যে চরিত্রগুলো ফিরিয়ে দিয়েছিলেন অক্ষয় কুমার

ইন্ডাস্ট্রিতে যারা একদম সামান্য থেকে বিরাট কিছু হওয়ার স্বপ্ন দেখেন তাঁরা আদর্শ মানেন অক্ষয় কুমারকে।  কারণ, এক্ষেত্রে বলিউডের ‘খিলাড়ি’ খ্যাত অভিনেতার থেকে অনুকরণীয় আর কেউ হতে পারে না। ফ্লপ তারকা থেকে তিনি হয়েছেন সুপার স্টার, সাদামাটা নায়ক থেকে তিনি কালক্রমে সময়ের সেরা অভিনেতাদের একজন হয়েছেন।

লম্বা সময়ের ক্যারিয়ারে অক্ষয় আলোচিত ও কিংবা কখনো সমালোচিত অনেক চরিত্রই করেছেন। আবার এমন কিছু চরিত্র করার প্রস্তাব তিনি ফিরিয়ে দিয়েছেন, যা কালক্রমে আকাশ সমান সাফল্যও পেয়েছে।

  • বাজিগর (১৯৯৩)

থ্রিলার ছবিটির কেন্দ্রীয় নেতিবাচক চরিত্রটি করে শাহরুখ খান বিরাট প্রশংসা কুড়ান ও ‘কিং খান’ খেতাব জুটিয়ে নেন। যদিও, আব্বাস-মাস্তান প্রথমে প্রস্তাব করেছিলেন সালমান খানকে। সালমান ফিরিয়ে দেওয়ার পর প্রস্তাব আসে অক্ষয়ের কাছেও। তবে, অক্ষয় নেতিবাচক চরিত্র করে নিজের ‘ইমেজ’ নষ্ট করতে চাননি। যদিও আব্বাস-মাস্তানেরই ‘আজনাবি’ ছবিতে পরে নেতিবাচক চরিত্র করেছিলেন অক্ষয়।

  • ভাগ মিলখা ভাগ (২০১৩)

ফারহান আখতারের জীবনের অন্যতম সেরা কাজ ভারতের কিংবদন্তি অ্যাথলেট মিলখা সিংয়ের জীবনের ওপর ভিত্তি করে নির্মিত ছবি ‘ভাগ মিলখা ভাগ’। তবে, ফারহান প্রথম পছন্দ নন। নির্মাতা রাকেশ ওমপ্রকাশ মেহরা ও স্বয়ং মিলখা সিং পছন্দ করেছিলেন অক্ষয় কুমারকে। তবে, অক্ষয় চরিত্রটি ফিরিয়ে দেন স্ক্রিপ্ট পছন্দ না হওয়ায়। যদিও, দর্শক-সমালোচক দারুণ ভাবে গ্রহণ করেছিল ছবিটিকে। বিরাট ব্যবসায়িক সাফল্য আছে বক্স অফিস থেকে।

  • রেস (২০০৮)

আব্বাস-মাস্তানের অ্যাকশন থ্রিলার ‘রেস’-এর প্রথম কিস্তি এখন পর্যন্ত বাকিদের চেয়ে সবচেয়ে বেশি ব্যবসায়িক সাফল্য পায়। ছবিটি করার মধ্য দিয়ে সাইফ আলী খানের ক্যারিয়ার নতুন করে জ্বলে ওঠে। যদিও, আব্বাস-মাস্তান শুরুতে ছবিটিতে চেয়েছিলেন আক্কিকে। তবে, অজানা কারণে ছবিটি ফিরিয়ে দেন তিনি।

  • হলিউডের ছবি

‘দ্য রক’ খ্যাত ডোয়াইন জনসনের সাথে কাজ করারও প্রস্তাব পেয়েছিলেন অক্ষয় কুমার। সেটাও আবার ছিল হলিউডের ছবি। প্রস্তাব দিয়েছিল ওয়ার্ল্ড রেসলিং এন্টারটেইনমেন্ট স্টুডিওস। তবে, চরিত্রটি পছন্দ হয়নি অক্ষয়ের। তাই ফিরে যেতে হয়েছিল ডোয়াইন জনসনকেও।

  • রেডি (২০১১): ক্যারেকটার ঢিলা গান

‘ক্যারেকটার ঢিলা’ গানে ছবিটিতে দেখা যায় সালমান খান ও জারিন খানকে। তবে, গানটি মূলত অক্ষয় কেুমারকে ভেবে নির্মিত। অক্ষয়ের ২০১০ সালের ছবি ‘খাট্টা মিঠা’-তে এর ঠাই হওয়ার কথা ছিল। তবে, কোনো এক অজানা কারণে সেটা আর হয়নি।

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।