কেমন আছেন হাতুরুসিংহে!

বিশ্বকাপ চলছে, অথচ বৈশ্বিক কিংবা লঙ্কান গণমাধ্যম – কোথাও তাঁকে ঘিরে কোনো আলোচনা নেই। বাংলাদেশের সাবেক কোচ তিনি, বাংলাদেশেও তাঁর কথা কারো মনে পড়ছে না। কেমন আছেন চান্দিকা হাতুরুসিংহে? কোথায়ই বা আছেন?

চান্দিকা লঙ্কান দলের সাথেই আছেন। প্রধান কোচ তিনি। তবে, শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের (এসএলসি) সাথে গণ্ডগোলের জের ধরে ক্ষমতা অনেকটাই খর্ব করা হয়েছে তাঁর। এখন আর দল নির্বাচনে, একাদশ গঠনে প্রভাব রাখতে পারেন না তিনি। এমনকি বিশ্বকাপের দলটাও নাকি তার খুব একটা পছন্দ হয়নি বলে লঙ্কান সাংবাদিকরা দাবী করেছিলেন। এই হাতুরুসিংহ বাংলাদেশে থাকা অবস্থাতে যে প্রতাপশালী ছিলেন, সেই তুলনায় এখন তিনি স্রেফ একজন ‘ডানা কাটা পরী’। ডানা ছাড়া পরীর যেমন আর কোনো জারিজুরি খাটে না, হাতুরুও ক্ষমতা ছাড়া অক্ষম।

দ্বাদশ বিশ্বকাপে আগামীকাল নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে হাতুরুর দল শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ। এ ম্যাচে বৃষ্টিও বাধা হতে পারে বাংলাদেশের লক্ষ্য পূরণের পথে। তবে, ম্যাচে সবচেয়ে বড় প্রতিপক্ষ নি:সন্দেহে হাতুরুসিংহেই।

তিন বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের কোচ ছিলেন সাবেক এই লঙ্কান ক্রিকেটার। তাই বাংলাদেশের সব খেলোয়াড় সর্ম্পকে ভালো ধারনা আছে তার। মাশরাফি-সাকিবদের শক্তি-দুর্বলতাগুলো ভালোভাবেই জানেন হাথুরুসিংহে। ফলে বাংলাদেশের বিপক্ষে ভালোভাবেই পরিকল্পনা একে নিজ দলকে মাঠে নামাবে হাথুরুসিংহের, এটি স্পষ্ট।

২০১৪ সালের মে মাসে বাংলাদেশ দলের কোচ হিসেবে দায়িত্ব নেন হাতুরুসিংহে। এরপর বাংলাদেশকে সাফল্যের স্বাদ দিতে থাকেন। খেলোয়াড়দের বোঝাপড়াটা জমিয়ে তুলেন তিনি। মাঠের পারফরমেন্সে দলের খেলোয়াড়দের উৎসাহী করেন হাতুরুসিংহে। সেই প্রমান পাওয়া যায় ২০১৫ সালের বিশ্বকাপের বাংলাদেশ দলের কোয়ার্টারফাইনাল খেলা থেকে।

বিশ্বকাপের শেষ আটে বাংলাদেশকে তুলেই ক্ষান্ত হয়ে যাননি হাতুরুসিংহে। একাদশ বিশ্বকাপ শেষে দেশের মাটিতে ভারত-পাকিস্তান-দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বাংলাদেশের ওয়ানডে সিরিজে জয়ে প্রধান ভূমিকাও ছিলো এই কোচের। এছাড়া শ্রীলংকার মাটিতে টেস্ট ম্যাচ জয়, দেশের মাটিতে অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট জয়ও ছিলো হাথুরুসিংহে অধীনে।

টেস্টের চেয়ে ওয়ানেডেতে বেশি উন্নতি করে বাংলাদেশ। তাই র‌্যাংকিংয়ে সেরা আটে থেকে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে টাইগাররা। সেখানেও চমক দেখায় টিম বাংলাদেশ। গ্রুপ পর্বের বাঁধা পেরিয়ে সেমিফাইনালে খেলে মাশরাফি-হাতুরুসিংহের দল। কিন্তু সেমিফাইনাল থেকেই নিজেদের মিশন শেষ করতে হয় বাংলাদেশকে।

১৭ টেস্টে পাঁচ জয়, আট হার ও চারটি ড্র। ৫১ ওয়ানডেতে ২৫ টি জয়, ২৩ টি হার ও তিনটি টাই/পরিত্যক্ত। ২৯ টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ১০টি জয়, ১৯ টি হার ও দুটি টাই/পরিত্যক্তের স্বাদ নেয় বাংলাদেশ। মনে রাখার মত অনেক ‍উপলক্ষ্যই এনে দিয়েছিলেন তিনি। তবে, সর্বময় ক্ষমতা ভোগ করার জন্য সমালোচিতও হয়েছেন বিস্তর।

২০১৭ সালের নয় নভেম্বর বাংলাদেশের কোচের দায়িত্ব ছেড়ে দেন হাথুরুসিংহে। এরপর শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট কোচ হন দেশটির হয়ে ২৬ টেস্ট, ৩৫ টি ওয়ানডে খেলা হাতুরুসিংহে। যদিও, হাতুরুসিংহের অধীনে লঙ্কানদের পারফরম্যান্সের গ্রাফ একেবারেই নিম্নগামী। এর জন্য বোর্ডের লোকজনও তাঁকে এখন দেখতে পারে না। খেলোয়াড়দের মাঝেও তিনি অজনপ্রিয়। বিশ্বকাপেও দলটিকে ঘিরে কোনো আশা নেই কারো মধ্যে!

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।