যে দেশে ডিভোর্সেও পার্টি হয়

ডিভোর্স বা বিবাহ বিচ্ছেদ নি:সন্দেহে এক সামাজিক ব্যাধী। একজন স্বাভাবিক মানুষ কখনোই চাইবেন না যে কখনো নিজের বা তাঁর পরিচিত কারো বিবাহ বিচ্ছেদ হোক।

তবে, বিবাহ বিচ্ছেদের দিক থেকে বাকি পৃথিবীর চেয়ে কয়েক ধাপ এগিয়ে আছে আফ্রিকার উত্তর-পশ্চিমের দেশ মৌরিতানিয়া। দেশটিতে বিয়ে যেমন একটা উৎসব, তেমনি বিবাহ বিচ্ছেদেও অনুষ্ঠিত হয় পার্টি। না স্রেফ মজা করে নয়, সামাজিক একটি রীতি হিসেবেই আয়োজিত হয় এই পার্টি।

কারণ, দেশটির মানুষ মনে করে কষ্টকরে ধৈর্য্য ধরে ভালবাসা না থাকার পরও সংসার টিকিয়ে রাখার চেয়ে বিচ্ছেদই ভাল। তাই এই ‘মুক্তি’র দিনে বিশেষ এক পার্টির আয়োজন করা হয়। পার্টির মূল আকর্ষণ থাকেন সেই নারী যার বিচ্ছেদ হয়েছে।

পার্টিতে তাঁর কাছের মানুষ, বিশেষ করে আত্মীয়স্বজন ও বন্ধুবান্ধব উপস্থিত থাকেন। মূলত নারীরাই এই পার্টিতে থাকেন। নাচ গানের সাথে খাবারের বন্দোবস্তও থাকে।

দেশটির রাজধানী নৌয়াকচটের একজন সমাজকর্মী মরিয়ম সায়েদ বলেন, ‘আমরা এখানে বিবাহ বিচ্ছেদকে কোনো সমস্যা হিসেবে দেখি না। একজন মেয়ের ডিভোর্স হল, এর মানে এই নয় যে সে আবারো বিয়ে করতে পারবে না। সমাজ তাঁকে খারাপ চোখে দেখে না। আমাদের এখানকার পুরুষরাও স্বানন্দ্যে একজন ডিভোর্সি নারীকে বিয়ে করেন। বিচ্ছেদের কিছুদিন পরেই একজন নারী পুনরায় আইনসঙ্গত ও ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী বিয়ে করতে পারেন।’

মৌরিতানিয়ার ডিভোর্সি নারীকে বিয়ে করার হার অন্য যেকোনো দেশের চেয়ে বেশি। এমনকি অনেকেই সেখানে কুমারী নারীর চেয়ে ডিভোর্সিদের বিয়ে করাকে বেশি প্রাধান্য দেন। শুনতে বিস্ময়কর মনে হলেও এটাই সত্যি। ‘বিস্ময়কর’ বলা হচ্ছে, কারণ আর কোথাও তো আর এমন কিছু শোনাই যায় না!

ঠিক পার্টি না হলেও বিবাহ বিচ্ছেদের পর একরকম সামাজিক অনুষ্ঠানের রীতি উত্তর আমেরিকাতেও প্রচলিত আছে। একে বলা হয় ‘সেরেমনি অব হোপ’। সেখানে অবশ্য ডিভোর্স হওয়া নারী-পুরুষ দু’জনই উপস্থিত থাকেন। একটি জনপরিসরে একত্রিত হয়ে তাঁরা একে অপরের কাছ থেকে ক্ষমা চেয়ে নেন।

তবে, মৌরিতানিয়ার ডিভোর্স আইনে নারী-পুরুষের মধ্যে কিছুটা ভেদাভেদও আছে। ক্ষতিপূরণ পাওয়ার দিক থেকে এখানে পুরুষরা যে পরিমান অর্থ পান, নারীরা পান তার চেয়ে অনেক কম।

– ডয়েচে ভেলে ও বিজনেস ইনসাইডার অবলম্বনে

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।