শাহরুখ খানের এই ছবির গল্পগুলো মৌলিক নয়!

শাহরুখ খানকে ভারতে প্রায়ই ‘গ্লোবাল স্টার’ বলা হয়। কারণ, বৈশ্বিক বাজারে শাহরুখ খানের ছবির অনেক কদর। যদিও, কিং খানের অনেক ছবির গল্পই মৌলিক নয়। হলিউড তো বটেই, আঞ্চলিক সিনেমার গল্পেরও শরনাপন্ন বেশ অনেকবারই হয়েছেন কিং খান।

  • বাজিগর (১৯৯৩)

জেমস ডিয়ারডেন নির্মিত হলিউডের ১৯৯১ সালের ইরোটিক থ্রিলার ‘আ কিস বিফোর ডাইং’-এর ভারতীয় সংস্করণ হল ‘বাজিগর’। ছবিটি ক্যারিয়ারের ‍শুরুর দিকে খ্যাতি এনে দেয় শাহরুখ খানকে।  ছবিটির জন্য ফিল্ম ফেয়ারে সেরা অভিনেতার পুরস্কার পান এসআরকে।

  • চমৎকার (১৯৯২)

শাহরুখ, উর্মিলা, নাসিরুদ্দিন শাহ’র ‘চমৎকার’-এর কথা মনে আছে? শাহরুখের ক্যারিয়ারের প্রথম বছরের ছবি। এই ছবির গল্প ১৯৬৮ সালের আমেরিকান কমেডি ফ্যান্টাসি ছবি ‘ব্ল্যাকবিয়ার্ড’স ঘোস্ট’ থেকে নেওয়া হয়েছে।

  • বাদশাহ (১৯৯৯)

একটা নয়, দু’টি ছবি থেকে ‘বাদশাহ’ সিনেমার গল্প নেওয়া হয়েছে। ছবি দু’টি হল – জনি ডেপের ‘নিক অব টাইম’ (১৯৯৫) ও জ্যাকি চ্যানের ‘মিস্টার নাইস গাই (১৯৯৭)’। ছবিটি অবশ্য বক্স অফিস থেকে বড় কোনো সাফল্য নিয়ে ফিরতে পারেনি।

  • জোশ (২০০০)

মনসুর খান নির্মিত এই ছবির কিছু কিছু অংশ হলিউড ক্লাসিক ‘ওয়েস্ট সাইড স্টোরি’ থেকে অনুপ্রাণিত। ‘ওয়েস্ট সাইড স্টোরি’ ১৯৬১ সালের ছবি। ‘জোশ’-এ শাহরুখের বোনের চরিত্র করেন ঐশ্বরিয়া রায়।

  • মোহাব্বাতে (২০০০)

শাহরুখ খানের কালজয়ী ছবি ‘মোহাব্বাতে’। ছবি হলিউডের কালজয়ী ছবি ‘ডেড পয়েটস সোসাইটি (১৯৮৯)’ থেকে অনুপ্রাণিত। মূল চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন রবিনস উইলিয়ামস। শাহরুখ খানের মত তিনিও অনুপ্রেরণাদায়ী এক শিক্ষকের ভূমিকায় অভিনয় করেন। ছবিটি দিয়ে সমালোচকদের দৃষ্টিতে ফিল্ম ফেয়ারে সেরা অভিনেতার পুরস্কার পান শাহরুখ।

  • স্বদেশ (২০০৪)

কেবল হলিউড নয়, ভারতের আঞ্চলিক ছবির স্ক্রিপ্টেও কাজ করেছেন ‘কিং খান’। সেটা হল কাল্ট ক্লাসিক ‘স্বদেশ’। দারুণ গল্পের এই ছবিটা নির্মিত হয়েছে ২০০৩ সালের কান্নাড়া ছবি ‘চিগুরিদা কানাসু’র ওপর নির্ভর করে। শাহরুখ খান ছবিটি দিয়ে বিরাট ব্যবসায়িক সাফল্য না পেলেও, সমালোচকদের বিরাট প্রশংসা কুড়িয়েছিলেন।

  • ফ্যান (২০১৬)

ব্যবসায়িক ভাবে সফল না হলেও শাহরুখ খানের অভিনয় আলোচিত ছিল। রুপালি পর্দার একজন সুপার স্টার (আরিয়ান খান্না) আর তারই এক পাগল ভক্তের (গৌরব চাঢ্ঢা) চরিত্র করেছেন কিং খান। ছবিটি ১৯৯৬ সালে মুক্তি পাওয়া রবার্ট ডি নিরোর হলিউড ‘দ্য ফ্যান’-এর গল্প থেকে অনুপ্রাণিত।

 

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।