এমন একজন মানুষের ‘ফ্যান’ হওয়াটা সত্যিই ভাগ্যের ব্যাপার!

বাবা বলেছিলেন ‘যা করতে নিজের মনের খুশি থাকবে, তাই করবে সবসময়’।

বাবা আরো বলতেন ‘জীবনে কিছু করার চেষ্টা করো। আর যদি কিছু না করতে পারো তাহলেও ঠিক আছে। কারণ, যে কিছুই করে না সে চমৎকার করে’।

তিনি সবাইকে ‘দিওয়ানা’ বানিয়েছেন তার ‘চমৎকার’ সব ভালো কাজ দিয়ে। ‘রাজু বান গ্যায়া জেন্টলম্যান’ যখন ‘দিল আশনা হ্যায়’ হয়ে ‘মায়া মেমসাব’ এর ‘পেহলা নেশা’য় পড়েছেন। ‘কিং আঙ্কেল’ হয়ে বলেছেন ‘কাভি হা কাভি না’ আবার হেরে যাওয়া বাজি জিতেছেন ‘বাজিগর’ হয়ে। তিনি ‘ডন’ হয়ে সবার মাঝে ‘ডর’ তৈরি করে প্রতিটা কাজের ‘আনজাম’ দিয়েছেন।

‘পরদেশ’ গিয়ে ‘ইংলিশ বাবু দেশি ম্যাম’ দের সাথে ‘ইয়েস বস’ না করে ফিরে এসেছেন ‘স্বদেশ’ এ। ‘গুড্ডু’র মতো করে বলেছেন ‘ওহ ডার্লিং! ইয়ে হ্যায় ইন্ডিয়া’ কিংবা ‘আর্মি’ হয়ে বলেছেন ‘ফির ভি দিল হ্যায় হিন্দুস্তানী’ আর পৃথিবীর সামনে গর্ব করে বলেছেন ‘চাক দে ইন্ডিয়া’। ভালোবাসার ‘চাহাত’ দিয়ে ‘জামানা দিওয়ানা’ করে ‘দিলওয়ালে’ হয়ে ‘দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে জায়েঙ্গে’ তে সফল হয়েছেন।

যাই করেন ‘দিল সে’ করেন। তাই তো তার কোন ‘ডুপ্লিকেট’ নেই। আর সবার মনই তার জন্য ‘দিল তো পাগল হ্যায়’ কিংবা নিদেন পক্ষে ‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’ হতে বাধ্য। ‘মোহাব্বতে’ দিয়ে মনের রাজ্যে ‘বাদশা’ হয়েছেন। ‘ওয়ান টু কা ফোর’ করে মনের ভিতর ‘জোশ’ দিয়েছেন। ‘অশোকা’ হয়ে ‘কাভি খুশি কাভি গাম’ দিয়েছেন কিংবা ‘দেবদাস’ হয়ে বলেছেন ‘হাম তুমহারে হ্যায় সানাম’। ‘চলতে চলতে’ ‘বীর-জারা’ হয়ে বলেছেন ‘ইয়ে লামহে জুদাই কা’, আবার পরক্ষনেই বলেছেন ‘ম্যায় হু না’। এই সব ‘প্যাহেলি’ দিয়ে সাজিয়েছেন তার ‘ডিয়ার জিন্দেগি’।

‘জিরো’ দিয়ে জীবন শুরু করা মানুষটা, এখন প্রতিটি ভক্তের মনে ‘রাইস’ করে যাচ্ছেন প্রতিনিয়ত। ‘রা ওয়ান’ এবং ‘ডন ২’ হয়ে ‘চেন্নাই এক্সপ্রেসে’ অপেক্ষা করেছেন ‘জাব হ্যারি মেট স্যাজাল’ পর্যন্ত।

যে মানুষটা ভালোবাসার মানুষকে সম্পর্কের খাতিরে ‘কাভি আলবিদা না ক্যাহনা’ বলেন, যে মানুষটা প্রতিটা মুহূর্ত বেঁচে থাকার জন্য ‘কাল হো না হো’ বলেন, আর তাঁর নিজের ক্ষেত্রে তিনি হলেন ‘জাব তাক হ্যায় জান’ ‘মাই নেম ইজ খান’।

এমন একজন মানুষের ‘ফ্যান’ হওয়াটা সত্যিই ভাগ্যের ব্যাপার!

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।