একটি ছবি ও তাঁদের বর্তমান অবস্থান

তুহিন হোসেনের ফটোগ্রাফিতে শূন্য দশকের অন্যতম চারজন জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রাবন্তী, ঈশিতা, তারিন ও অপি করিম। সন্দর ও দুর্লভ এই ছবিটা ইতিমধ্যেই বেশ জনপ্রিয়, সেই প্রসঙ্গে যাচ্ছি না। এই ঈদে এসে তাঁদের অবস্থান নিয়ে বলতে চাই।

শ্রাবন্তী এখন প্রবাসে দিন কাটাচ্ছেন, অভিনয় থেকে অনেক দূরে। তাঁর প্রসঙ্গ থাকুক। তিনি স্বাভাবিক ভাবেই এই আলোচনার বাইরে থাকবেন।

এই ঈদে বাকি তিনজনেরই অভিনীত নাটক প্রচার পেয়েছে। ঈশিতা ও অপি করিম তো সর্বমহলে নিজেদের সর্বমহলে প্রশংসা আদায় করে নিয়েছেন। ধরতে গেলে দু’জনেরই একটি করে নাটক প্রচার হয়েছে, ঈশিতা অবশ্য একটিতে অতিথি হিসেবে আছেন। এই ‘ইতি, মা..’ ও ‘ভিকটিম’ দিয়ে এই সময়ের জনপ্রিয়, ব্যস্ত অভিনেত্রীদের ছাপিয়ে শীর্ষ আলোচনায় এসেছে, এটা কিন্তু চাট্টিখানি কথা নয়। তাদের এইরকম প্রত্যাবর্তন যেমন প্রশংসনীয়, তেমনি সমসাময়িক ও জুনিয়র অভিনেত্রীদের জন্য অনুকরণীয়।

এবার আসি তারিনের প্রসঙ্গে, বাকি দু’জনের একটি করে নাটক মুক্তি পেলেও তারিনের না হলেও পাঁচটা নাটক প্রচার হয়েছে। আমি নিজেই তিনটি দেখেছি। সংখ্যার বিচারে এগিয়ে থাকলেও আলোচনা, প্রশংসায় তিনি অনেক পিছিয়ে শুধু স্ক্রিপ্ট নির্বাচনের অসচেতনতার কারণে। অথচ, তাঁদের সময়ে তারিনই সবচেয়ে জনপ্রিয় অভিনেত্রী ছিলেন। পাশাপাশি এটাও অনেকে বলতেন অভিনয়েও সে তাঁদের চেয়ে এগিয়ে।

এই ঈদে হানিফ সংকেতের নাটকটাতেই দেখুন, একটা আরোপিত চিত্রনাট্যের নাটক শুধু তারিনের অভিনয়শৈলীর জন্য দেখা যায়। কিন্তু ভালো অভিনয় টা ঠিকঠাক জায়গায় দেখাতে হয়। ঈশিতা, অপি করিমের আজকের আলোচনার পেছনে নির্মাতা অনেক বড় ফ্যাক্ট এটা সত্য,তবুও তো তারা ভালো নির্মাতাই বেছে নিয়েছেন সঙ্গে চরিত্রটাও।

এইদিকে এই নির্মাতা গোষ্ঠীর সঙ্গে শুরু থেকেই তারিনের একটা দূরত্ব ছিল,এক শরাফ আহমেদ জীবনের ‘চৌধুরী সাহেবের ফ্রি অফার’ ছাড়া ছবিয়ালের সঙ্গে আর কাজ করেছে বলে মনে পড়ছে না। এই মুহুর্তে তাঁরাই ভালো নাটক বানানোর জন্য বেশি আলোচিত। তারিন যাদের সঙ্গে কাজ করে বেশি পরিচিতি পেয়েছে বা যেই গোষ্ঠীর সঙ্গে ভালো সম্পর্ক তারা সময়ের আবহে ম্লান হয়ে গেছেন সেইরকম ভাবে ভালো নাটক বানাতে পারে না। বরং এবারের একটি নাটকের জন্য সমালোচনা হচ্ছে।

তাই সুপ্রিয় তারিন কেই বলছি, নাটকের সংখ্যা একটিই হউক তবে সেটা নির্মাতা, গল্প বেছে অভিনয় করুন। একটা দুর্বল চিত্রনাট্যেই যে আপনি অভিনয়ের দক্ষতা দেখান সেখানে শক্তিশালী চিত্রনাট্য পেলে আপনার আগের সেই সুবর্ণদিন চলে আসতে পারে।

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।