ঐতিহাসিক ভুলের খরুচে মাশুল

এই পৃথিবীর প্রতিটা মানুষই ভুল করে করে। কেউ পরিপূর্ণভাবে সব কাজ ঠিকঠাক করতে পারে না। অনেক সময় ভুল গুলো বেশ বড় হয়ে যায়। এতটাই যে পৃথিবীর ইতিহাসে সেসব ঐতিহাসিক ভুল বলে চিহ্নিত হয়। অনেক সময় মানুষ বিবরণ শুনলে মুখ ফঁসকে বলে ফেলে, ‘এটা কি করে সম্ভব!’

  • চীনের ১৩ তলা ভবনের পতন

২০০৯ সালের কথা। ২৭ জুন ভোর পাঁচটা বেজে ৪০ মিনিট থমকে যায় চীনের গোটা সাংহাই শহর। লোটাস রিভারসাইডে ১৩ তলা ভবনে ধস নামে। পুরোটাই উল্টে পড়ে যায়। কারণ কি? নির্মান কাজে মানহীন সামগ্রী ব্যবহার ও নিম্ন মানের ফাউন্ডেশন। একটু সৎ হলেই তো এতগুলে অর্থ গচ্চা দিতে হয় না।

  • সাবমেরিন বিপর্যয়

স্প্যানিশ সরকার নতুন এক সাবমেরিন বানালো – দ্য আইজ্যাক পেরাল। খরচ পড়লো পৌনে দু’লাখ পাউন্ড। কিন্তু, বানানোর পরই বাঁধে গোল। দেখা যায় সাবমেরিনটা মাত্রাতিরিক্ত ভারি।  আর কোনো ভাবেই এই ভুল ঠিক করার উপায় নেই। তাই পুরোটা অর্থই জলে যায় স্প্যানিশ সরকারের।

  • আলাস্কা বিক্রি

১৯ শতকের শেষে রাশিয়ার দ্বিতীয় আলেকজ্যান্ডারের কাছে আলাস্কা ছিল কেবলই একটা বরফে ঢাকা ভূমি। ১৮৬৭ সালের মার্চে তিনি এটা বেঁচে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। যুক্তরাষ্ট্র ৭.২ মিলিয়ন ডলারে এটা কিনে নেয়। এখন আমেরিকা এই আলাস্কা থেকে যে পরিমান প্রাকৃতিক সম্পদ পাচ্ছে তা পরিমান প্রায় ৫০.৭ বিলিয়ন ডলার।

  • অ্যাপেলের অংশিদার

রোনাল্ড ওয়েন হলেন অ্যাপেলের মালিকদের একজন। তিনি অ্যাপেলের প্রথম লোগোটা বানান, প্রথম ম্যানুয়ালও তাঁর লেখা। তিনি ১০ শতাংশ শেয়ার বিক্রি করেছিলেন, মাত্র ৮০০ ডলারের বিনিময়ে। এটা করেছিলেন সতর্কতার জন্য, যাতে প্রতিষ্ঠান কখনো দেউলিয়া হওয়ার সম্ভাবনা সৃষ্টি হলে এই অর্থটা পুনরায় পাওয়া যায়। তিনি অ্যাপেলের ভবিষ্যৎ দেখতে পারেননি। এখন অ্যাপেলের ১০ শতাংশ শেয়ারের দাম প্রায় ৮০ বিলিয়ন ডলার।

  • ডুবন্ত জাহাজ

‘ভাসা’ – ১৭ দশকের এই জাহাজটি বানিয়েছিল সুইডিশ নেভি, তাঁদের রাজা গুস্তাভ দ্বিতীয় অ্যাডলফের আদেশে। রাজা চাইতেন সুইডেনকে ইউরোপের বড় এক শক্তিতে পরিণত করতে। জাহাজের ওজন ছিল প্রায় ১২০০ টন, বিশাল এক জাহাজ।

১০ আগস্ট, ১৬২৮। জাহাজটি স্টোকহোমের সৈকত ত্যাগ করতে না করতেই ডুবে যায়। কারণ, এই জাহাজের নকশাতে ছিল গলদ। এই জাহাজটি ছিল খুবই অস্থিতিশীল। একদমই একগাদা ভার নিয়ে সাগরে ভেসে থাকার ক্ষমতা ছিল না। তাই বাতাসের প্রথম ঝাপটাতেই নগরী মানুষদের চোখের সামনেই পুরো জাহাজটা ডুবে যায়।

– ব্রাইট সাইড অবলম্বনে

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।