অর্জুন-মালাইকা: একটি ‘নিষিদ্ধ’ প্রেম

বলিউডের খান পরিবারের সাথে যেন অর্জুন কাপুরের সম্পর্কটা চির জীবনের জন্য। সালমান খানের বোন অর্পিতা খানের সাথে বছর দুয়েকের প্রেম ছিল অর্জুন কাপুরের। সেটা অবশ্য বলিউডে পা রাখার আগে। যখন ১৮ বছর বয়সে অর্পিতার সাথে পরিচয় হয় তখন ১৪০ কেজি ওজনের মোটাসোটা এক তরুণ ছিলেন তিনি।

এরপর সেই সম্পর্ক ছাড়াছাড়িও হয়ে যায়। অর্জুন সব সময়ই বলেছেন, অর্পিতার সাথেই ছিল তাঁর প্রথম ও শেষ ‘সিরিয়াস’ প্রেমের সম্পর্ক। কালক্রমে ওজন কমিয়ে নিজেকে আমূল পাল্টে ফেলেন অর্জুন। প্রযোজক বনি কাপুরের ছেলে ও অভিনেতা অনিল কাপুরের ভাতিজা বলিউডে সাফল্য-ব্যর্থতা মিলিয়ে থিঁতুও হয়ে যান।

এরপর ‘কফি উইদ করণ’ শো-তে এসে বলেছিলেন, তার কাছে বলিউডের সেরা অভিনেতা হলেন সালমান খান। এমনকি নিজের সিনেমাতে ‘ম্যায় হু সুপারম্যান, সালমান কা ফ্যান’ নামের একটা গানও গেয়েছিলেন তিনি। বোঝাই যাচ্ছে, সালমান খানের বিরাট ভক্ত অর্জুন। শুধু তাই নয়, ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে অনেক ইস্যুতেই সালমানের সাহায্যও পেয়েছেন অর্জুন।

যদিও, সোনম কাপুরের বিয়ের অনুষ্ঠানে বাবা বনি কাপুরের সাথে সালমান কুশল বিনিময় করলেও অর্জুনকে একেবারেই এড়িয়ে যান। বোঝাই যাচ্ছিল, ডাল মে কুছ কালা হ্যায়!

না, নিজের বোনের সাথে সম্পর্ক ছাড়াছাড়ি হয়ে যাওয়ার কারণে ক্ষেপে যাননি ভাইজান। সালমানের রাগের কারণ হল মালাইকা অরোরার সাথে অর্জুনের সম্পর্ক। মালাইকার সাথে অর্জুন যখন সম্পর্কে জড়ান তখন এই আইটেম কুইন ছিলেন সালমানের আপন বড় ভাই আরবাজ খানের স্ত্রী।

এর কিছুদিন পরই আরবাজের সাথে লম্বা বৈবাহিক সম্পর্কের ইতি টানেন মালাইকা। বলাবলি হচ্ছিল, অর্জুনের সাথে সম্পর্কটাই বিচ্ছেদের মূল কারণ। তখন অবশ্য মালাইকা বা অর্জুন – দু’জনের কেউ এই ব্যাপারে মুখ খোলেননি। তবে, গণমাধ্যম বলাবলি করছে আরবাজ খানের সাথে বিচ্ছেদের পর এবার অর্জুনের গলাতেই মালা পরাচ্ছেন মালাইকা। যদিও, কেউই মুখ ফুটে কিছু বলেননি।

আর এটাই যদি সত্য হয়, তাহলে মালাইক ও অর্জুনকে বলিউডের ইতিহাসের অন্যতম ‘বিতর্কিত’ জুটি হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া যেতে পারে। এখন সব জায়গাতেই এক সাথে দেখা যায় এই দু’জনকে। হোক সেটা কোনো অ্যাওয়ার্ড নাইট বা করণ জোহরের বাড়ির পার্টি। ক’দিন আগেই নাকি এই দু’জনকে এক সাথে ইতালিতে দেখা গেছে। গিয়েছিলেন মালাইকার জন্মদিন পালন করতে।

পরিচালক করন জোহর একবার মালাইকাকে জিজ্ঞেস করেলেন, ‘তুমি আর অর্জুন কি বিয়ে করছো?’ মালাইকা নাকি লজ্জা পেয়ে শুধু একটু হেসেছিলেন। কোনো জবাব দেননি!

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।