বাজেট নয়, কনটেন্টই ‘কিং অব বক্স অফিস’

খুব বেশিদিন আগের কথা নয়, যখন বলিউডের ১০০ কোটি ক্লাবে যাওয়ার জন্য বড় বাজেটের সিনেমা হতেই হত। তবে, সেই অচলায়তনটা ভেঙেছে। সাম্প্রতিক সময়ে সামান্য বাজেটের কিন্তু অসাধারণ স্টোরিলাইনের সিনেমাগুলো বক্স অফিসে ভাল ব্যবসা করছে। ফলে বলাই যায় এই সময়ে কনটেন্টই বক্স অফিসের সত্যিকারের রাজা।

  • স্ত্রী

এই ব্ল্যাক কমেডি ছবিটি মুক্তির মাত্র ১৮ দিনেই পৌঁছে গেছে শতকোটির ক্লাবে। অথচ, বাজেট ছিল মাত্র ২০ কোটি। সত্য ঘটনা অবলম্বনে নির্মিত এই সিনেমার সবচেয়ে বড় ‍গুণ হল এর গল্প আর কলাকুশলীদের দারুণ অভিনয়।

  • বাধাই হো

২০১৮ সালে সবচেয়ে বড় বিস্ময় হল ‘বাধাই হো’। কমেডি-ড্রামা ঘরাণার এই সিনেমাটি মাত্র ৩০ কোটি বাজেট নিয়েও প্রায় ১৩৩ কোটি রুপির ব্যবসা করেছে। আয়ুষ্মান খুড়ানা, গজরাজ রাও, সুরেখা সিক্রি, নিনা গুপ্তদের বুদ্ধিদীপ্ত ডায়লোগ সেন্স সিনেমাটিকে এক অনন্য অভিজ্ঞতায় পরিণত করেছে।

  • রাজি

সিনেমাটি নির্মানে ব্যয় হয়েছে মাত্র ৪০ কোটি রপি। এরপরও মুক্তির আগে থেকেই সিনেমাটিকে ঘিরে আগ্রহের কোনো কমতি নেই। আর সেই আগ্রহই মুক্তি পাওয়ার পর বাস্তবতায় পরিণত হল। ১৫৮.৭৭ কোটি রুপির ব্যবসা করে এই সিনেমা। নারী কেন্দ্রীক সিনেমায় খুব অল্প সংখ্যক সিনেমাই আগে এত আয় করতে পেরেছে। নি:সন্দেহে এই ছবিটি আলিয়া ভাটের ক্যারিয়ারে নতুন আরেকটি মাইলফলক।

  • আন্ধাধুন

আরেকটি ব্ল্যাক কমেডি থ্রিলার। টাবু আর আয়ুষ্মান খুড়ানা – সম্পূর্ণ ভিন্ন ভিন্ন দু’টি চরিত্রে কাজ করেছেন। সিনেমাটির নির্মান ব্যয় ২৫ কোটি রুপি। এরই মধ্যে বক্স অফিস থেকে ৭২.৩৭ কোটি রুপি উঠে এসেছে।

  • তুমহারি সুলু

ভারতীয় সমাজের সাধারণ এক গৃহিনীর গল্প, যিনি আকাশ ছোঁয়ার স্বপ্ন দেখেন। কেন্দ্রীয় চরিত্রে ছিলেন বিদ্যা বালান। ২০ কোটি রুপি ব্যয়ে নির্মিত সিনেমাটি ৩০ কোটি রুপি আয় করে।

  • সিক্রেট সুপারস্টার

মোটেও বানিজ্যিক কোনো সিনেমা নয়। বাজেটও ছিল খুবই সামান্য। মাত্র ১৫ কোটি রুপি। অথচ, সিক্রেট সুপারস্টার ভারতীয় বক্স অফিস থেকৈ ৮১.২৮ কোটি রুপি আয় করতে সমর্থ হয। খুব আবেগী আর শক্তিশালী এই স্টোরিলাইনটি দেশে বাইরে আরো বেশি জনপ্রিয়তা পায়। আয় করে আরো ১২১.৫৯ কোটি রুপি।

  • মুলক

সিনেমাটি মুক্তির সময়ে কঠিন পরীক্ষার মুখোমুখি হয়েছিল। কারণ, একই দিনে মুক্তি পায় ‘ফ্যানি খান’ ও ‘কারওয়ান’। যদিও, স্পর্শকাতর বিষয়ের ওপর নির্মিত সিনেমাটি এর মধ্যেও বড় ব্যবসাসাফল্য পায়। আয় করে ২৭.০৫ কোটি রুপি।  অথচ, বাজেট ছিল মাত্র ১৮ কোটি রুপি। আ সিনেমাটির জন্য প্রচার-প্রচারণাও ছিল সামান্য!

  • হিন্দি মিডিয়াম

বানিজ্যিক সিনেমার বাজারে এক মুঠো বিশুদ্ধ বাতাস হয়ে এসেছি ইরফান খান ও সাবা কামার অভিনীত কমেডি-ড্রামা ‘হিন্দি মিডিয়াম’। ২৩ কোটি রুপি বাজেটের এই সিনেমাটি বক্স অফিস থেকে ৭০ কোটি রুপি আয় করে।

  • শুভ মাঙ্গাল সাবধান

‘দাম লাগা কে হেইশা’র পর থেকেই ভুমি পেদনেকারের সাথে আয়ুষ্মানের কেমিস্ট্রি বেশ জমে গিয়েছিল। পর্দায় এই দু’জনের ম্যাজিক আবারো এক সাথে দেখা যায় ‘শুভ মাঙ্গাল সাবধান’ সিনেমায়। ২৫ টি রুপি বাজেটের এই সিনেমাটি বিখ্যাত এর অসাধারণ সব ডায়লোগের জন্য। বক্স অফিস থেকে ছবিটি প্রায় ৬০ কোটি রুপি আয় করে।

  • নিউটন

মাত্র ১৫ কোটি রুপি বাজেটের সিনেমাটি ছিল ২০১৭ সালের অন্যতম বিস্ময়কর হিট সিনেমাগুলোর একটি। সিনেমাটি বলিউডকে অস্কারেও নিয়ে যায়। সিনেমাটিতে কেবল অসাধারণ একটা গল্পই ছিল না, রাজকুমার রাও ‍ও পঙ্কজ ত্রিপাঠিদের অসাধারণ অভিনয়ও ছিল। বক্স অফিস থেকে ছবিটি ২২.৮০ কোটি রুপি আয় করে।

  • লিপস্টিক আন্ডার মাই বুরখা

নারী কেন্দ্রীক ভিন্নধর্মী একটা সিনেমা। বলা যায়, এটা পরিণত ভাবনার সিনেমা, পরিণত দর্শকদের জন্য। নারীর প্রতি সমাজের দৃষ্টিকোণটা পরিস্কার হয়েছে এই সিনেমায়। ছয় কোটি রুপি বাজেটের এই সিনেমা বক্স অফিস থেকে ১৯ কোটি রুপি আয় করে।

  • বেরিলি কি বারফি

পরিপূর্ণ একটি রোম্যান্টিক কমেডি, একই সাথে ভিন্নধর্মীও বটে। এটা তুখোড়, আনন্দদায়ক ও সতেজ। মাত্র ২০ কোটি বাজেটে নির্মিত এই সিনেমাটি বক্স অফিস থেকে আয় করেছে ৫০ কোটি রুপি। আয়ুষ্মান খুড়ানা, রাজ কুমার রাওয়ের সাথে কৃতি শ্যানন – সবাই নিজেদের চরিত্রে সেরা কাজটাই করেছেন।

– স্কুপহুপ অবলম্বনে

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।