সাবধান! সামনে ভয়ঙ্কর বিমানবন্দর!

আমরা যারা দেশের বাইরের বিমানবন্দরের কথা ভাবি তখনই মাথায় ঝকঝকে উন্নত একটি জায়গাকেই কল্পনা করে বসি। কারণ স্বাভাবিকভাবেই আমরা ধারণা করি, আমাদের বিমানবন্দর বিশ্বের অন্যান্য উন্নত দেশের তুলনায় যেন কিছুই নয়। খালি চোখে নেপালের রাজধানী কাঠমুন্ডের ব্যাপারেও আমাদের তেমনই ধারণা ছিল। আমরা মনে করতাম ত্রিভূবন বিমানবন্দরটি ঝুঁকিপূর্ণ হলেও, এত সহজে হয়তো এত ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটবে না। বলাই বাহুল্য, আমরা ভুল ছিলাম। মৃতের সংখ্যা ইতোমধ্যেই ৫০ ছাড়িয়ে গেছে।

যারা দেশের বাইরে গিয়েছেন ভ্রমণে, বা অন্য কোনো কাজে তারা বরাবরই বিশ্বের অন্যান্য দেশের বিমানবন্দর ও তাদের ব্যবস্থাপনার প্রশংসা করেন। তবে, ত্রিভূবন বিমানবন্দরের মত ঝুঁকিপূর্ণ ও বিপজ্জনক বিমানবন্দর আরো আছে। সেগুলো কেবল অবিশ্বাস্যই নয়, আতঙ্কজনক ও বটে। সেসব এয়ারপোর্ট এর রানওয়ের কথা শুনলে রীতিমত ভয়ে পেয়ে যেতে বাধ্য। চলুন সেসব একটু জেনে নেওয়া যাক।

  • প্রিন্সেস জুলিয়ানা বিমানবন্দর (ক্যারিবিয়ান আইল্যান্ড)

প্রিন্সেস জুলিয়ানা ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট বা সেন্টমার্টিন এয়ারপোর্ট ও বলা হয়। এটি ক্যারিবিয়ান আইল্যান্ডের প্রধান এয়ারপোর্ট।  এই এয়ারপোর্ট এর রানওয়ে শেষ হয়েছে একটি সমুদ্র সৈকতে।

ফলে এই সৈকতে ভ্রমণকারী পর্যটকদের মাথার খুব কাছে দিয়ে ভূমি কাঁপিয়ে উড়ে যায়। শেষ খবর অনুযায়ী গত বছরের জুলাইয়ে একজনের প্রাণণাশের খবর পাওয়া যায়।

  • নারশারসুয়াক বিমানবন্দর (গ্রিনল্যান্ড)

এই এয়ারপোর্ট গ্রিনল্যান্ডের দক্ষিণে অবস্থিত। এই রানওয়ে এলাকায় সব সময়ই ঝড় লেগে থাকে।কারন এখানকার আবহাওয়া সব সময়ই বৈরী মেজাজে থাকে।এর কাছাকাছি এলাকায় আগ্নেয়গিরির ফলে মেঘে মিশে থাকে মারাত্মক প্রকারের ছাই, যা বিমানের ইঞ্জিন ধ্বংসকারী।

  • জুয়ানচো কুইন বিমানবন্দর (নেদারল্যান্ডস)

নেদারল্যান্ডসের শাবা আইল্যান্ডে এই এয়ারপোর্ট। এটি অবিশ্বাস্য রকম ছোট রানওয়ে। এটি লম্বায় মাত্র ১,৩১২ ফুট! ফলে পান থেকে চুন খসলে এটিও খসে পড়ে যাবে সমূদ্রে।

  • জিব্রাল্টার ইন্টারন্যাশনাল বিমানবন্দর (গ্রেট ব্রিটেন)

এই বিমানবন্দরের রানওয়ের মাঝ দিয়ে চলে গেছে এক ব্যস্ত সড়ক। সুরক্ষার জন্য ব্যবস্থা করেছে তাই স্টপলাইটের। যাতে গাড়ীকে নির্দেশ করা যায় কখন থামতে হবে।

  • পারো ইন্টারন্যাশনাল বিমানবন্দর (ভুটান)

সবশেষে কাছের দেশ ভুটানের পারো ইন্টারন্যাশনাল বিমানবন্দর।  এই বিমানবন্দরের চারদিক বেষ্টিত হয়ে আছে আসমানচুম্বী সব পাহাড়। এগুলো কম করে হলেও ১৮০০ ফিট উচু। যা একজন দক্ষ পাইলটকে ভড়কে দিতে পারে যেকোন সময়!

– বিজনেস ইনসাইডার অবলম্বনে

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।