কাজী তৌকির-অভিজিৎ সাওয়ান্তকে মনে আছে!

হার কে জিতনে ওয়ালে কো বাজিগার ক্যাহতে হয়। আর ভারতীয় টেলিভিশনের রিয়েলিটি শো’গুলোতে এমন বিস্তর ‘বাজিগর’ খুঁজে যাওয়া যায়। জিতেও কাজ করতে গিয়ে হেরে যাওয়াও আছেন অনেক।

রিয়েলিটি শো গুলোতে এমন অনেক বিজয়ী পাওয়া যায় যাদের প্রতিযোগীতার ট্রফি আর পুরস্কারের অর্থ ছাড়া কপালে কিছুই জোটে না। এই যেমন কাজী তৌকির ও অভিজিৎ সাওয়ান্ত। তবে, রিয়েলিটি শোতে পেছনের দিকে থাকা অনেক প্রতিযোগীই এখন ভারতীয় ইন্ড্রাস্ট্রিতে বেশ নাম কামাচ্ছেন।

সনি টেলিভিশনের ফেম গুরুকুলে সেই ২০০৫ সালে রুপরেখা ব্যানার্জীর সাথে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন কাজী তৌকির। ভারতীয় রিয়েলিটি শোয়ের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ভোট পেয়েছিলেন তিনি। গানের গলা খুব ভাল না হলেও পারফরম্যান্স আর স্টাইল আইকনের সুবাদে খ্যাতি পেয়েছিলেন।

অথচ, শীর্ষ তিনেও ছিলেন না আরিজিৎ সিং। খুব কম লোকই তাকে মনে রেখেছিল তাকে। অথচ, আরিজিৎ সিংকে এখন এক নামে চেনে লোকে। আশিকি টু সিনেমায় তার গাওয়া ‘তুম হি হো’ গানটি তাকে খ্যাতির শীর্ষে তুলে দেয়। পরিশ্রমের বদৌলতে এখন ভারতের অন্যতম জনপ্রিয় ও ব্যস্ত প্লে-ব্যাক গায়ক তিনি।

কাজী তৌকির হারিয়ে গেছেন। গায়ক নয়, নায়ক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হতে চেয়েছিলেন। তবে, কাজের কাজ হয়নি। ২০১৫ সালে ফ্যানটম সিনেমায় ‘আফগান জালেবি’ গানে অবশ্য কাজ করেছিলেন ক্যাটরিনা কাইফের সাথে।

অন্যদিকে, সনিতে ইন্ডিয়ান আইডলের প্রথম আসরের চ্যাম্পিয়ন ছিলেন অভিসজিৎ সাওয়ান্ত। গানের গলাও মন্দ ছিল না। তবে, সেটা ধরে রাখতে পারেননি। সলো অ্যালবাম দিয়ে টিকে থাকতে চেয়েছিলেন।

তাতে খুব বেশি সুবিধা করতে পারেননি। অথচ সেবার ইন্ডিয়ান আইডলে তৃতীয় হওয়া রাহুল বৈদ্য এখন প্লে-ব্যাক নিয়ে বেশ ব্যস্ত। রেস সিনেমায় তার ‘বে ইন্তেহা’ (আনপ্লাগড ভার্সন) গানটা ছিল বিশাল হিট। সাথে তার সলো অ্যালবামগুলোও বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

প্লে-ব্যাকে আছেন অভিজিৎও। তবে, সেটাও না থাকার মতই। ঢিশুম সিনেমার ‘সও তারে কে’ গানে তার সামান্য অংশ গ্রহণ ছিল। দক্ষিণী সিনেমাগুলোতে টুকটাক কখনো-সখনো কাজ করেন।

চেষ্টা থাকলে যে সবই সম্ভব সেটা অরিজিৎ সিং কিংবা আরিজিৎ সিং করে দেখিয়েছেন। অন্যদিকে স্রেফ পরিশ্রমের অভাবে হারিয়ে যাচ্ছেন অভিজিৎ সাওয়ান্ত ও কাজী তৌকির!

https://www.mega888cuci.com