বলিউড ২০১৯: আলোচিত ৫ বাজে ছবি

বছরটা ছিল বলিউড তারকাদের জন্য ব্যস্ততম একটা সময়। প্রত্যাশার চাপও ছিল বিস্তর। তবে, এমন অনেক ছবি আছে যা অনেক আলোচিত হয়েও প্রত্যাশার চাপ মেটাতে পারেনি। তারই মধ্য থেকে সবচেয়ে বাজে পাঁচটি ছবি নির্বাচন করেছে অলিগলি.কম।

  • কলঙ্ক

সম্ভবত বছরের সবচেয়ে আলোচিত ছবি ছিল এটা। একগাদা তারকা ছিলেন। বাড়তি আকর্ষণ ছিলেন নব্বই দশকের হার্টথ্রব জুটি সঞ্জয় দত্ত ও মাধুরী দিক্ষিত। কোনো লাভ হয়নি তাতে। বরুণ ধাওয়ান-আলিয়া ভাট ‍জুটির সাথে আদিত্য রয় ও সোনাক্ষী সিনহা মিলেও ছবিটির বিপর্যয় রুখতে পারেননি। অভিষেক বর্মনের বড় বাজেটের ছবিটি বক্স অফিস থেকেও আশানুরূপ সারা পায়নি।

  • জাবারিয়া জোড়ি

সিদ্ধার্থ মালহোত্রা ও পরিনীতি চোপড়াকে বলা যায় বলিউডের সাম্প্রতিক সময়ের সবচেয়ে বড় আক্ষেপ। অনেক সম্ভাবনা নিয়ে তাদের আবির্ভাব হলেও ক্রমাগত ব্যর্থতা মুখ দেখে চলেছেন তাঁরা। এই জুটির ছবি ‘জাবারিয়া জোড়ি’র কোনো দিকই খুব একটা আহামরী নয়। দেখতে দেখতে আপনি চাইলে ঘুমিয়েও পরতে পারেন। একতা কাপুর-শোভা কাপুরদের বালাজি মোশন পিকচার্সের প্রযোজনা ছিল বলেই যা একটু আশা ছিল। কিন্ত, সেই আশায়ও গুড়েবালি।

  • স্টুডেন্ট অব দ্য ইয়ার ২

টাইগার শ্রফ নিজের অ্যাকশন ঘরানাকে ভাঙতে পারবেন কি না, সেই নিয়ে বিস্তর আলোচনা ছিল। কিন্তু, ছবিটি মুক্তির সাথে সাথেই সকল জল্পনা-কল্পনার অবসান হয়েছে। পারেননি টাইগার। ধর্ম প্রোডাকশনের ব্যানার, প্রযোজক হিসেবে হিসেবে করণ জোহরের উপস্থিতি – সবই অর্থহীন হয়েছে ভাল একটা গল্পের অভাবে। নবাগত নায়িকা তারা সুতারিয়া ও অনন্যা পান্ডের কাছ থেকেও শতভাগ আদায় করতে ব্যর্থ হয়েছেন নির্মাতা পুনিত মালহোত্রা।

  • টোটাল ধামাল

ধামাল ফ্র্যাঞ্চাইজির লিগ্যাসিকে গলা টিপে মেরে ফেলেছে এই ছবি। ইন্দ্র কুমারের নির্মানে অনেক দিন বাদে জুটিবদ্ধ হয়েছিলেন অনিল কাপুর-মাধুরী দিক্ষিত। সাথে অজয় দেবগন, মহেশ মাঞ্জেরেকার ও রিতেশ দেশমুখরা ছিলেন। প্রায় ১৫৫ কোটি রুপি আয় করলেও ছবিটি মন জয় করতে পারেনি।

  • হাউজফুল ৪

ছবিটি বক্স অফিস থেকে ২০৬ কোটি রুপি আয় করেছে। তার ওপর সুপার স্টার অক্ষয় কুমারের উপস্থিতি। এত কিছুর পরও ছবিটাকে বছরের সেরা বাজে ছবির খেতাব দিয়ে দেওয়া যায় শুধু একটা কারণে। আর সেটা হল ভুতুড়ে স্টোরি লাইন। তার ওপর ফরহাদ শামজি পরিচালিত কমেডিধর্মী ছবিতে কমেডির চেয়েও ছিল বেশি ভাড়ামী, ইতিহাসের নামে দেখানো হয়েছে আজগুবি সব ঘটনা।

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।