তোমার স্ত্রী আর আমার বাচ্চাদের কী খবর?

অস্ট্রেলিয়ার গ্লেন ম্যকগ্রা ও জিম্বাবুয়ের এডো ব্র্যান্ডেসের মধ্যে সহজ সম্পর্ক ছিল না। একটা কথোপকথন শুনলেই বিষয়টা পরিস্কার হবে।

ম্যাকগ্রা: হাই, ব্র্যান্ডেস..তুমি এতো মোটা কেন?

ব্র্যান্ডেস: কারণ প্রতিবার তোমার স্ত্রীর সাথে শারীরিক মিলনের পর ও আমাকে বিস্কুট খেতে দেয়।

দক্ষিণ আফ্রিকার অন্যতম মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান ড্যারিল কালিনান বরাবরই লেগ স্পিনে একটু দুর্বল ছিলেন। অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে দক্ষিণ আফ্রিকার ম্যাচ, মাঠে নেমে ক্রিজের দিকে যাচ্ছেন ড্যারিল কালিনান।

এমন সময় পাশ থেকে অসি লেগ স্পিনার শেন ওয়ার্ন তাকে দেখে বললেন যে, গত দুই বছর ধরে তিনি নাকি অপেক্ষা করছেন কালিনানকে আরেকবার আউট করার জন্য। ওয়ার্নের শরীরের দিকে একবার তাকিয়ে কালিনানের জবাব, ‘মনে হচ্ছে এই সময়টা তুমি কেবল খেয়েই পার করেছ।’

অ্যন্ড্রু ফ্লিনটফকে কয়েকবার স্লগ সুইপ করতে ব্যর্থ হওয়ার পর তার সাথে টিনো বেস্টের কথোপকথন:

ফ্লিনটফ: কি টিনো? কি খবর?

টিনো বেস্ট: তোমার স্ত্রী আর আমার বাচ্চাদের কী খবর?

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলতে নেমেছেন পাকিস্তানের জাভেদ মিয়াঁদাদ৷ বোলার মার্ভ হিউজকে দেখে তিনি বললেন ‘মোটা বাস কন্ডাক্টর।’ কিন্তু কোন কিছু বললেন না হিউজ। একটু পর হিউজের বলে আউট হয়ে ফিরে যাচ্ছিলেন মিয়াঁদাদ। পাশ থেকে হিউজের টিপ্পনি, ‘টিকিট প্লিজ।’

তবে, স্লেজিং করতে গিয়ে হিতে বিপরীত হওয়ার নজিরও আছে।

২০০৩ সালে অষ্ট্রেলিয়া-ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যে চার টেস্ট সিরিজের চতুর্থ টেস্টের ঘটনা ( ভেন্যু- সেন্ট জোন্স)। এই সিরিজটির নাম ছিল ‘দ্য ফ্রাঙ্ক ওরেল ট্রফি’। প্রথম ইনিংসে অষ্ট্রেলিয়া ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ উভয়েরই সংগ্রহ ছিল ২৪০।

দ্বিতীয় ইনিংসে অষ্ট্রেলিয়া করে ৪১৭ রান। জয়ের জন্য ওয়েস্ট ইন্ডিজের করতে হবে ৪১৮। হাতে সময় দেড়দিনের মতো। চতুর্থ ইনিংসে এত রান তাড়া করে ম্যাচ জেতার রেকর্ড ছিল না।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটসম্যান রামনরেশ সারওয়ান তখন একেবারেই টগবগে তরুণ। বয়স মাত্র ১৭। বল করছিলেন গ্লেন ম্যাকগ্রা। কথায় কথায় ম্যাকগ্রা-সারওয়ানের একচোট হয়ে গেল। এরপর প্রতি বলেই সারওয়ানকে এটা সেটা বলতে লাগলো ম্যাকগ্রা।

সারওয়ান জবাব দিয়েছিলেন ব্যাটে। সারওয়ানের ১০৫ ও শিবনারায়ন চন্দরপলের ১০৪ রানে ভর করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সে ম্যাচটি জিতে এক রেকর্ড সৃষ্টি করে। এখনো এটিই চতুর্থ ইনিংসে সবেচেয়ে বেশি রান তাড়া করে ম্যাচ জয়ের রেকর্ড। ম্যাচটি ক্রিকেট অনুরাগী অনেকেরই মনে পড়তে পারে।

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।