৮২’র এক সুন্দর সকালে তিনি হারিয়ে যান!

তাঁর বয়স তখন ৩২ বছর, দিনমজুর। দুই সন্তানের জনক। ১৯৮২ সালের এক সুন্দর সকালে তিনি হারিয়ে গেলেন। ভদ্রলোকের নাম গজানন্দ শর্মা। বাড়ি ভারতের জয়পুরে। থাকতেন পরিবারের সাথে।

সেখান থেকেই তিনি হারিয়ে যান। দিনের পর দিন তাঁর খোঁজ করা হল, কিন্তু কোনো হদিস মিললো না। টানা ৩৬ বছর কোনো খবরই জানা গেল না তাঁর। জয়পুরের ব্রহ্মাপুরি থানায় অভিযোগ করা হল, তাতেও কোনো ফল আসলো না।

আসবে কি করে, গজানন্দের স্ত্রী মাখনী দেবী পড়াশোনাই জানতেন না। ফলে, কোনো রিপোর্টই পুলিশের কাছে তিনি দাখিল করতে পারেননি। ছোট দুই ছেলের জন্য বাধ্য হয়েই হাসপাতালের পিয়নের চাকরি নিলেন। প্রতিটা মুহূর্ত গজানন্দের পরিবারের শুধু একটাই চাওয়া ছিল, অন্তত একবারের জন্য হলেও যেন বাড়ি ফিরে আসেন তিনি।

পরিবারের সেই অপেক্ষার অবসান হতে চলেছে। খুঁজে পাওয়া গেছে গজানন্দকে। এতগুলো বছর তাঁকে পাকিস্তানের লাহোর শহরের জেলে কাটাতে হয়েছে। স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে ভারত ও পাকিস্তান নিজেদের জেলে বন্দীদের একাংশকে রেহাই দিচ্ছে।

তারই অংশ হিসেবে ৬৮ বছর বয়সে বাড়ি ফিরতে চলেছেন গজানন্দ। লম্বা সময় ধরে এই দিনটারই অপেক্ষা করছিলেন তাঁর স্ত্রী। ৬২ বছর বয়সী মাখনী দেবী বারবার বলেছেন, ‘মারা যাওয়ার আগে অনন্ত একবার স্বামীকে দেখে যেতে চাই।’

পাকিস্তান থেকে গজানন্দের নাগরিকত্ব যাচাই করার জন্য কাগজপত্র ও ছবি পাঠানো হয়েছিল জয়পুরের পুলিশ সুপারের কাছে। পুলিশের লোক গজানন্দের বাড়িতে পৌঁছালে গজানন্দের জীবিত থাকার খবরটা অধিকাংশ লোকে বিশ্বাসই করতে চাননি। ছবি দেখে বাবাকে চিনতে পারেন গজানন্দের ছোট ছেলে মুকেশ শর্মা।

তখনই মুকেশ খবর পাঠান বড় ভাইকে। গজানন্দের বড় ছেলে রাকেশ শর্মা স্ত্রী-সন্তান নিয়ে থাকেন ফাতেহরামের মাউন্ট রোডের কা টিবা কলোনিতে। জানানো হয় গজানন্দের ভাই রাজেন্দ্রকেও। গেল সাত মে পরিবার গজানন্দের ব্যাপারে সকল তথ্য পায়।

এরপর শুরু হয় ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া। যদিও, পরিবারের এই ব্যাপারে কোনো ধারণাই ছিল না। এমনকি তাঁরা তো এটাও জানে না, কেনই বা পাকিস্তানে বন্দী জীবন কাটাচ্ছেন গজানন্দ, তাঁর অপরাধটাই বা কি!

পাকিস্তানের দাবী, গজানন্দকে গ্রেফতার করা হয় ফরেনার’স অ্যাক্টে। কিন্তু, গজানন্দের বাড়ি থেকে বর্ডারের দূরত্ব প্রায় ৮০০ কিলোমিটার। বর্ডার অতিক্রম করে কিভাবে তিনি পাকিস্তানে গেলেন তাঁর ব্যাখ্যা কেউ জানে না। বিষয়টা মধ্যস্ততা করতে এগিয়ে আসে খোদ ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়।

সরকারী হিসাব অনুসারে পাকিস্তানের জেলগুলোতে এখন ৪৫৭ জন নিরাপরাধ ভারতীয় বন্দী আছেন। গজানন্দ বাড়ি ফিরেছেন, বাকিরাও কি ফিরবেন!

– বিয়িং ইন্ডিয়ান ও জি নিউজ অবলম্বনে

https://www.mega888cuci.com