তামিম-সাদমান: ৫৭, ৮৮, ৭৫…

৫৭, ৮৮, ৭৫ – এখনও পর্যন্ত চলমান টেস্ট সিরিজের তিন ইনিংসে বাংলাদেশের উদ্বোধনী জুটির রান। তিন জুটিতেই তামিম ইকবাল ও সাদমান ইসলাম।

১৯৩০ সাল থেকে টেস্ট ক্রিকেট হচ্ছে নিউজিল্যান্ডে। এই সুদীর্ঘ ইতিহাসে সফরকারী দল এখানে টানা তিন ইনিংসে উদ্বোধনী জুটিতে পঞ্চাশ ছুঁতে পেরেছে বাংলাদেশের আগে কেবল একবারই!

১৯৯৯ সালে টানা তিন ইনিংসে ৭৬, ১২৭ ও ৭৩ রানের উদ্বোধনী জুটি পেয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। তিনটিতেই ছিল গ্যারি কারস্টেন-হার্শেল গিবস জুটি।

দক্ষিণ আফ্রিকার আরেকটি জুটিও ‘অনারেবল মেনশন’ দাবি করতে পারে এখানে। ১৯৬৪ সালে নিউ জিল্যান্ড সফরে এডি বার্লো ও ট্রেভর গডার্ড জুটি টানা চার ইনিংসে তুলেছিল ১১৭, ১১৭, ৯২ ও ১১৫ রান। চারটিই ওপেনিংয়ে। তবে এই চার ইনিংসের ঠিক মাঝে একটি ইনিংসে বার্লোর সঙ্গে ইনিংস শুরু করেছিলেন কলিন ব্লান্ড। সেই জুটিতে এসেছিল ১৮ রান। তাই বার্লো ও গডার্ড একসঙ্গে জুটি বেধে টানা চার ইনিংসে পঞ্চাশ ছুঁলেও দলের উদ্বোধনী জুটিতে হ্যাটট্রিক ফিফটি হয়নি।

বাংলাদেশের উদ্বোধনী জুটিতে টানা তিন ইনিংসে পঞ্চাশ ছোঁয়া জুটি এসেছে এবারের আগে আর দু’বার। সেই দু’বারও ছিল দেশের বাইরে। এবং অবধারিতভাবে, তামিম তো থাকবেনই!

প্রথমবার ২০১০ সালের ইংল্যান্ড সফরে। তামিম ও ইমরুল কায়েসের জুটিতে লর্ডসে এসেছিল ৮৮ ও ১৮৫ রান। ওল্ড ট্রাফোর্ড টেস্টের প্রথম ইনিংসে ১২৬।

২০১৭ সালে তামিমের সঙ্গী সৌম্য সরকার। গল টেস্টে দুই ইনিংসে বাংলাদেশ পায় ১১৮ ও ৬৭ রানের জুটি। পরের টেস্টে পি সারা ওভালে প্রথম ইনিংসে ৯৫ রান।

– ফেসবুক পেইজ থেকে

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।