অভিজ্ঞতা ছাপিয়ে তারুণ্যের জয়গান

বলিউডে সব সময়ই দেখা যায় অভিজ্ঞ অভিনেতাদের কদরটা একটু বেশি। তরুণরা তাদের তুলনায় কমই প্রাধান্য পায়। তরুনদের অতোটা মুল্য না দিয়ে আমরা বেশিরভাগ সময় অন্য প্রবীন অভিনেতাদের চিরসবুজ বলে দেই। এই ব্যাপারে আমার কোনো আপত্তিও নেই।

তবে, সাম্প্রতিক সময়ে তরুণ অভিনেতাদের অনেকের পারফরম্যান্সই রীতিমত মুগ্ধ করেছে। আর পারফরম্যান্স নিয়ে তাঁরা ছাড়িয়ে গেছেন অভিজ্ঞদেরও। এমনই কিছু কাজ নিয়ে আমাদের এবারের আয়োজন।

  • বরফি: রণবীর কাপুর

রণবীর কাপুর এই প্রজন্মের অন্যতম সেরা একজন সেরা অভিনেতা। তিনি আমাদের ইয়ে জাওয়ানি হ্যায় দিওয়ানি, রাজনীতি, আজাব প্রেম কি গাজাব কাহানি, সাঞ্জু, রকেট সিং-এর মত সিনেমা উপহার দিয়েছেন। কিন্তু, আমার কাছে তাঁর সেরা কাজ কিন্তু ‘বারফি’ই। স্ক্রিন প্রেজেন্স, এক্সপ্রেশন সব কিছু দিয়েই এই সিনেমায় মন জিতে নেন রণবীর। তাঁর এই অভিনয় আসলেই অন্য অভিনেতাদের উপর বাড়তি একটা চাপও বটে।

  • এমএস ধোনি: সুশান্ত সিং রাজপুত

এটা সবাই মানতে বাধ্য যে, সুশান্ত বলিউডে সময়ের অন্যতম ডেডিকেটেড আর প্রতিভাবান অভিনেতা। এর প্রমাণ তিনি ব্যোমকেশ বকশী, কাই পো চে-এর মত সিনেমাতে দিয়েছেন৷ ঠিক তেমনি মহেন্দ্র সিং ধোনির বায়োপিকে সে নিজের অভিনয় দক্ষতা আর প্রতিভাকে যেভাবে কাজে লাগিয়েছেন, তাতে আসলেই তাঁর কোনো তুলনা নাই। আর এই রোলটা তাঁকে ছাড়া আক্ষরিক অর্থেই অসম্ভব ছিল।

  • ট্র‍্যাপড: রাজকুমার রাও

রাজকুমার রাওকে আমরা বরাবরই একজন ভালো অভিনেতা হিসেবে দেখেছি৷ তাঁর করা যেকোনো চরিত্রই বলিউডে ব্যাতিক্রমী। কিন্তু, ট্র‍্যাপড সিনোময় তিনি যেভাবে শারীরিক ও মানসিক ভাবে নিজেকে প্রস্তুত করেছিলেন তা আসলেই অসাধারণ। নিশ্চয়ই সিনেমাটি অনেকেই পছন্দের তালিকায় শীর্ষে রাখবেন।

  • পদ্মাবত: রণবীর সিং

তিনি এই প্রজন্মের অন্যতম সেরা একজন সব্যসাচী অভিনেতা। যেকোনো কারণেই হোক না কেন, সব সময়ই তিনি আলোচনায় থাকেন। বরাবরই তাঁকে আমরা যেভাবে দেখে অভ্যস্ত, সিনেমাতে প্রায়ই তিনি ভিন্ন কোনো একটা রূপে হাজির হয়ে তাঁক লাগিয়ে দেন। বাজিরাও মাস্তানি, লুটেরা, রামলীলা-তে তিনি এসব করেছেন। কিন্তু, পদ্মাবত-এ, নেতিবাচক অবতারে উনি যেভাবে দৃষ্টি কেড়েছেন তার কোনো তুলনা নাই!

  • বাদলাপুর: বরুণ ধাওয়ান

নি:সন্দেহে বরুণ ধাওয়ানের সেরা কাজ ‘বাদলাপুর’। কারণ, এই মুভিটা তাঁকে একজন ভালো অভিনেতা হিসেবে প্রমাণ করেছিল। একজন ‘কিউট চকোলেট বয়’ থেকে একজন হতাশ ব্যাক্তিত্ব, যার জীবনের ওপর থেকেই বিশ্বাস উঠে গেছে – তাঁর চরিত্র করে দেখিয়েছিলেন বরুণ। এমন চরিত্র বরুণ নিজেও আগে কখনো করেননি।

  • ভিকি ডোনার: আয়ুষমান খুড়ানা

আয়ুষমান খুড়ানার নাম শুনলেই আমাদের মাথায় কি আসে? উত্তরটা সহজ, একজন ভালো অভিনেতা যার অসাধারণ স্ক্রিপ্ট সেন্স আছে। তিনি এমন সব চরিত্র করে দেখিয়েছেন, যা আসলে দর্শকদের ভাবনারও বাইরে। তবে, এসবের মধ্যে সবচেয়ে ব্যাতিক্রম হল ভিকি ডোনার সিনেমায় একজন স্পার্ম ডোনারের চরিত্রটি।

  • প্যায়ার কা পাঞ্চনামা: কার্তিক আরিয়ান

বলিউডে খুব কম মানুষই তাঁর মত ক্যামেরা ফ্রেন্ডলি। প্রথম সিনেমাতেই এত বড় মনোলোগ তাও এত দ্রুত বলেছেন যার আসলেই কোনো তুলনা নাই! ডায়ালগ ডেলিভারি আর কমিক টাইমিং-এর যদি আলাদা কোনো ‘কোটা থাকতো তাহলে এই তালিকায় কার্তিক থাকতেন ওপরের দিকেই।

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।