আন্তর্জাতিক গনিত অলিম্পিয়াডে সাফল্য ও বেসিক সায়েন্সে অনাগ্রহ

আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডে এবার বাংলাদেশের ছেলেপেলেরা খুব ভালো করেছে। দক্ষিণ এশিয়ার মাঝে প্রথম হয়েছে। এমনকি পাশের দেশ ভারত আমাদের চাইতে অনেক পিছিয়ে। এখন প্রশ্ন হচ্ছে- তাহলে জ্ঞান-বিজ্ঞানে আমরা এতো পিছিয়ে কেন?

আমাদের ছেলেপেলেরা তো স্কুল-কলেজ লেভেলে এমনকি আন্তর্জাতিক পর্যায়েও ভালো করছে। এরপরও আমরা জ্ঞান-বিজ্ঞানে পাশের দেশ ভারত, শ্রীলঙ্কা কিংবা এমনকি ক্ষেত্র বিশেষে পাকিস্তানের চাইতেও পিছিয়ে কেন?

ভারতীয়রা যখন রকেট বানিয়ে স্পেসে মানুষ পাঠাচ্ছে, আমরা কেন তাহলে এর ধারে কাছেও যেতে পারছি না?

এর কারন হচ্ছে বেসিক সায়েন্সে আমারা মোটেই আগ্রহী না। যেই ছেলেপেলে গুলো আজ গণিত অলিম্পিয়াডে ভালো করেছে, গিয়ে দেখবেন, এরা কেউ ইউনিভার্সিটিতে অনার্স কিংবা মাস্টার্স পর্যায়ে গণিত কিংবা পদার্থ বিজ্ঞান নিয়ে পড়বে না। এরা যেহেতু ভালো ছাত্র, এরা ভর্তি হবে কোন ইঞ্জিনিয়ারিং এর সাবজেক্টে কিংবা হয়তো ডাক্তারি পড়বে।

অথচ জ্ঞান-বিজ্ঞানে এগিয়ে যাওয়ার জন্য গণিত, পদার্থ বিজ্ঞানের মতো বিষয় গুলোতে ভালো হওয়া এবং এই সব বিষয়ে বিশেষজ্ঞ থাকা খুবই প্রয়োজন। ইউরোপে-আমেরিকায় সব চাইতে ভালো ছাত্ররা নিজ থেকেই গিয়ে এই সব সাবজেক্টে ভর্তি হয়। এবং এরাই শেষ পর্যন্ত জ্ঞান-বিজ্ঞানে অবদান রাখে। এমনকি পাশের দেশ ভারত কিংবা শ্রীলঙ্কাও এই সব বিষয়ের উপর বেশ জোর দিচ্ছে। এই সব সাবজেক্টে পড়লে অন্তত এই দেশ গুলোর সাধারণ মানুষ ছাত্রদের বাঁকা চোখে দেখে না।

আর আমাদের দেশে? জ্ঞান-বিজ্ঞানের কথা বাদ’ই দেন। যারা এই সব বিষয়ে নিয়ে পড়াশুনা করে, তারা প্রতিনিয়ত সামাজিক ভাবেই হেয় প্রতিপন্ন হয়।

ধরুন কেউ একজন গণিত কিংবা পদার্থ বিজ্ঞান নিয়ে পড়াশুনা করছে। অভিভাবক গোত্রের কেউ একজন বলে বসবে

– আর কোন সাবজেক্ট পাওনি? এই সাবজেক্ট পড়ে শেষ পর্যন্ত করবে কি?

যারা এই বিষয় গুলো নিয়ে পড়াশুনা করেছে কিংবা এখনো করছে, তাদের গিয়ে জিজ্ঞেস করে দেখুন; তারা সবাই কম বেশি এমন অভিজ্ঞতার শিকার হয়েছে। শুধু তাই না, এমনকি নিজের বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য-বন্ধু বান্ধবরা, যারা কিনা একটু ভালো (সো-কল্ড) সাবজেক্ট নিয়ে পড়ছে, তারাও এই নিয়ে হাসাহাসি করে কিংবা একটু ভাব নেয়ার চেষ্টা করে!

এই জন্য দেখা যায় আমাদের ভালো প্রতিভা গুলো শেষ পর্যন্ত বেসিক সাবজেক্ট গুলোতে আর পড়তে যায় না! এই কারণে স্কুল-কলেজ পর্যায়ের এমনকি আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতা গুলোতে আমরা ভালো করেলেও শেষমেশ জ্ঞান-বিজ্ঞানে আমাদেরও আর এগুনো হচ্ছে না। প্রতিভা গুলো এভাবেই ঝরে পড়ছে।

– ফেসবুক থেকে

https://www.mega888cuci.com