেট আর্টিস্টের কোনো বর্ডার নেই, ইরফান অনেক বড় অভিনেতা, কোনোদিন দেখা না হলেও মনে করেন ভাই-বন্ধু, এমন কথাগুলো আপনাদের মনে ধরলো না।

সমস্যা আমাদের কলোনিয়াল মানসিকতায়। নিজেদের কিছুই ভালো লাগে না। নিজেদের ছোট করাতেই যেন আমাদের আনন্দ। ওমর সানি খুব বড় মাপের অভিনেতা নন। তবু নব্বই দশকে রোমান্টিক ধারার ঢাকাই সিনেমায় জনপ্রিয়তায় সালমান শাহ’র সমান্তরাল ছিলেন।

যদিও মাস পিপলের কাছে জনপ্রিয়তায় জসিম, ইলিয়াস কাঞ্চন, রুবেল, মান্না, সালমান শাহ’র পর পাঁচ নম্বর নায়ক ছিলেন, তারপরও ১৯৯৩ থেকে ৯৮ সাল পর্যন্ত তাঁর হিট ছবির সংখ্যা অন্তত কুড়িটি। যে ছবিগুলো কোটি-কোটি টাকা ব্যবসা করে বাংলাদেশের সিনেমাকে টিকিয়ে রাখতে সহায়তা করেছিল।

ওমর সানির হিট-সুপার হিট ছবিগুলো হল – চাঁদের আলো, দোলা, প্রেমগীত, বাংলার বধূ, আত্ম অহংকার, প্রথম প্রেম, প্রিয় তুমি, আখেরী রাস্তা, চরম আঘাত, প্রেমের অহংকার, লজ্জা, হুলিয়া, হারানো প্রেম, সুখের স্বর্গ, ঘাত-প্রতিঘাত,মহৎ, মুক্তির সংগ্রাম, ফাঁসির আসামী, মোনাফেক, গরীবের রাণী, শয়তান মানুষ, রঙীন নয়নমণি, রঙীন রংবাজ, লাট সাহেবের মেয়ে, অধিকার চাই, কুলি, মধুর মিলন, কে অপরাধী ও শাবাশ বাঙালি।

এত সংখ্যক হিট ছবি গত ১৫ বছর ধরে এক নম্বর আসনে থাকা সাকিব খানেরও হয়ত নাই। ওমর সানির মেলানো ঠোঁটে যে পরিমাণ শ্রোতাপ্রিয় গান আছে, অনেক বলিউড সুপার স্টারেরও তা নাই।

তুমি আমার চাঁদ আমি চাঁদেরই আলো,  আমার সুরের সাথী আয়রে, আমার এক দিকে পৃথিবী এক দিকে ভালোবাসা, জাগো জাগো প্রিয়তমা, তুমি চলে যেও না ও সাথী আমার, তুমি আমার প্রথম প্রেম তুমি আমার ভালোবাসা, প্রেম নগরের জংশনে দেখা হলো দুজনে, তুমি এমন কোনো কথা বলো না, হাজার বছর পর আমি এক যাযাবর, তুমি যে কখন এসে মন চুরি করেছ, আশেপাশে কেউ নেই দরজাও বন্ধ, জীবনের গান আজ গাইব, প্রেম কখনো মধুর কখনো সে বেদনা বিধূর, হারানো প্রেমের স্মৃতি মনে করে দেখো, নাই নাই নাইরে সারা দেশে নাই, আকাশেতে লক্ষ তারা চাঁদ কিন্তু একটারে, কি ছিলে আমার বলো না তুমি, কি যে ভালোবাসি কত ভালোবাসি – আপাতত এই কয়টাই মনে পড়লো।

হে কুল ড্যুড, বড় মাপের অভিনেতা না হয়েও বাংলাদেশ ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে ওমর সানির অবদান এতখানি। নব্বই দশকে ওনার চুলের স্টাইল ফলো করা যুবা লাখ-লাখ। তিনি ড্যারবা আই মিন বাঁহাতি, এটা নিয়েও আপনারা ট্রল করেন! কই সাকিব আল হাসান বাঁহাতি বলে তো তাঁকে ট্রল করেন না। হে কুল ড্যুড, এবার নিজেকে একটা প্রশ্ন করেন, আপনি যে সেক্টর বা ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করেন, সেখানে আপনার অবদান কী?

https://www.mega888cuci.com