সারভাইভিং ৭১: ইতিহাসের আশ্রয়ে নতুন ইতিহাস গড়ার পালা

অনেক অপেক্ষা ত্যাগ, সংগ্রাম আর নয় মাসের রক্তক্ষয়ী এক যুদ্ধের পরে আমরা পেয়েছি একটি স্বাধীন দেশ। পেয়েছি আমাদের বাংলাদেশ। এ যাবত বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে অনেক সিনেমাই নির্মিত হয়েছে। তবে এবার নতুন এক ইতিহাস গড়ার পালা। আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে প্রথমবারের মতো নির্মিত অ্যানিমেটেড মুভি ‘সারভাইভিং ৭১’।

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের গল্প নিয়ে সিনেমাটি তৈরি করছেন ওয়াহিদ ইবনে রেজা। স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ‘সারভাইভিং ৭১-অ্যান আনটোল্ড স্টোরি অব অ্যান আননোন ওয়ার’ নামের চলচ্চিত্রটির ১ মিনিট ৩৯ সেকেন্ডের একটি টিজার প্রকাশ করা হয়েছে। এবং টিজার মুক্তির পরেই প্রশংসা এবং আলোচনা দুটোই চলছে পুরোদমে।

অ্যানিমেটেড এই মুক্তিযুদ্ধের গল্প সবার সামনে তুলে ধরার দায়িত্ব নিয়েছেন  ওয়াহিদ ইবনে রেজা। তিনি হলিউডের সনি পিকচার্সে অ্যাসোসিয়েট প্রোডাকশন ম্যানেজারের দায়িত্বে রয়েছেন। বর্তমান সময়ের অনেক আলোচিত এবং ব্যবসাসফল হলিউড প্রজেক্টে তার কাজ প্রশংসা পেয়েছে।

এইচবিও চ্যানেলের জনপ্রিয় সিরিজ ‘গেম অব থ্রোনস’, হলিউডের ‘ফিউরিয়াস সেভেন’, ‘ফিফটি শেডস অব গ্রে’ ও ‘নাইট অ্যাট দ্য মিউজিয়াম: সিক্রেট অব দ্য টম্ব’ ছবির ভিজ্যুয়াল ইফেক্টস টিমেও তাঁর প্রতিভার সাক্ষর রেখেছেন তিনি। ‘ব্যাটম্যান ভার্সেস সুপারম্যান: ডন অব জাস্টিস’ সিনেমার প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর ছিলেন তিনি। ‘ক্যাপ্টেন আমেরিকা: সিভিল ওয়ার’ ও ‘ডক্টর স্ট্রেইঞ্জ’ এর মতো বিগ বাজেটের সিনেমার ভিজ্যুয়াল টিমেও কাজ করেছেন।

ভিজ্যুয়াল ইফেক্টসে ওয়াহিদের কাজ করা মুভি ‘ডক্টর স্ট্রেইঞ্জ’ ২০১৭ সালে অস্কারে মনোনয়ন পেয়েছিল। ওয়াহিদ ইবনে রেজা ‘দ্য অ্যাংরি বার্ডস টু’ ছবিতে কাজ করছেন। ২০১৬ সালে মুক্তি পায় হলিউডের ব্লকবাস্টার অ্যানিমেটেড ছবি ‘দ্য অ্যাংরি ‌বার্ডস’। এ বছর আসছে এই সিরিজের নতুন সিনেমা। আর তাতে কাজ করছেন বাংলাদেশের ওয়াহিদ ইবনে রেজা। শিশুতোষ এ সিনেমার মডেলিং ও ম্যাটপেইন্টিং বিভাগের দায়িত্বে আছেন তিনি।

সারভাইভিং ৭১’ সিনেমাটি প্রসঙ্গে দক্ষ এবং মেধাবী নির্মাতা রেজা বলেন, ‘সিনেমাটি বাস্তব কাহিনি অবলম্বনে তৈরি হচ্ছে। যেহেতু আমার বাবার জীবনের গল্প থেকে এটি লেখা হয়েছে, তাই ব্যক্তিগতভাবে এই সিনেমা আমার জন্য দারুণ গুরুত্ব বহন করে। এবং আমার কাছে এটি অমূল্য। সিনেমার গল্প গড়ে উঠেছে ধ্রুব ও আক্কু নামে দুই বন্ধুর গল্পের মধ্যে দিয়ে , যারা একসঙ্গে মুক্তিযুদ্ধের সময় অনেক রোমহর্ষক ঘটনার পর প্রাণে বেঁচে যায় এবং যুদ্ধে যোগ দেয়। এই সিনেমায় তৎকালীন সময়, যুদ্ধের ভয়াবহতা, সাধারন শান্তিকামী মানুষের জীবন, মুক্তিযোদ্ধাদের কষ্ট, ত্যাগ এবং মনোবল ইত্যাদি নানা বিষয় দেখা যাবে।

নির্মাতা ওয়াহিদ ইবনে রেজা

জানিয়ে রাখা ভাল, সিনেমাটির মূল চরিত্রে থাকছেন জয়া আহসান, মেহের আফরোজ শাওন, তানযীর তুহিন, গাউসুল আলম শাওন, সামির আহসান। এছাড়াও অতিথি ভয়েস আর্টিস্ট হিসেবে রয়েছেন মোস্তফা সরয়ার ফারুকী, আরিফ আর হোসেন, সাদাত হোসাইন ও কাজী পিয়াল। খুব শ্রীঘই মুক্তি দেয়া হবে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে নির্মিত বাংলাদেশের প্রথম অ্যানিমেটেড সিনেমাটি।

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।