হট ডগ-স্যান্ডউইচ ও তুলকালাম এক বিতর্ক

হট ডগ কি স্যান্ডউইচ কি না, এটা অনেক বড় একটা বিতর্ক। স্যান্ডইউচের সঙ্গে অনেকখানি মিল থাকলেও অনেকে হট ডগকে শুধু স্যান্ডউইচ বলতে নারাজ। যুক্তরাষ্ট্রের ‘ন্যাশনাল হট ডগ এন্ড সসেজ কাউন্সিল’ বলেছে, হট ডগকে শুধু ‘স্যান্ডউইচ’ বলা আর দালাই লামাকে একজন ‘সাধারণ মানুষ’ বলা একই জিনিস!

১৮’শ শতকে হট ডগ যখন আমেরিকায় আসে, তখন এর নাম ছিল ‘কোনি আইল্যান্ড স্যান্ডউইচ’ বা ‘ফ্রাঙ্কফুর্টার স্যান্ডউইচ’।

যুক্তরাষ্ট্রের কৃষি মন্ত্রণালয়ের সংজ্ঞা অনুসারেও হট ডগ স্যান্ডউইচ ক্যাটাগরিতে পড়ে। তবে এই দুটোর মধ্যে সামান্য পার্থক্য আছে। স্যান্ডইউচে দুই টুকরো ব্রেডের মাঝখানে মাংস থাকে, কিন্তু হট ডগে দুই টুকরো ব্রেড থাকে না। এক টুকরো লম্বা ব্রেডের মাঝখানটা কেটে সেখানে সসেজ দিলে হয় হট ডগ। মানে, স্যান্ডইউচে দুই টুকরো ব্রেড থাকে, কিন্তু হট ডগে একটা ব্রেডই থাকে, তবে সেটা থাকে ফোল্ডেড বা ভাঁজ করা বা আড়াআড়িভাবে কাটা।

যুক্তরাষ্ট্রের কৃষি মন্ত্রণালয়ের সংজ্ঞা অনুসারে, স্যান্ডউইচ (ক্লোজড)- অন্তত ৩৫ শতাংশ মাংস থাকতে হবে এবং ৫০ শতাংশের বেশি ব্রেড থাকা যাবে না। স্যান্ডউইচ হতে হলে সেটাকে ‘ক্লোজড-ফেসড‘ হতে হবে, মানে দুই পাশে দুই স্লাইস ব্রেড দিয়ে মাঝখানের অংশ ঢেকে রাখতে হবে।

স্যান্ডউইচ (ওপেন)- আন্তত ৫০ শতাংশ মাংস থাকতে হবে এবং এটার মুখ হবে খোলা। এই সংজ্ঞা হট ডগের সঙ্গে মিলে যাওয়ার কারণেই অরেক দফা বিতর্ক শুরু হয়েছে। তবে, অনেকে এখনো হট ডগকে স্যান্ডউইচ ক্যাটাগরিতে ফেলতে নারাজ।

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।