শেষ নিখুঁত নায়িকা

|| শুভদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা থেকে ||

– তুমি সোমনাথ বাবুকে বিয়ে করলেনা কেন মা ?

– কেন ?

– সারা জীবন একা একা…

– সোমনাথ আমার বন্ধু মিঠু। সারাজীবন সুখে দুঃখে, বিপদে আপদে আমার পাশে থেকেছে। বিয়ে করে কমপ্লিকেশন বাড়িয়ে লাভ কী ?

‘উনিশে এপ্রিল’ – ১৯৯৪ সালের পর থেকে এই তারিখ এক নতুন অর্থ তৈরী করল বাঙালির জীবনে মননে। বাংলা ছায়াছবির নতুন বাঁক বদলের গল্প শুরু হল। ছবিতে প্রচুর চরিত্র না রেখেও কম চরিত্র দিয়ে, প্রচুর পোশাক বদল না করেও, আউটডোর শ্যুট না করেও গান নাচ না রেখেও শৈল্পিক ও বানিজ্যিক সফল ছবি করা যায় বুঝিয়ে দিল এই নবজাগরণের ছবি। ঋতুপর্ণ যুগ শুরু হল। জাতীয় পুরস্কার মঞ্চে বাংলা ছবির ও নায়িকার জয়জয়কার। জাতীয় পুরস্কার নিয়ে চর্চা শুরু হল বাঙালির। অন্দরমহল থেকে গোল টেবিল বৈঠক।

বানিজ্যিক ছবিতে নাচ গান করা একজন নায়িকা কি করে সেরা অভিনেত্রীর জাতীয় পুরস্কার পেতে পারে সেটাই অনেক দর্শক বিশ্বাস করতে পারেনি! সেটা দেখতেই সবাই ছুটেছিল প্রেক্ষাগৃহে। কিন্তু, আমার তখন মনে হয়েছে দেবশ্রী রায় জাতীয় পুরস্কার কেন পেতে পারেননা! কারণ, দেবশ্রী রায় একজন পরিপূর্ন নায়িকা অভিনেত্রী। বলা যায় টলিউডের শেষ কিংবদন্তি নিঁখুত পরিপূর্ন অভিনেত্রী দেবশ্রী রায়।

বানিজ্যিক ছবি যার ‘কলকাতার রসগোল্লা’, ‘আর কত রাত একা থাকব’, ‘বাজল রে ঘুঙরু’, ‘উঠতি বয়েস মেয়ে আমি যৌবনে তে সবে পড়েছি’, ‘বাজে ঢোল তাক ধিনা ধিন’ নাচে সুপারহিট হয় সেই দেবশ্রী মিঠু হয়ে জাতীয় পুরস্কারে সেরা অভিনেত্রীও হতে পারেন। যার বানিজ্যিক ছবি গুলো মোটা দাগের ছবি নয় বিশাল সুপারহিট। আবার ‘উনিশে এপ্রিল’, ‘দেখা’র মতো মননশীল ছবি মাসের পর মাস হলে চলেছে। এতটাই ভার্সেটাইল নায়িকা দেবশ্রী।

তবে এইখানে একটা কথা উঠেছিল দেবশ্রী রায়-অপর্ণা সেন জুটির ছবি এ ছবি। মা মেয়ের গল্প। অপর্ণাও কোনো অংশে সরোজিনী রূপে কম নন। অনেকেই ভেবেছিল, অপর্ণার সহ-অভিনেতা স্বয়ং দীপঙ্কর দেও ‘রিনারও সরোজ করে জাতীয় পুরস্কার পাওয়া উচিৎ ছিল’।

কিন্তু অপর্ণা সেন অসম্ভব খুশী হয় তাঁর কন্যাসমা দেবশ্রী রায় জাতীয় পুরস্কার পাওয়ায়। আর এ ছবি তো বাংলা ছবির জয়। গোল্ডেন লোটাস পায়। অপর্ণা সেন বলেন, ‘সত্যিই পুরস্কার না পাওয়ার জন্য আমার কোনো আক্ষেপ নেই। চুমকি (দেবশ্রী রায়) পাওয়াতেই আমার মন ভরে গেছে।’

দেবশ্রী রায় বলিউডেও বেশ কিছু সিনেমা করেন। ১৯৮৩ সালে মুক্তি পাওয়া জাস্টিস চৌধুরী ছবিতে তিনি স্ক্রিন শেয়ার করেন প্রয়াত অভিনেত্রী শ্রীদেবীর সাথে।

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।