বলিউড কাঁপানো ভিনদেশিরা

গান কিংবা চলচ্চিত্র মানে না কোন সীমানা। মানে না ভাষার বাঁধা। কোরিয়ান ভাষা আমরা না বুঝলেও বিয়ে বাড়িতে বাজে ‘গ্যাংনাম স্টাইল’। ঠিক তেমনি নানান দেশের অভিনয়শিল্পীরা হিন্দি ভাষায় অনর্গল কথা বলতে পারলেও অভিনয় করেছেন হিন্দি সিনেমা।

হাল আমলে তাই অনেক বিখ্যাত অভিনেতাকেই আমরা বলিউডি চলচ্চিত্রে দেখতে পাচ্ছি। সারা বিশ্বে বলিউডের চলচ্চিত্রের অগণিত দর্শক রয়েছে। এমন ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিকে হলিউডের বিখ্যাত অভিনেতারাও কাজে লাগিয়েছেন।

হলিউডের ইদানিংকালের সিনেমাগুলো শত কোটির দেশ ভারতকে আকৃষ্ট করার চেষ্টা করে যাচ্ছে। ইরফান খান, প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, দীপিকা পাডুকোনদের হলিউডের সিনেমায় হরহামেশাই দেখা যাচ্ছে। ঠিক তেমনি উপমহাদেশের বাইরের অভিনয়শিল্পীদেরও দেখা গেছে বলিউডে। তাদের নিয়েই আজকের আজকের আয়োজন।

  • সিলভার স্ট্যালোন (কামবাখত ইশক)

‘রকি’র মত ব্যবসাসফল চলচ্চিত্র উপহার দেওয়া সিলভার স্ট্যালোন কাজ করেছেন বলিউডের ‘কামবাখত ইশক’-এ। রম-কম চলচ্চিত্রটির এক দৃশ্যে সিলভার স্ট্যালোন সিমৃতাকে (কারিনা কাপুর) গুণ্ডাদের কাছ থেকে বাঁচান।

  • ব্রান্ডন রাউথ (কামবাখত ইশক)

সাবেক ‘সুপারম্যান’ ব্রান্ডন রাউথকেও দেখা গিয়েছিল কামবাখত ইশকে। চলচ্চিত্রটিতে অতিথি চরিত্রে তাঁকে দেখা যায়।

  • বেন কিংসলে (তিন পাত্তি)

ভারতীয়রা তাকে রূপালি পর্দার মহাত্মা গান্ধী হিসেবেই স্মরণ করে। কিন্তু, বলিউডে তার অভিষেক হয়েছিল অমিতাভ বচ্চনের ‘তিন পাত্তি’ চলচ্চিত্রে। এই সিনেমায় বেন কিংসলের চরিত্রটি ছিল জগদ্বিখ্যাত এক গণিতবিদের চরিত্র করেন, যিনি এক ভারতীয় গণিতবিদের (অমিতাভ বচ্চন) প্রতিভা দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন। দু’জনের সাক্ষাৎ করেছিলেন লন্ডনের এক ক্যাসিনোতে।

  • বারবারা মোরি (কাইটস)

এর আগের হলিউডি অভিনেতাদের সবাই ছোট/অতিথি চরিত্রে অভিনয় করলেও ২০১০ সালের সিনেমা ‘কাইটস’ এ বারবারা মোরিকে দেখা গিয়েছিল ঋত্বিক রোশনের বিপরীতে প্রধান ভূমিকায়। বক্স অফিসে ‘কাইটস’ সুবিধা না করতে পারলেও ভারতে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন মেক্সিকান এই অভিনেত্রী।

  • ক্লাইভ স্ট্যান্ডেন (নমস্তে লন্ডন)

ভাইকিং টিভি সিরিজের ‘রোলো’কে দেখা গিয়েছিল অক্ষয় কুমার অভিনীত ‘নমস্তে লন্ডন’-সিনেমায়। ব্রিটিশ এই অভিনেতা অভিনয় করেছিলেন জাস্মিতের (ক্যাটরিনা কাইফ) বয়ফ্রেন্ডের চরিত্রে।

  • টিফানি মালহেরন (নমস্তে লন্ডন)

স্কটিশ এই অভিনেত্রীকে নমস্তে লন্ডন চলচ্চিত্রে দেখা গিয়েছিল ইমরানের (উপেন প্যাটেল) বিপরীতে।

  • ক্রিস্টোফার বি. ডানকান (মাই নেম ইজ খান)


শাহরুখ খানের কালজয়ী চলচ্চিত্র মাই নেম ইজ খানে আমেরিকান প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার চরিত্রে দেখা গিয়েছিল এই অভিনেতাকে।

  • সারাহ থম্পসন (রাজনীতি)

রনবীর কাপুর, নানা পাটেকার, নাসিরুদ্দিন শাহ, ক্যাটরিনা কাইফ, অজয় দেবগন, মনোজ বাজপেয়ী অভিনীত পলিটিক্যাল থ্রিলার রাজনীতি-তে এই আমেরিকান অভিনেত্রীকেও দেখা হিয়েছিল। তিনি ছিলেন সমরের (রণবীর কাপুর) গার্লফ্রেন্ডের চরিত্রে।

  • রেবেকা ব্রিডস (ভাগ মিলখা ভাগ)

‘ভাগ মিলখা ভাগ’ সিনেমায় ফারহান খান অসাধারণ অভিনয় করেন। মিলখা সিংয়ের (ফারহান খান) ১৯৫৬ সালের মেলবোর্ন অলিম্পিকসের অস্ট্রেলিয়ান টেকনিকাল কোচের নাতনী স্টেলার চরিত্রে দেখা গিয়েছিল এই অস্ট্রেলিয়ান অভিনেত্রীকে।

  • লেস্টার স্পেইট (ইন্টারন্যাশনাল খিলাড়ি)

বলিউড ‘ইন্টারন্যাশনাল খিলাড়ি’ চলচ্চিত্রে পেয়েছিল ‘ইন্টারন্যাশনাল’ এই অভিনেতাকে। পেশাদার ফুটবলার থেকে অভিনেতা বনে যাওয়া লেস্টারকে দেখা গিয়েছিল এক ‘ফাইটার’ এর চরিত্রে।

  • র‍্যাচেল শেলি (লগন)

লগন চলচ্চিত্রে এলিজাবেথ চরিত্রে অভিনয় করে তিনি পেয়েছিলেন ব্যাপক জনপ্রিয়তা। ব্রিটিশ এই অভিনেত্রী সিনেমায় গ্রামবাসীদের ক্রিকেট খেলা বুঝতে সহায়তা করেছিলেন। বোধ করি,বলিউডে অভিনয়কারী হলিউডি অভিনেতাদের মাঝে তিনিই সবচেয়ে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিলেন।

  • পল ব্ল্যাকথ্রোন (লগন)

সিনেমাটিতে আন্ড্রু রাসেলের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি। সিনেমায় তিনি ছিলেন এলিজাবেথের (র‍্যাচেল শেলি) ভাই। আন্ড্রু রাসেল সিনেমায় গ্রামবাসীদের বিরুদ্ধে খেলা ক্রিকেট ম্যাচে ব্রিটিশদের অধিনায়ক ছিলেন তিনি।

  • টবি স্টিফেন্স (মঙ্গল পান্ডে)

‘মঙ্গল পান্ডে :দ্য রাইজিং’ চলচ্চিত্রে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন আমির খান। ১৮৫৭ সালের সিপাহী বিপ্লবের গল্প নিয়ে বানানো এই সিনেমাটিতে মঙ্গল পান্ডের বন্ধু ক্যাপ্টেন জন উইলিয়াম গর্ডনের চরিত্রে অভিনিয় করেছিলেন তিনি।

  • মার্কো জ্যারর (সুলতান)

সালমান খান অভিনীত ‘সুলতান’ চলচ্চিত্রে সুলতানের (সালমান খান) ফাইনাল ম্যাচের প্রতিপক্ষ ছিলেন মার্কো জ্যারর, যিনি চলচ্চিত্রে মার্ক নামে অভিনয় করেছিলেন।

  • এলিস প্যাটেন (রঙ দে বাসন্তী)

আমির খান অভিনীত কালজয়ী এই চলচ্চিত্রে স্যু ম্যাককিনলি চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি। ম্যাককিনলির নাতনীর চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি, যিনি ব্রিটিশ আমলে ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রাম চলাকালে এক জেলের জেলার ছিলেন।

  • ডেনিস রিচার্ডস (কামবাখত ইশক)

টিভি সিরিজ ‘ওয়াইল্ড থিংস’-এর জন্য বিখ্যাত এই অভিনেত্রীকেও দেখা গিয়েছে বলিউডের সিনেমায়। ‘কামবাখত ইশক’ সিনেমায় ভিরাজের (অক্ষয় কুমার) গার্লফ্রেন্ডের ভূমিকা করেছেন তিনি।

  • ব্রান্ডে রডেরিক (আউট অব কনট্রোল)

অপূর্ব আসরানি আর রামানজিত জুনেজার রোমান্টিক কমেডি জনরার এই চলচ্চিত্রটিতে দেখা গিয়েছিল এই সাবেক প্লেবয় মডেলকে। এই চলচ্চিত্রের গল্প এক ভারতীয় পুরুষের ভারতীয় স্ত্রী এবং আমেরিকান স্ত্রী নিয়ে ঝামেলা পোহানোর কাহিনী নিয়ে। এই সিনেমায় আমেরিকান স্ত্রী’র ভূমিকায় অভিনয় করেছেন তিনি।

– ফিল্মিকিডে অবলম্বনে

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।