তুরুপের তাস হবেন স্পিনাররা?

বলাবলি হচ্ছে, ইংল্যান্ডের কন্ডিশন এখন অনেকটাই পাল্টে গেছে। বিস্তর রান হচ্ছে আগের মত পেস বোলিং নির্ভর একাদশই তাই শেষ কথা নয়। মাঝের ওভার গুলোতে উইকেট ফেলত তাই চাই কার্যকর সব স্পিনার। দলগুলোও তাই নিজেদের স্পিন অস্ত্রগুলোকে গুছিয়ে ফেলেছে। কে জানে, এবার হয়তো স্পিনারদেরই জয়জয়কার দেখবে বিশ্বকাপ। তেমনই পাঁচ স্পিনার নিয়ে আমাদের এবারের আয়োজন।

  • সাকিব আল হাসান (বাংলাদেশ)

ইংল্যান্ডে বাংলাদেশ দলের স্পিন আক্রমণের নেতৃত্ব দেবেন ৩২ বছর বয়সী সাকিব। অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা নিশ্চয়ই চাইবেন তার দলের সবেচেয়ে অভিজ্ঞ এ বোলার মিডল অর্ডারে গুরুত্বপূর্ণ কিছু উইকেট শিকার করুক। যাতে প্রতিপক্ষের ব্যাটসম্যানদের ওপর চাপ সৃষ্টি করা যায়।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাংলাদেশ এখন শক্তিশালী দল। তিন ফরম্যাটেই দলের সাফল্যে মহাগুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে আসেছেন ১৯৮ ওয়ানডেতে ২৪৯ উইকেট শিকার করা অভিজ্ঞ সাকিব। সাম্প্রতিক সময়ে ছোট খাটো কিছু ইনজুরিতে পড়াটা তার জন্য কিছুটা দুশ্চিন্তার বিষয়। তবে তারপরও বিশ্বকাপে দলের সাফল্যে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবেন তিনি।

  • কুলদীপ যাদব (ভারত)

তৃতীয়বার বিশ্বকাপ শিরোপা জিততে ভারতয়ি দলের গুরুত্বপূর্ণ অস্ত্র হবে এ চায়নাম্যান বোলার। সর্বশেষ ইংল্যান্ড সফরে ২-১ ব্যবধানে ভারতীয় দলের ওয়ানডে সিরিজ জয়ে তিন ম্যাচে ৯ উইকেট শিকার করে তাৎপর্যপূর্ণ অবদান রেখেছেন যাদব।

ক্যারিয়ারে এ পর্যন্ত ৪৪ ওয়ানডেতে ৮৫ উইকেট শিকার করা যাদব যদিও বর্তমানে ভাল ফর্মে নেই। সদ্য সমাপ্ত ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) কোলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে নয় ম্যাচে মাত্র চার উইকেট শিকার করেছেন তিনি। বাজে পারফরমেন্সের কারণে টুর্নামেন্টের দ্বিতীয়ার্ধে দল থেকে বাদ পড়তে হয়েছে তাকে।

তারপরও তিনি বিশ্বকাপে বিরাট কোহলির জন্য বড় শক্তি। অধিনায়ক নিশ্চয়ই চাইবেন ২৪ বছর বয়সী যাদব গত বছরের পারফরমেন্সের পুনরাবৃত্তি ঘটাক।

  • রশিদ খান (আফগানিস্তান)

বিশ্ব ক্রিকেটে গত কয়েক বছরে যে কয়েকজন স্পিনার অতি দ্রুত উন্নতি করেছেন তাদের মধ্যে অন্যতম আফগানিস্তানের রশিদ খান। আইসিসির ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ে তৃতীয় স্থানে আছেন তিনি। গত দুই বছরে অবিশ্বাস্য ফর্মে থাকা এ তারকা বিশ্ব ক্রিকেটে আফগানিস্তান ক্রিকেটের উন্নতিতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করছেন।

ব্যাটসম্যানদের চেপে ধরা এবং একই সঙ্গে উইকেট শিকারের সক্ষমতার কারণে আসন্ন বিশ্বকাপে নিঃসন্দেহে ব্যাটসম্যানদের মাথা ব্যথার কারণ হবেন এই লেগ স্পিনার। ২০ বছর বয়সী রশিদ সদ্য সমাপ্ত আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দারাবাদের হয়ে ১৫ ম্যাচে ১৭ উইকেট শিকার করেছেন।

  • নাথান লিঁও (অস্ট্রেলিয়া)

টেস্ট ক্রিকেটে অস্ট্রেলিয়া দলের প্রধান স্পিনার নাথান লিঁও। লংগার ভার্সনে অস্ট্রেলিয়াকে অনেক ম্যাচে একাই জয় এনে দিয়েছেন তিনি।

যদিও তিনি খুব বেশি সীমিত ওভারের ক্রিকেট খেলেননি। যদিও টেস্টের অভিজ্ঞতার কারণে শিরোপা অক্ষুন্ন রাখতে অ্যারন ফিঞ্চের জন্য গুরুত্বপুর্ণ হয়ে উঠতে পারেন ২৫ ওয়ানডে খেলা লিঁও।

নিজের প্রথম বিশ্বকাপে কেলতে নামলেও অস্ট্রেরিয়ান বোলিং আক্রমণের একটি ধারালো অস্ত্র হতে পারেন এ অফ স্পিনার। এমনকি স্লো ও লো ট্র্যাকেও বাউন্স এবং টার্ন করার সক্ষমতা বিবেচনায় নিলে প্রতিপক্ষের জন্য বড় বিপদ হতে পারেন তিনি। দলের গোপন অস্ত্র হতে পারেন তিনি।

  • ইমরান তাহির (দক্ষিণ আফ্রিকা)

নিজের শেষ বিশ্বকাপ খেলতে নামা ইমরান তাহির ভাল পারফরমেন্সে দেখাতে এবং ৫০ ওভার ফর্মেটে দক্ষিণ আফ্রিকাকে প্রথম শিরোপা এনে দিতে মহাগুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে মরিয়া থাকবেন।

যে কোন মুহুর্তে উইকেট শিকারে অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিসের সেরা অস্ত্রের নাম লেগ স্পিনার তাহির। দক্ষিণ আফ্র্রিকার হয়ে এ পর্যন্ত ৯৮ ওয়ানডেতে ১৬২ উইকেট শিকার করেছেন ৪০ বছর বয়সী তাহির। এক দিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তার সেরা বোলিং ফিগার ৭/৪৫।

সদ্য সমাপ্ত আইপিএলে দারুণ ছন্দে ছিলেন বেগুনী ক্যাপ পাওয়া তাহির। তিনি চেন্নাই সুপার কিংসের হয়ে ১৭ ম্যাচে ২৬ উইকেট শিকার করেছেন। নিজের উইকেট শিকারের সক্ষমতা দিয়ে সকলকে মুগ্ধ করেছেন।

দ্য কুইন্ট অবলম্বনে

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।