কাশিমপুর কারাগারকে বিয়েবাড়ি ভেবে হেলিকপ্টার ল্যান্ডিং!

বিলাল হোসেন বেশ অনেকদিন হল মালয়েশিয়ায় প্রবাস জীবন-যাপন করছেন। সম্প্রতি তিনি বাংলাদেশে ফিরেছিলেন একটা বিয়েতে অংশ নিতে। হেলিকপ্টারে করে বিয়েতে যেতে চেয়েছিলেন বিলাল।

আর তাতেই ঘটলো বিপত্তি!

গত বৃহস্পতিবার পরিবার নিয়ে কুমিল্লা থেকে হেলিকপ্টারে করে গাজিপুরে অবস্থিত কোনাবাড়ির কুদ্দুসনগরে যাত্রা করলেন তিনি। বেলা ১১টা নাগাদ বিলাল এসে পৌঁছলেন কাশিমপুর কারাগারে। পাইলট কুদ্দুসনগরের স্কুল মাঠ ভেবে হেলিকপ্টার গিয়ে ল্যান্ড করলো উচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থাপনা সম্পন্ন কাশিমপুর কারাগারের ‘রেস্ট্রিকটেড জোন’-এ।

হামলা বা চক্রান্ত ভেনে নিরাপত্তাকর্মীরা তখনই হেলিকপ্টারটিকে ঘিরে ধরে। এরপর কারাগারের দায়িত্বে থাকা প্রহরী ও কর্মকর্তাদর জেরার মুখোমুখি হতে হয় বরযাত্রীদের। যদিও সব যাচাই-বাছাইয়ের পর বেল সাড়ে বারোটা নাগাদ বিলাল ও তার পরিবার বন্ড সই করে জেল থেকে বের হয়ে আসতে সক্ষম হয়।

হেলিকপ্টারটি মেঘনা অ্যাভিয়েশন নামের একটি প্রতিষ্ঠানের। ঘটনার পরই তারা পাইলটের ভুলের জন্য ক্ষমা পার্থনা করেছেন।

যদিও, নিজের ভুল অস্বীকার করেছেন হেলিকপ্টারের পাইলট অবসরপ্রাপ্ত উইং কমান্ডার সোহেল লতিফ। তিনি বলেন, ‘আমি হেলিকপ্টারটা জেলের ১১০০ গজ (৩৩০০ ‍ফিট) দূরে ল্যান্ড করাই। যে জায়গায় ল্যান্ড করানোর কথা ছিল সেটা জলাবদ্ধতার কারনে ল্যান্ড করানোর উপযুক্ত ছিল না।’

অভিজ্ঞ এই পাইলট আরো বলেন, ‘আমি ৩০ বছর ধরে ফ্লাইং করছি। আমি এমন ভুল করতেই পারি না। আমি সব জেনে বুঝেই স্কুলে ল্যান্ড করেছিলাম। ওটা জেলখানা ছিল না। মিডিয়ায় বিষয়টার ভুল ব্যাখ্যা হচ্ছে।’

https://www.mega888cuci.com