আম্পায়ার রুচিরা পালিয়াগুরুগের ‘বাংলাদেশ কানেকশন’

২০১২ সালের এশিয়া কাপ। মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম। ভারতের বিপক্ষে শ্বাসরুদ্ধকর জয়; সবার নিশ্চয়ই মনে আছে! তাহলে ম্যাচে ক্রুশাল সমেয়ে সাকিব আল হাসানের আউট হওয়ার কথাও মনে থাকার কথা!

অন দ্য লাইনে পা থাকার পরেও বেনিফিট অব ডাউট পেলেন না ব্যাটসম্যান; কারণ টিভি আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত! টিভি আম্পায়ার ছিলেন রুচিরা পালিয়াগুরুগে। ভাগ্য ভাল, সেবার ম্যাচটা জিতেছিল বাংলাদেশ।

এক বছরের পরের ঘটনা। এবার আর টিভি আম্পায়ার না, অনফিল্ড আম্পায়ারই থিসারা পেরেরার ‘অতি আবেদনে’ সাড়া দিলেন। এবারও ম্যাচের ক্রুশাল সময়; ২৭ বলে ৪৩ রান করা মোহাম্মদ আশরাফুল ফিরে গেলেন। এর আগের তিন বলে তাঁর রান ১৪! এবারো আম্পায়ারটির নাম রুচিরা পালিয়াগুরুগে।

শেষ অবধি ম্যাচটা ১৭ রানে হেরেছিল বাংলাদেশ। আশরাফুল উইকেটে আরো কিছুক্ষণ থাকলে হয়তো ম্যাচের চেহারাটা ভিন্ন হলেও হতে পারতো।

বোঝাই যাচ্ছে, লঙ্কান আম্পায়ার রুচিরার বাংলাদেশের সাথে ‘কানেকশন’ অনেক পুরনো। এবার নিদাহাস ট্রফির ‘অলিখিত’ সেমিফাইনালেও ছিলেন তিনি, ছিলেন অনফিল্ড আম্পায়ারের দায়িত্বে। এবার শেষ ওভারে টানা দু’টি বাউন্সারে প্রথমে নো ডেকেও হাত নামিয়ে দেওয়া হয়। লঙ্কান ক্রিকেটারদের আপত্তির মুখে সিদ্ধান্ত পাল্টানো হয়।

এবার অনেক রকম নাটক হয় প্রেমাদাসায়। মাঠেই ক্ষোভ ঝাড়েন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, নুরুল হাসান সোহানরা। মাঠের বাইরে থেকে চিৎকার করেন সাকিব আল হাসান, অধিনায়ক। মাঠ থেকে চলে আসতেও বলেন ব্যাটসম্যানদের। তবে, পরে অবশ্য টিম ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজনের মধ্যস্ততায় সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসেন সাকিব। বাকি ইতিহাসটা তো সবারই জানা!

সেই নো

মানুষ মাত্রই ভুল। আম্পায়ারও মানুষ। তবে, বাংলাদেশের বিপক্ষে বরাবরই কেন এই লঙ্কানের ভুলের সংখ্যা বেশি হয়?

শুধু বাংলাদেশ নয়, রুচিরার ভুলের আরো নজীর পাওয়া যায়। ২০১৬ সালে ফেব্রুয়ারিতে ঢাকায় অনুষ্ঠিত এশিয়া কাপ টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের কথা। পাকিস্তানের বিপক্ষে বিরাট কোহলি যখন ব্যক্তিগত স্কোরের ৪৯ রানে দাঁড়িয়ে, তাঁর বিরুদ্ধে এলবিডব্লুর আবেদনে সাড়া দিয়ে দেন তিনি। অথচ, ইনিংসের তৃতীয় ওভারেই পেসার মোহাম্মদ আমিরের বলে এলবিডব্লু হয়ে গিয়েছিলেন কোহলি, কিন্তু সেবার আমিরদের আবেদনে সাড়া দেননি এই লঙ্কান।

ম্যাচ শেষে তখনকার অধিনায়ক খোঁচাও দিয়েছিলেন। বলেছিলেন, ‘আপনারা নিশ্চয়ই চাইবেন না যে, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে আগে আমি নিষেধাজ্ঞার মতো বড় কোনো শাস্তি পাই। আম্পায়ারিং কেমন হয়েছে আপনারা সবাই দেখেছেন, নিজেরাই যাচাই করুন।’

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।