২০১৯: নতুন জুটিতে সাফল্যের বুনিয়াদি?

বলিউডে এখন দিন বদলের বাতাস। এই বাতাসে নতুন বছরে ভিন্নধর্মী অনেক কিছুই দেখা যেতে পারে। এর মধ্যে আছে নতুন আর তাক লাগানো সব জুটির আবির্ভাবও। জুটি গুলো আদৌ সাফল্য পাবে কি না, তা অবশ্য সময়ই বলে দেবে। যদিও এখন অবধি এই তারকাদের জুটিবদ্ধ হবার খবর গুলো বেশ জল্পনা-কল্পনা ছড়াচ্ছে।

  • রণবীর কাপুর ও আলিয়া ভাট (ব্রহ্মাস্ত্র)

বাস্তব জীবনের আবেদনময় যুগল রণবীর ও আলিয়াকে এবার এক সাথে দেখা যাবে ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ সিনেমায়। ২০১৯ সালের বড় দিনে মুক্তি পাবে সিনেমাটি। যতদূর বোঝা যাচ্ছে সিনেমার গল্পটা হতে যাচ্ছে একটি সুপার হিরো লাভ স্টোরি। সাথে আছেন স্বয়ং অমিতাভ বচ্চনও।

  • সোনম কাপুর ও দুলকার সালমান (দ্য জয়া ফ্যাক্টর)

‘কারওয়ান’ নামের দারুণ একটি ভিন্নধর্মী সিনেমা দিয়ে এরই মধ্যে বলিউডে অভিষেক হয়ে গেছে দক্ষিণ ভারতীয় সুপার স্টার দুলকার সালমানের। এবার তাঁকে দেখা যাবে অভিষেক শর্মার সিনেমা ‘দ্য জয়া ফ্যাক্টর’-এ। বিপরীতে আছেন সোনম কাপুর। এখানে বিজ্ঞাপনী সংস্থায় কাজ করা এক তরুণী ও তারকা ক্রিকেটারের রোম্যান্স দেখা যাবে।

  • রণবীর সিং ও আলিয়া ভাট (গাল্লি বয়)

চলতি বছরের অন্যতম প্রতীক্ষিত সিনেমা এটা। প্রথমবারের মত জুটিবদ্ধ হয়েছেন রণবীর ও আলিয়া। জয়া আক্তারের নির্মানে সিনেমাটি স্ট্রিট র‌্যাপারদের জীবনের ওপর ভিত্তি করে নির্মিত। এর আগে রণবীর-আলিয়া বিজ্ঞাপনে এক সাথে কাজ করে বেশ আলোচিত হন। এবার সিনেমা মুক্তির আগেও তাই স্বাভাবিক ভাবেই আছে বিস্তর আলোচনা।

  • অক্ষয় কুমার ও পরিনীতি চোপড়া (কেসারি)

দেশাত্ববোধক সিনেমা ‘কেসারি’তে অক্ষয় কুমারের স্ত্রীর চরিত্রে কাজ করতে যাচ্ছেন পরিনীতি চোপড়া। দু’জনকে পাঞ্জাবী দম্পতির চরিত্রে দেখা যাবে। বলাই বাহুল্য, এর আগে কখনোই এই দুই তারকা এক সাথে পর্দায় জুটিবদ্ধ হননি।

  • রাজকুমার রাও ও মৌনি রাও (মেড ইন চায়না)

সামান্য এক গুজরাটি ব্যবসায়ীর আকাশ ছোয়ার স্বপ্ন – এমনই এক গল্প নিয়ে নির্মিতব্য সিনেমা ‘মেড ইন চায়না’। ছবিটিতে দেখা যাবে অন্যরকম এক জুটিকে। কেন্দ্রীয় চরিত্রে সময়ের অন্যতম প্রতিভাবান অভিনেতা রাজকুমার রাওয়ের বিপরীতে দেখা যাবে মৌনি রয়কে। ধারণা করা হচ্ছে চলতি বছরের ৩০ আগস্ট সিনেমাহলে মুক্তি পাবে ছবিটি।

আরো পড়ুন

বলিবাইটস অবলম্বনে

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।