নব্বই দশকের ‘হিরো নাম্বার ওয়ান’

আপনার জন্ম কি নব্বই দশকের? বাসায় ডিশ সংযোগ ছিল? – এই দু’টো প্রশ্নের উত্তর হ্যা-বোধক হলে অবশ্যই আপনি গোবিন্দকে কোনো না কোনো সময় টেলিভিশনের পর্দায় দেখেছেন।

নব্বই দশকে তিনিই ছিলেন বলিউডের কমেডি কিং, কখনো অ্যাকশনের অ্যাংরি ইয়ং ম্যান। পুরো নাম গোবিন্দ আহুজা কখনো তিনি হাসিয়ে হাসিয়ে পেটে খিল ধরিয়ে দিয়েছেন। কখনো অনেক সুরসরি দিয়েছেন, কিন্তু হাসি আসেনি।

তার নাচের কথা না বললেই নয়। হৃত্তিক-শহীদ কাপুররা না আসলে হয়তো তাকেই ভারতের সবচেয়ে বড় ‘নাচ জানা নায়ক’ বলে রায় দিয়ে দেওয়া যেত। অভিনব অঙ্গভঙ্গী আর কমেডির মিশেলে তার নাচগুলো আক্ষরিক অর্থেই ছিল মাস্টারপিস।

ইউপি ওয়ালা ঠুমকা, কিসি ডিসকো মেয় জায়ে, সোনা কিতনা সোনা হ্যায়, মেরি মারবি – এসব গানগুলো ওই সময় লোকের মুখে মুখে ঘুরতো। ভারতের বিয়ে শাদিতে বাজতো, লোকে নাচতো, ডিসকোগুলোতেও জায়গা করে নিয়েছিল এই গান। তবে, সব মিলিয়ে তিনি ছিলেন সত্যিকারের এক বিনোদন। অভিনয়টাও ভাল, অ্যাকশনে খারাপ না। মোট কথা তিনি সবই জানতেন।

যদিও, ক্যারিয়ারের শুরুটায় অনেক কাঠখড় পোহাতে হয়েছিল তাকে। বলা হত, নায়ক হিসেবে খুব একটা ‘পুরুষালি’ ছিলেন না। অতিরিক্ত তরুণ দেখায় – এই অজুহাতে অনেকবার ছিটকে গেছেন। ফলে, অ্যাকশন হিরো হিসেবে অনেক সময়ই পাশ মার্ক পেতে ব্যর্থ হতেন।

তবে, সেই চেহারা আর কমিক সেন্স ছিল তার অস্ত্র। সাথে ধরে রেখেছিলেন নিজের একাগ্রতা। ফলাফল, অনেক ঝড়-ঝাপটার মধ্যে ঠিকই সাফল্য পেয়েছেন নব্বই দশকের এই হিট নায়ক। আঁখে, কুলি নম্বর ওয়ান, রাজা বাবু, দুলহে রাজা, সাজান চালা সাসুরাল, হিরো নাম্বার ওয়ান, বাড়ে মিয়াঁ ছোটে মিয়াঁ ও হাসিনা মান জায়েগির মত সিনেমা সেটাই প্রমাণ করে।

১৯৯৪ সালে এক বছরেই মুক্তি পায় তাঁর আটটি সিনেমা। আর ছিল একটা অতিথি চরিত্র। তখন গোবিন্দ রীতিমত আকাশে উড়ছিলেন।

ওই সময় খুব কাছাকাছি সময়ের মধ্যে ৪৯ টি সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হন তিনি। আর ৩৬ ঘণ্টার মধ্যে ১৪ টি সিনেমার চুক্তিপত্রে সই করেন। এটা ভারতের ফিল্ম ইন্ড্রাস্টির ইতিহাসে রীতিমত রেকর্ড।

যদিও, কালক্রমে গোবিন্দর সুদিন হারিয়েছে। মাঝে পার্টনার সিনেমায় সালমান খানের সাথে জুটি বেঁধে বেশ ভালই জমিয়ে দিয়েছিলেন। তবে, শেষ রক্ষা হয়নি। একটা সময় রাজনীতিতে ব্যস্ত হয়ে যাওয়ায় গোবিন্দর স্টারডম বেঁচে ছিল কেবল রিয়েলিটি শো গুলোতে আর নব্বই দশকের স্মৃতিচারণায়। আর এখন যে মানের সিনেমা তিনি করেন, তাতে দর্শক হয় না বললেই চলে!

https://www.mega888cuci.com