শুরুর ব্যর্থতা মুছে শ্রেষ্ঠত্বের মিছিলে

একজন অভিনেতার জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপারগুলোর একটি নি:সন্দেহে তাঁর অভিষেক। প্রথম বছরের দেখাতেই কারো নামের সাথে ‘নেক্সট বিগ থিঙ’-এর তকমা লেগে যায়। আবার কারো ক্ষেত্রে হয় উল্টোটা। শুরুর সাফল্য কেউ ধরে রাখতে পারেন, কেউ বা পারেন না। আবার কেউ শুরুতে ব্যর্থ হলেও কালক্রমে বনে যান সময়ের সেরাদের একজন। শুরুর ব্যর্থতাকে মুছে পরবর্তীতে সফল হওয়াদের নিয়েই আমাদের এখনকার আয়োজন।

  • সালমান খান

বলিউডে এখন ভাইজান মানেই অবারিত সাফল্যের নিশ্চয়তা। তবে, শুরুর অবস্থা এমন ছিল না। ১৯৮৮ সালে তার অভিষেক হয় ‘বিবি হো তো অ্যায়সি’ ছবি দিয়ে। সিনেমাটি ফ্লপ হয়। পরের বছরই কেন্দ্রীয় চরিত্রে ‘ম্যায়নে প্যায়ার কিয়া’ ছবিটি করেন সাল্লু। সেখান থেকেই তাঁর স্টারডমের সূচনা হয়।

  • কাজল

ভারতের ইতিহাসে অন্যতম সফল অভিনেত্রী কাজলের শুরুটাও ভাল ছিল না। ১৯৯২ সালে তাঁর অভিষেক ছবি বেখুদি ছিল বিশাল একটা ফ্লপ। পরের বছর কাজলের প্রথম বানিজ্যিক সাফল্য আসে ‘বাজিগর’ ছবির সৌজন্যে। কালক্রমে রেকর্ড ছয়টি ফিল্মফেয়ার পুরস্কার পান কাজল।

  • অক্ষয় কুমার

খিলাড়ি কুমার তাঁর ক্যারিয়ারের শুরুতে একদমই জনপ্রিয় কেউ ছিলেন না। ক্যারিয়ার শুরু হয় ১৯৯১ সালের ‘সুগন্ধ’ ছবি দিয়ে। সিনেমাটি ফ্লপ হয়। একই বছর তিনি ‘ড্যান্সার’ নামের আরেকটি ছবি করেছিলেন। সেটাও সাফল্য পায়নি।

  • ঐশ্বরিয়া রায়

১৯৯৪ সালে মিস ওয়ার্ল্ডের খেতাব জয়ের পর ১৯৯৭ সালে ‘ওউর হো গায়া’ ছবি দিয়ে বলিউডে আসেন ঐশ্বরিয়া। ছবিটি ফ্লপ হয়। অ্যাশের প্রথম বানিজ্যিক ছবি আসে এরপরের বছর, তামিল ছবি ‘জিন্স’এর সুবাদে। এরপর ১৯৯৯ ও ২০০২ সালে তিনি ‘হাম দিল দে চুকে সানাম’ ও ‘দেবদাস’-এর জন্য ফিল্মফেয়ার পুরস্কার জয় করেন।

  • অমিতাভ বচ্চন

বলিউডের শাহেনশাহ খ্যাত অমিতাভের ক্যারিয়ারও শুরু হয় ফ্লপ দিয়ে। সিনেমার নাম ‘সাত হিন্দুস্তানি’। মুক্তি পায় ১৯৬৯ সালে। কালক্রমে এই অ্যাঙরি হিরো ‘জাঞ্জির’, ‘দিওয়ার’ কিংবা ‘ডন’ বা ‘শোলে’র মত কালজয়ী ছবি উপহার দেন।

  • রানী মুখার্জী

বলিউডের অন্যতম প্রতিভাবান এই অভিনেত্রীর ক্যারিয়ার শুরু হয় জোড়া ফ্লপ দিয়ে। ১৯৯৬ সালে ‘রাজা কি আয়েগি বারাত’ দিয়ে শুরু। ১৯৯৮ সালে ‘ম্যাহেন্দি’ও ফ্লপ। যদিও একই বছরে তার অভিনীত ‘গুলাম’ কিংবা ‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’ সিনেমাগুলো ব্যবসায়িক সাফল্য পায়।

  • সাইফ আলী খান

১৯৯৩ সালে অভিষেক হয় বলিউডের ছোট নবাবের। প্রথম ছবি যশ চোপড়ার ‘পরম্পরা’। এই ফ্লপের রেশ কাটতে না কাটতেই একই বছর আরো দু’টি ব্যর্থতার মুখোমুখি হন তিনি। ছবিগুলো হল – ‘প্যাহচান’ ও ‘আশিক আওয়ারা’।

  • ক্যাটরিনা কাইফ

বলিউডে ক্যাটরিনা কাইফের শুরুটাও ফুলসজ্জা নয়। ২০০৩ সালে অনেকটা বি-গ্রেড একটা ছবি ‘বুম’ দিয়ে তাঁর শুরু। সিনেমাটিতে অমিতাভ বচ্চন ও গুলশান গ্রোভার থাকার পরও বক্স অফিসে সাফল্য পায়নি।

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।