এমন আজব জায়গাতেও মানুষ ঘুরতে যায়!

রোবটের মত এই ছক-বাধা জীবনে আমরা একটু সময় পেলেই ঘুরে বেড়াতে চাই দূরে কোথাও যেখানে মিলবে মানসিক শান্তি। তবে, অনেকেই আছেন যারা এই প্রশান্তির পাশাপাশি খুঁজে বেড়ান একটু অ্যাডভেঞ্চারও, তাদের জন্য আজকে কিছু অদ্ভুত এবং রোমাঞ্চকর জায়গার কথা যেখানে গেলে মনে হবে এ কোন জায়গায় এলাম রে বাবা!

তাইওয়ানের হাই-হিল আকৃতির বিয়ের চার্চ

সিন্ডেরেলা এবং তার কাচের জুতার কথা মাথায় রেখে স্থপতিরা এই অদ্ভুত চার্চ বানিয়েছেন। তিনশ টুকরা নীল কাচ নিয়ে বানানো পঞ্চান্ন ফুট উচ্চতার এই চার্চে বিয়ে করা সত্যিই স্মরণীয় ঘটনা হয়ে থাকবে।

জাপানের বেজোলাইস নোভাউ স্পা

আজকাল পশ্চিমা বিশ্ব তো বটেই, বাংলাদেশেও স্পা একটা জনপ্রিয় মাধ্যম হয়ে উঠেছে। তবে জাপানের এই স্পাতে আপনি চাইলে চার মিটার উচ্চতার ওয়াইন পূর্ণ বাথটাবে ডুবে থেকে নিজের ক্লান্তি দূর করতে পারবেন। আর ওয়াইন ছাড়াও এখানে রয়েছে চকলেট বাথ এবং কফি বাথ।

হ্যারি পটারের জাদুর দুনিয়া

একসময় ছেলে-বুড়ো প্রত্যেকেই ছিল হ্যারি পটারের ভক্ত, এখনো তার জনপ্রিয়তা তেমনই রয়ে গিয়েছে। আর এই ভক্তদের জন্যই ফ্লোরিডায় আট একর জায়গাজুড়ে পার্ক বানানো হয়েছে। হ্যরি পটার সিনেমায় কাজ করা কলাকুশলী এবং খোদ জে কে রাউলিং এর তত্ত্বাবধানে এই পার্কটি বানানো হয়েছে। নিখুতভাবে তৈরি করা হোগোয়ারটস ক্যাসল থেকে আরম্ভ করে হগস্মেড ক্যান্টিন এবং তার খাবারগুলো আপনাকে মুগ্ধ করবেই।

ক্যালিফোর্নিয়ার বাবলগাম গলি

১৯৬০ সাল থেকে সান লুইস অবস্পিওতে এই গলিটিতে বাবলগাম দিয়ে চিত্র বানানোর কাজ শুরু হয় এবং এখনো বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পর্যটকরা এসে বাবলগাম সেঁটে দেন দেওয়ালে।

ইংল্যান্ডের পাথুরে কূপ

আপনি যদি এখানে কোনোকিছু ঝুলিয়ে রাখেন তবে কিছু সময়ের মধ্যেই তা পাথরের মত শক্ত হয়ে যাবে। তবে এতে জাদুমন্ত্রের কোনো বিষয় নেই,বরং কূপের পানির অতিমাত্রার মিনারেলই এই বস্তুগুলোকে পাথুরে বানিয়ে দেয়।

ভারতের করনি মাতা মন্দির

অদ্ভুত এই মন্দিরে ইঁদুরদের পবিত্র বলে মানা হয় এবং স্থানীয় ভাষায় তাদের ‘কাব্বা’ বলে ডাকা হয়ে থাকে। প্রায় বিশ হাজার ইঁদুরের অভয়ারণ্য এই মন্দিরে আপনাকে জুতা খুলে ঢুকতে হবে এবং ইঁদুরদের ছোঁয়া লাগা কোন কিছু খাওয়ার সৌভাগ্য হলে আপনাকে বিশেষ ভাগ্যবান বলে মানা হবে।

তুরস্কের চুলের যাদুঘর

১৯৭৯ সালে চেজ গালিপ নামে তুরস্কে একজন মৃৎশিল্পী ছিলেন, তাকে জীবিকার তাগিদে তার প্রেমিকার কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন হতে হলে তিনি স্মৃতিচিহ্ন হিসেবে প্রেমিকার একগোছা চুল নিয়ে নিজের দোকানের দেওয়ালে ঝুলিয়ে রাখেন। আশপাশের প্রতিবেশিনী নারীরা তার এই বিরহ দেখে মুগ্ধ হয়ে যান এবং সবাই নিজেদের এক গোছা চুল দেওয়ালে রেখে যান। পরে এতগুলো চুল নিয়ে গালিপ তার দোকানকে মিউজিয়াম বানানোর সিদ্ধান্ত নেন এবং বর্তমানে এখানে প্রায় ষোলহাজার চুলের গোছা আছে।

নেব্রাস্কার কারহেঞ্জ

আমেরিকার উলটানো অদ্ভুত পাথরগুলোর অনুকরণে এখানে আটত্রিশটি ভিন্টেজ আমেরিকান গাড়িকে উল্টিয়ে রাখা হয়েছে। ধূসর রঙএ রাঙানো বৃত্তাকারভাবে রাখা এই গাড়িগুলোর স্থপতি জিম রেইডেরস ১৯৮৭ সালের অক্ষরেখাকে ভিত্তি করে এই কাজটি তৈরি করেছেন।

জর্জিয়ার উল্টো রেস্টুরেন্ট

জর্জিয়ার এই অদ্ভুত উল্টানো রেস্তোরাঁটি শুধু তার বেখাপ্পা নির্মাণশৈলীর জন্য নয়, তার অসাধারণ স্বাদের খাবারগুলোর জন্যেও বিখ্যাত। একবার ভাবুন, যদি খাবারগুলো উল্টো করে খেতে হত, তাহলে কি বিপদটাই না হত

থাইল্যান্ডের নরকের বাগান

আপনি যদি পৃথিবীতে থাকা অবস্থায় নরকের জীবনযাত্রা দেখতে চান তবে আপনাকে যেতে হবে থাইল্যান্ডের ওয়াং সান সুক পার্কে।বৌদ্ধ ধর্মে বর্ণিত নরকের রূপগুলো এখানে ভয়াবহভাবে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে।

ঊর্মি তনচংগ্যা

The girl who fly with her own wings

https://www.mega888cuci.com