এই ‘হিট’ প্রস্তাবগুলো ফিরিয়ে দিয়েছিলেন শহীদ কাপুর

শহীদ কাপুরকে বলা হয় বলিউডের ‘লম্বা দৌড়ের ঘোড়া’। ১৫ বছরেরও বেশি সময় ধরে তিনি ইন্ডাস্ট্রিতে আছেন, একটু একটু করে তিনি নিজের আলাদা একটা জায়গা গড়ে তুলেছেন। বক্স অফিসে তিনি বরাবরই আন্ডারডগ।

আবার বলা যায়, অনেক সময়ই শহীদের ভাগ্যও সহায় যায়নি। কিছু ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। পরবর্তী সময়ে আকাশচুম্বি হিট হওয়া বেশ কিছু ছবি প্রস্তাব এসেছিল শহীদের কাছে। কিন্তু, সেসব প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন শহীদ। কে জানে, ছবিগুলো করলে হয়তো ক্যারিয়ারের গ্রাফটা তাঁর অন্যরকম হত।

  • রঙ দে বাসন্তী (২০০৬)

আমির খানের খ্যাতনামা এই ছবিতে সিদ্ধার্থের চরিত্রটির জন্য প্রথম প্রস্তাব করা হয়েছিল শহীদকে। তখন অন্য একটা ছবির ব্যস্ততা থাকায় প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন তিনি। পরে অবশ্য ছবিটি করতে না পারার জন্য আফসোসও করেছেন।

  • রকস্টার (২০১১)

শহীদ এর আগে ইমতিয়াজ আলীর সাথে ‘জাব উই মেট’ ছবি করেন। ইমতিয়াজ ‘রকস্টার’-এর জন্য প্রস্তাব করেছিলেন শহীদকে। শহীদ ছবিটির ব্যাপারে খুব বেশি আগ্রহ দেখাননি। ছবিটির কাজ তখন ঝুলে যায়। ইমতিয়াজ আলী ‘লাভ আজ কাল’ নির্মানে ব্যস্ত হয়ে যান। এই সময় রণবীরের সাথে ‘রকস্টার’-এর স্ক্রিপ্ট নিয়ে আলাপ করেন ইমতিয়াজ। এই দফায় ব্যাটে-বলে হয়। ছবিটি রণবীরের ‘সিগনেচার’ কাজগুলোর একটি।

  • রানঝানা (২০১৩)

দক্ষিণের সুপার স্টার ধানুশের বলিউডে অভিষেক  হয় আনন্দ এল রায়ের ‘রানঝানা’ দিয়ে। ছবিটির জন্য ধানুশ পুরস্কৃতও হন। তবে, খুব কম লোকই জানেন যে, ধানুশের চরিত্রটির জন্য প্রথম প্রস্তাব পান শহীদ কাপুর। তার সাথে ভাবা হয়েছিল সোনাক্ষী সিনহাকে। দু’জনই ছবিটি ফিরিয়ে দিলে সেটা লুফে নেন ধানুশ আর সোনম কাপুর।

  • ব্যাঙ ব্যাঙ (২০১৪)

সিদ্ধার্থ আনন্দের ‘ব্যাঙ ব্যাঙ’-এ প্রথম পছন্দ ছিলেন শহীদ কাপুর। তিনি ফিরিয়ে দেওয়ার পর ছবিটা করেন হৃত্তিক রোশন। ‘ব্যাঙ ব্যাঙ’-এর সাথে একই দিনে মুক্তি পায় ‘হায়দার’। ‘ব্যাঙ ব্যাঙ’ ব্যবসা সাফল্য পায়, হায়দার সমালোচকদের প্রশংসা কুড়ানোর পাশাপাশি শহীদ কাপুরকে একগাদা পুরস্কারও এনে দেয়।

  • শুধ দেশি রোম্যান্স (২০১৩)

মানিশ শর্মার রোম্যান্টিক-কমেডি ছবিটি বক্স অফিসে সাফল্য পায়। তবে, শুরুতে সুশান্ত সিং রাজপুত নয়, প্রস্তাব পেয়েছিলেন শহীদ কাপুর। শিডিউল বিভ্রাটে ছবিটি করতে পারেননি শহীদ। পরে বাজিমাৎ করেন সুশান্ত। ইন্ডাস্ট্রিতে তাঁর ঠাই পেতে বড় ভূমিকা রাখে এই ছবি।

 

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।