সিঙঘাম থেকে সুরিয়াভানশি: কপ ইউনিভার্সে স্বাগতম

রোহিত শেঠি বলিউডে সময়ের অন্যতম জনপ্রিয় নির্মাতাদের একজন। তাঁর সিনেমা মানেই ধুন্ধুমার অ্যাকশন আর ভরপুর কমেডির নিশ্চয়তা। গাড়ি আকাশে উড়ছে, নায়কের মার খেয়ে ভিলেনরা ছিটকে পড়ছেন, হাজারো রঙের মেলায় নাচ-গান চলছে – রোহিত শেঠির সিনেমায় একটা নিয়মিত ‍দৃশ্য।

পরিচালক হিসেবে ২০০৩ সালের ‘জামিন’ ছবিটি দিয়ে যাত্রা শুরু হয় রোহিতের। ২০০৬ সালে তিনি খ্যাতি পান ‘গোলমাল: ফান আনলিমিটেড’-এর সৌজন্যে। তখন থেকেই অজয় দেবগনের সাথে তাঁর জোট বেঁধে কাজ করার সূচনা।

বাজিরাও সিঙঘাম

এরই ধারাবাহিকতায় বলিউড ইতিহাসের অন্যতম সেরা পুলিশ অফিসার – বাজিরাও সিঙঘাম। ২০১১ সালের ‘সিঙঘাম’ ও ২০১৪ সালের ‘সিঙঘাম রিটার্নস’ – দুটোই বক্স অফিসে বিশাল সাফল্য পায়। অজয়-রোহিত জুটিও বেশ জমে যায়।

এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৮-এর শেষে আরেকটি পুলিশের গল্প নিয়ে হাজির হন রোহিত। সিনেমার নাম ‘সিম্বা’, কেন্দ্রীয় চরিত্রে ছিলেন সময়ের সেরাদের একজন রণবীর সিং।

সংগ্রাম ভালেরাও সিম্বা

সিঙঘাম ও সিম্বা – দু’জন বিপরীত চরিত্রের পুলিশ অফিসার। সিঙঘাম হলেন সততা ও সাহসের প্রতীক। অন্যদিকে সংগ্রাম ভালেরাও সিম্বা হলেন অ্যান্টি-হিরো। তিনি অসৎ, ঘৃণ্য ও নৈতিকতাহীন। ঘুষ নিতে পারাটাই তাঁর পুলিশ হওয়ার সার্থকতা।  তেলেগু সিনেমা ‘টেম্পার’-এর ছায়া অবলম্বনে নির্মিত হয়েছে এই সিনেমা। মূল ছবিটিতে ছিলেন জুনিয়র এনটিআর।

সমালোচকদের কেউ কেউ বলেছেন, ক্ষেত্র বিশেষে রণবীর সিম্বা-তে অতি-অভিনয় করেছেন। যদিও, রণবীরের ফাইভ স্টার ইমেজ, নবাগত সারা আলী খানের গ্ল্যামার ও রোহিতের নির্মান ছবিটিকে বছরের অন্যতম সেরা ব্যবসাসাফল্য এনে দিয়েছে। যদিও, এর পেছনে সিঙঘামের অবদানও কম নয়। ছবিটিতে সিঙঘামের চরিত্রে ছোট্ট একটা ক্যামিও করেছেন অজয় দেবগন।

এখানেই শেষ নয়, রোহিত শেঠির কপ সাম্রাজ্যে আসতে যাচ্ছেন আরেক পুলিশ কর্মকর্তা। তিনি হলেন বীর সুরিয়াভানশি। চরিত্রটি করছেন স্বয়ং অক্ষয় কুমার। ছবির নাম ‘সুরিয়াভানশি’। দর্শকদের বিনোদন দেওয়াই যাদের ধ্যান-জ্ঞান সেই অক্ষয় ও রোহিত প্রথমবারের মত জুটি বাঁধছেন।

অক্ষয়ের চরিত্রটা কেমন হবে সে ব্যাপারে আগাম ধারণা পাওয়া না গেলেও এটুকু বলা যায় রণবীরের মত অ্যান্টি-হিরোর চরিত্র তিনি করছেন না। অক্ষয়ের বিপরীতে থাকবেন ক্যাটরিনা কাইফ। ক্যামিও চরিত্রে সিঙঘাম ও সিম্বা মানে অজয় ও রণবীরের থাকার সম্ভাবনা আছে। ছবিটি মুক্তি পাবে ২০২০ সালের ঈদে। প্রযোজনা করছে করণ জোহরের প্রতিষ্ঠান ধর্ম প্রোডাকশন।

রোহিত শেঠি পুলিশদের নিয়ে তাঁর নিজস্ব বানিজ্যিক ঘরাণার ছবির একটা আপন দুনিয়া নির্মান করেছেন। সেই দুনিয়াতে অজয়, অক্ষয় কিংবা রণবীরের মত সুপার স্টাররা আছেন। এই ধারাকে কারো ভাল লাগতে পারে, কারো মন্দ লাগতে পারে। কিন্তু, কেউই এই জনরাকে এড়িয়ে যেতে পারবেন না।

সিম্বা শেষ অবধি বিশ্বব্যাপী প্রায় ৪০০ কোটি আয় করেছে। এবার ‘সুরিয়াভানশি’ কত আয় করবে সেটা জানার জন্য সময়ের অপেক্ষা করা ছাড়া কোনো বিকল্প নেই!

এন্টারটেলস অবলম্বনে

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।