লকডাউনে রাতে ‘সেক্স পার্টি’, সকালে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার প্রচারণা

ঘটনাটাকে ‘ন্যাক্কারজনক’ বললেও কম বলা হয়। গুরুতর শৃংখলা ভঙ্গের দায়ে শাস্তির মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন ম্যানচেস্টার সিটি ফুটবল ক্লাবের কাইল ওয়াকার।

প্রানঘাতি করোনা ভাইরাসের কারণে লকডাউনের মধ্যে সবাইকে ঘরে থাকতে বলা হলেও নিয়ম ভঙ্গ করে একটি ‘সেক্স পার্টি’ আয়োজন করায় ম্যান সিটির কাছ থেকে ওয়াকার শাস্তির মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন বলে জানা গেছে।

ইংল্যান্ডের শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যম দ্য সান পত্রিকায় প্রকাশিত এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, গত মঙ্গলবার নিজের ফ্লাটে দুই জন কর্ল গার্লকে ডাকেন তিনি। পুরো রাতটা তাঁদের সাথেই কাটান তিনি। যদিও পরদিন সকালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সামাজিক যোগাযোগ বজায় রাখার জন্য ব্যাপক প্রচারণা চালান একই ব্যক্তি।

ওয়াকার নিজের ভুল বুঝেছেন কি না জানা নেই, তবে ঘটনাটা জানাজানির পর ক্ষমা চেয়েছেন ইংল্যান্ড মিডফিল্ডার ২৯ বছর বয়সী ওয়াকার। বুধবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভক্ত-সমর্থকদের সামাজিক দূরত্ব বজায়ে রাখতে সরকার ঘোষিত গাইড লাইন মেনে চলার আহবান জানান ওয়াকার।

সর্বশেষ খবর অনুযায়ী ইংল্যান্ডে পাঁচ হাজারেরও বেশি মানুষ করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। এক বিবৃতিতে ওয়াকার বলেন, ‘হেয় করার জন্য আমি আমার পরিবার, বন্ধু-বান্ধব, ফুটবল ক্লাব, ভক্ত-সমর্থক ও জণগনের কাছে ক্ষমা চাই।’

ম্যান সিটির পক্ষ থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘আমাদের কর্মী ও খেলোয়াড়রা যে যেভাবে পারছে করোনার বিপক্ষে লড়াইয়ে ন্যাশনাল হেলথ এর সার্ভিসকে যথার্থ সাহায্য করছে । কিন্তু কাইলের কাজটি সরাসরি এ প্রচেস্টার বিরোধী। এ ধরনের অভিযোগ শুনে আমরা হতাশ, দ্রুত কাইলের বিবৃতি ও ক্ষমা চাওয়ার বিষয়টি আমাদের নজরে এসেছে এবং আগামীতে অভ্যন্তরীন শৃংখলা প্রক্রিয়া শুরু হবে।’

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।