সাকিব কেন এমন নির্বিকার!

সাকিব আল হাসান অনেক আপন একজন মানুষ! সামনাসামনি তাঁর সাথে পরিচয় হবার সৌভাগ্য হয়নি কখনোই। তবু তিনি এবং তাঁরা ক্রিকেটের সুত্রেই অনেক বেশি আপন। বাংলাদেশের কেউ হয়ে এক নাম্বার হবার কারণে, নিজেদের এক নাম্বার ভাবাতে পারার কারণে হয়তো তিনি আরও একটু বেশিই আপন! তাঁকে অতীতে নানাভাবে ডিফেন্ড করেছি।

দক্ষিণ আফ্রিকায় যখন টেস্ট খেলতে গেলেন না, তখন মন না মানতে চাইলেও মনকে বুঝিয়েছি, ‘থাক, সাকিব তো নিজেরটা বেশি ভালো বুঝেন। হয়তো ভবিষ্যতে বেশি টেস্ট খেলতে চান।’ আমেরিকায় এসে যখন এক ভক্তের বিরক্তিতে খারাপ ব্যবহার করলেন সেই সময়ের পরিস্থিতি ব্যাখ্যা করে তাঁকে ডিফেন্ড করেছি। ২০১৪ তে যখন নিষিদ্ধ হলো, তখন তাঁর প্রতিবাদ করেছি। এমনকি খুব বিশ্বস্ত সুত্রে তার একটা আপত্তিকর মন্তব্য জানার পরেও চেপে গিয়েছি, ভেবেছি এটা মানবিক আবেগের কথা। বলতেই পারে!

কিন্তু এবার তো তিনি দেশে আছেন, মাঠেও ছিলেন। তবু বিশ্বকাপের ফটোসেশনে না আসার কোন ব্যাখ্যাই পাচ্ছি না। দেশে না থাকলেও তাঁর দেশে এসে এই ফটোসেশনে আসার কথা! হয়তো বা এটা একটা ফটোসেশনই মাত্র! তবু এটা বিশ্বকাপেরই ফটোসেশন। ক্রিকেটের সর্বোচ্চ আসরের সর্বোচ্চ প্রফেশনালিজম প্র্যাকটিসের জায়গা!

ভালবাসা বা আবেগের ব্যাপারগুলো হয়তো সাকিব আল হাসান খুব একটা কেয়ার করেন না। তবু আমরা সাধারণ মানুষেরা কেয়ার করি বলেই হয়তো ব্যাপারগুলোতে দুঃখ পাই বেশি!

এমন অপেশাদার আচরণ দেশের অন্যক্ষেত্রে অন্য কেউ দেখালে আমরা যেভাবে তাদের সমালোচনা করি, টিভি চ্যানেলে যেভাবে সরাসরি তাদের সাথে যোগাযোগ করে জবাবদিহিতা চাওয়া হয়, সেই একই ব্যাপার সাকিবের ক্ষেত্রেও করা যায় কিনা, সেটা চিন্তা করতে গেলেও মন বাধা দেয়! কী অদ্ভুত বায়াসড আবেগ!

আমাদের অন্য খেলোয়াড়দের মধ্যে যে এইসব ঘটনাগুলোর পরেও একতা বজায় থাকে, বা সাকিবের প্রতি খুব একটা ক্ষোভবা বিরক্তি আসে না- সেটা সাধুবাদের বিষয়। তবু তারা মানুষ। মুশফিক বা তামিমের মনে ‘সাকিব সুবিধা পেলে আমি পাবো না কেন?’- এই ধরনের কথা মাথায় আসলে খুব একটা দোষ দেয়া যাবে না। এজন্যেই বিসিবির উচিত সাকিবের বিরূদ্ধে নিদেনপক্ষে একটা কারণ দর্শানো নোটিশ দেয়ার!

তবু আশা করি, যেই নাম্বার ওয়ান সাকিব আল হাসান আমাদের আবেগ হয়েছেন, তিনি সেই পারফরম্যান্স করেই আমাদের মুখে হাসি আনবেন। আমাদের উল্লাসের কারণ হবেন।

আগের ফটোসেশনে হয় নাই। আশা করি, ১৪ জুলাই রাতে লর্ডসের ব্যালকনির ফটোসেশনে সবাই থাকবে। এই আশাতেই তো বাংলাদেশের ক্রিকেট দেখি!

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।