বাংলাদেশের ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগ দেখছেন কিংবদন্তিরা

প্রথম ম্যাচে চমকে দিলেও শেষ দুই ম্যাচে হতাশ করেছে বাংলাদেশ দল। যদিও, বিশ্বকাপে আরো বড় বিস্ময় নাকি জমা করেই রেখেছে বাংলাদেশ। এমন অভিমত দিলেন ইংলিশ পেসার জেমস অ্যান্ডারসন। ইংল্যান্ডের টেস্ট দলের নিয়মিত এই পেসারের মতে, বিশ্বকাপে আরো ভাল পারফরম করবে বাংলাদেশ।

সর্বশেষ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ চলাকালীন প্রেস বক্সের বাইরে গণমাধ্যমে অ্যান্ডারসন বলেন, ‘এবারের বিশ্বকাপে বাংলাদেশ ভালো করবে। প্রথম দু’ম্যাচে দারুণ পারফরমেন্স করেছে তারা। দলের খেলোয়াড়রা নিজেদের কাজ সর্ম্পকে বেশ সচেতন।’

দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে এবারের দ্বাদশ বিশ্বকাপ শুরু করে বাংলাদেশ। ২১ রানের জয়ের শক্তিশালী প্রোটিয়াদের হারিয়ে দেয় মাশরাফি বিন মুর্তজার দল। ৩৩০ রানের বিশাল সংগ্রহ দাঁড় করিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকাকে বিধ্বস্ত করে মাশরাফির দল।

জয়ের স্বাদ নিয়ে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে নেমে নিউজিল্যান্ডের কাছে দুই উইকেটে হেরে যায়। তবে এই হারের কোন ক্ষত ছিলো না। কারণ ব্ল্যাকক্যাপদের ঘাম ঝড়িয়ে ছেড়েছে তারা। জয় পেতে বেশ বেগ পেতে হয়েছে নিউজিল্যান্ডকে। ম্যাচ শেষে বাংলাদেশের প্রশংসাও করেছেন নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসমস্যান রস টেলর।

তাই ১টি করে জয় ও হারের স্বাদ নিয়ে স্বাগতিক ও টুর্নামেন্টের সবচেয়ে বড় ফেবারিট ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ। কিন্তু কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেন্সে নিজেদের মেলে ধরতে পারেনি বাংলাদেশ দল। ইংল্যান্ডের সামনে দাঁড়াতেই পারেনি বাংলাদেশ। টাইগার বোলারদের ব্যর্থতায় প্রথমে ব্যাট করে ছয় উইকেটে ৩৮৬ রানের বিশাল সংগ্রহ পায় ইংল্যান্ড। জবাবে সাকিব আল হাসানের সেঞ্চুরি সত্ত্বেও ২৮০ রানের বেশি করতে পারেনি বাংলাদেশ। ১২১ রানের নান্দনিক ইনিংস খেলেন সাকিব।

নিজ দেশের কাছে যাচ্ছেতাইভাবে ম্যাচ হারলেও বাংলাদেশের প্রশংসা করেছেন ইংল্যান্ডের অ্যান্ডারসন। তিনি বলেন, ‘বড় দলের বিপক্ষে জয় দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করে বাংলাদেশ। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দারুণ লড়াই করেছে। এবার অন্যান্য দলের জন্য বড় হুমকি এই দলটি। অনেক দূর যাবে তারা। এই কন্ডিশনে ভালো করা কিছুটা কঠিন। তারপরও তারা ভালো করেছে প্রথম দু’ম্যাচে। বাকি ম্যাচগুলোতেও ভালো করবে বাংলাদেশ। যেকোন দলকে হারাতে পারে তারা।’

এদিকে এখনো বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে বাংলাদেশ যেতে পারে বলে মত দিলেন সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলি। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ দলের এখনো ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগ আছে। বাকি ম্যাচগুলো ভালো খেলতে হবে। শুধু ভালো খেললে হবে না, জিততে হবে।’

বাংলাদেশের হাতে এখনো ছয়টি ম্যাচ বাকি। ফলে, সেমিফাইনালের পথটা এখনো অনেক কঠিন নয়।

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।