ফ্রম মিনোজ টু হিরোজ

এমন দিন ছিল যখন তারা পাকিস্তানের নাম শুনলে ভয় পেত, মাঠে নামার আগেই হেরে বসত। এখন তাদের বোলাররা আমাদের ব্যাটসম্যানদের চোখ রাঙায়, যেকোন কিছু করতে ভয় পায় না। এটাই হবার ছিল। পাকিস্তান এতোটাই বাজে খেলেছে যে আমি বাংলাদেশের সাথে ম্যাচ দেখতে লজ্জা পেয়েছি।

সাঈদ আজমল, সাবেক পাকিস্তানি ক্রিকেটার

সবাই ভেবেছিল ভারত-পাকিস্তান ফাইনাল হবে। সম্প্রচারকেরাও অর্থ লগ্নি করেছিলেন এই ভাবনা থেকে—তিন ম্যাচের সিরিজ। কিন্তু বাংলাদেশকে দেখে মনে হয়েছে তাঁরা পাকিস্তানের চেয়ে ভালো দল। ফাইনালটা তাই আরও প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ (পাকিস্তানের তুলনায়) হবে।

সঞ্জয় মাঞ্জরেকার, সাবেক ভারতীয় ক্রিকেট

বাংলাদেশ গত ১৮ বছর ধরে টেস্ট খেলছে। তাদের ট্রফি জিততে হয়তো সময় লাগবে। অনেক সময় অনেক দলেরই একটা শিরোপা জিততে অনেক সময় লেগে যায়। আমি ব্যাপারটা দুইভাবে দেখি, আমি অবশ্যই চাইব কাল এশিয়া কাপের ফাইনালে ভারত বাংলাদেশকে হারাক। কিন্তু আমি বিশ্বাস করি আমরা খুব শিগগিরই দেখব বাংলাদেশ ট্রফি জেতা না জেতার সূক্ষ্ম বিভক্তি রেখাটা পেরিয়ে আসবে।

শিখর ধাওয়ান, ভারতীয় ওপেনার

এশিয়া কাপে ফাইনালের আগে খণ্ড খণ্ড বক্তব্যগুলো বাংলাদেশের বদলে যাওয়ার গল্পই বলছে। কেউ কেউ বাংলাদেশের সাফল্য মেনে নিতে পারছেনা, কেউ কেউ বাস্তবতা মেনে নিয়েছে। এবারেরটা নিয়ে সর্বশেষ চার এশিয়া কাপের তিনটিতেই যে দল ফাইনাল খেলার যোগ্যতা অর্জন করে তাদের আর মিনোজ বলে চালিয়ে দেয়ার উপায় নেই। নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করতে প্রয়োজন একটি ট্রফি, সেটি আজ আসতে পারে কিংবা আরো পরে। তবে যখন আসবে তখন নিয়মিতই আসবে। ওয়ানডের জয়ের মতো, একবার জয়ের পর নিয়মিতই জয় আসতে শুরু করেছে।

আরো পড়ুন

অথচ, খুব বেশিদিন আগের কথা নয়, যখন টেস্ট খেলুড়ে  কারো বিপক্ষে বাংলাদেশের জয় মানেই ছিল ‘আপসেট’। বাংলাদেশের একটা জয় মানেই ছিল চমক। সেই চমক এখন নিয়মিত আসতে শুরু করেছে। মিনোজরা এখন হিরোজ। এসব চমকের হাত ধরে আসুক অধরা ট্রফি।

বাংলাদেশ জিতুক বা হারুক, দলের মূল ক্রিকেটারদের অনুপস্থিতি ও ফিটনেস ঘাটতি নিয়েই যে দল ফাইনালে আসতে পেরেছে তারা বিশ্বকে জানান দিয়েছে আমরা পিছিয়ে নেই। আমরা পেশাদারিত্বের মোড়কে হৃদয় দিয়ে ক্রিকেট খেলি, কারণ গায়ে থাকে বাংলাদেশের জার্সি।

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।