নায়ক শাকিল খান: একটি অজানা অধ্যায়

বাংলা সিনেমার নব্বই দশক। কিংবদন্তি সালমান শাহ’র হঠাৎ করেই মৃত্যু হল। চলচ্চিত্র তখন অন্ধকার। তখন হঠাৎ করে আলোচনায় আসলেন শাকিল খান। আলোচনায় আসার মত যথেষ্ট সুদর্শন ছিলেন তিনি।

শুরুটা ছিল দারুণ। প্রথম দুই সিনেমা ‘আমার ঘর আমার বেহেশত’ ও ‘এই মন তোমাকে দিলাম’ সুপারহিট। একের পর এক ছবির অফার এসেছিল, তিনিও গ্রহন করেছিলেন। যদিও, তার অভিনয় খুব একটা প্রশংসিত হয়নি। বলিউডের ‘হর হর মহাদেব’ নামের একটা সিনেমাতেও কাজ করেন তিনি। যদিও, সেটা ছিল চূড়ান্ত ফ্লপ।

বিতর্কও হয়েছিল তাকে নিয়ে। নায়িকা পপির সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সেটা নিয়ে ঝামেলা, হাজত বাসও করতে হয়েছিল। সাথে সিনেমার রাজনীতির কারণে অকালেই তার সিনেমার ক্যারিয়ার থেমে যায়।

তবে তিনি ফিরেছিলেন। সাবেক স্ত্রী ও চিত্রনায়িকা জনার সাথে ‘হৃদয় বাঁশী’ ছবিতে অভিনয় শুরু করেছিলেন। তবে পথ আর মসৃন হয় নি, মাঝে মাঝে অন্য মানুষ, দুই নয়নের আলো, সাথী তুমি কার ছবির মধ্য দিয়ে দর্শকদের সামনে এসেছিলেন।

শেষ পর্যন্ত ইলিয়াস কাঞ্চনের পরিচালিত ‘বাবা আমার বাবা’ ছবিতে খল চরিত্রেও অভিনয় করেন। ক্যারিয়ার অল্প হলেও,বেশ কয়েকটি জনপ্রিয় গানে অভিনয় করেছেন,হিন্দি ছবিতেও অভিনয় করেছিলেন। প্রায় এক দশক ধরেই, তিনি চলচ্চিত্রে নেই।

এখন কেমন আছেন তিনি? খোঁজ নিয়ে জানা গেল, এখন তিনি পুরোদস্তর ব্যবসায়ী। আগে থেকেই গারমেন্টস ব্যবসা’র সাথে জড়িত তিনি। এখন ‘রোজ হারবাল’ নামের একটি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তিনি। তার অফিস ঢাকার বাংলামটরে।

চট্টগ্রামে পাবলিক হাসপাতাল নামে তার একটা ক্লিনিক আছে। সেখানে বিনা পয়সায় দুস্থ মানুষের সেবা দেওয়া হচ্ছে। গাজীপুরে জমি কিনেছেন, একটা বয়স্ক পুনর্বাসন কেন্দ্র ও এতিমখানা প্রতিষ্ঠা করার ইচ্ছা আছে সেখানে।

বর্তমানে স্ত্রী, দুই সন্তান ও ব্যবসা নিয়ে চলছে তার জীবন। তবে, এখনো ফিরতে চান ঢালিউডে। ভাল সুযোগ আসলে অবশ্যই কাজ করবেন।

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।