কোচ বলতেন খেলোয়াড়রা মিথ্যা বলছে, সভাপতিও মেনে নিতেন!

তাকে (হাতুরুসিংহে) নিয়ে তো আপনাদের একটি পরিকল্পনা ছিল, সেটিতে ধাক্কা লাগল কিনা?

নাজমুল হাসান: জানি না। আপনারা ভালো বলতে পারবেন। অনেকে খুশি হবে। মিডিয়া তো প্রচুর খুশি হওয়ার কথা, ও চলে যাচ্ছে। ধাক্কা কিনা জানি না। ক্রিকেটারদেরও অনেকে খুশি হবে, অনেকে বলবে ক্ষতি হয়ে যাচ্ছে। তবে আমি ব্যাক্তিগত ভাবে মনে করি, আমাদের একটা পরিকল্পনা ছিল। সেটি বাধাগ্রস্থ হবে তো বটেই।

মিডিয়ার কথা বললেন, মিডিয়া নিয়ে কোচ কি কিছু বলেছে?

নাজমুল হাসান: না বলেনি। এমনিতে সবসময় বলত, খেলোয়াড়রা যেসব কথা বলে (মিডিয়াতে), সেগুলো কেন বলে? এই প্রশ্ন তো আমাকে সবসময় করত। আমি ওকে নিয়ে কয়েকবার খেলোয়াড়দের সামনেও বসেছি। ও বলত, ‘এরকম কথা ওরা কেন বলে যেটি সম্পূর্ণ মিথ্যা! মিডিয়াতে বলে, এসব বলে কেন? এসব তো মিথ্যা!’

_______

আমাদের অনেকেরই কাছেই এটি ছিল রহস্য। এই যে, সিনিয়র ক্রিকেটাররা এতবার বোর্ড প্রধানের কাছে কোচ নিয়ে নানা অভিযোগ করেছেন, তার পরও বোর্ড প্রধান কিছু বলেন না কেন! আজ উত্তরটা মিলল হয়ত। কোচ বলতেন, ক্রিকেটাররা মিথ্যা বলছে। বোর্ড প্রধান,কোচের কথাকেই সত্যি ধরে নিতেন, ক্রিকেটারদের কথাকে নয়! ধরেই নিতেন, ক্রিকেটাররা মিথ্যা বলছে।

অনিল কুম্বলের মত কিংবদন্তী, ভারতের ইতিহাসের সেরা ম্যাচ উইনার, কোচ হিসেবেও যিনি ভালো করছিলেন, তাকে সরে যেতে হয়েছে অধিনায়কের কারণে, এই উদাহরণ না-ই টানলাম। বোর্ড প্রধান নিজেই বলছেন, কোচ চলে গেলে ক্রিকেটারদের অনেকে খুশি হবেন। তার মানে তিনি ‘অনেক’ ক্রিকেটারদের আপত্তির কথা জেনেও কিছু করেননি।

মিডিয়াকে দায় দেওয়া নিয়ে অভিযোগ করছি না। যুগে যুগে প্রশাসকরা এটাই করে আসছেন। যদিও পাল্টা প্রশ্ন অনেক করা যায়। আমি নিজেও যতবার কোচের সমালোচনা করেছি, প্রায় প্রতিবারই লিখেছি, বরখাস্ত করার চেয়ে ভালো সমাধান তাকে রেখে দিয়ে ক্ষমতা কমানো। সেটা হয়নি। বরং ক্রমে তার ক্ষমতা বেড়েছে। বিসিবির সেই পরম আস্থার কোচ এখন বিসিবি কর্তাদের ফোন ধরেন না,মেইলের জবাব দেন না। বাংলাদেশেই আর আসতে চান না।

মিডিয়াকে দায় দিয়ে মনে প্রশান্তি পেলে ভালো। বালিতে মুখ গুজে থাকাও আত্মরক্ষা।

https://www.mega888cuci.com