‘সামনে পেলে শাহরুখকে একটা চড় মারতাম’

সালমান খানের সাথে একবার সামনা সামনি ব্যাপক বাকবিতণ্ডা বেঁধে গেল শাহরুখ খানের। যারা সামনে ছিলেন, তারা অনেক আটকানোর চেষ্টা করেন। ঝগড়া করতে করতে করতে নাকি একটা পর্যায়ে শাহরুখ ঐশ্বরিয়ার নাম নিয়ে আরো ক্ষেপিয়ে তোলেন সালমান খানকে। অ্যাশ তখন সালমানের জীবনের অতিত, ক’দিন হল বিয়ে করেছেন অভিষেক বচ্চনকে। তাই, সালমানকে চটিয়ে তোলার জন্য এই নাম নেওয়াই যথেষ্ট ছিল।

এই ঘটনা কানে আসে বচ্চন পরিবারেরও। তারাও তাই দুই খানের ওপর বেশ নাখোশ ছিলেন। জয়া বচ্চনকে গণমাধ্যম এই ব্যাপারে জিজ্ঞেস করে তিনি তেলে বেগুনে জ্বলে উঠে বলেন, ‘সামনে পেলে শাহরুখকে একটা চড় মারতাম।’

এমন বোমা ফাঁটানো ও বিতর্কিত মন্তব্য বলিউডে নতুন কিছু নয়। কেউ করেন, স্রেফ বাড়তি কিছু প্রচারণা পাওয়ার জন্য। আবার কখনো সত্যিকার অর্থেই সম্পর্কের এতটা অধ:পতন ঘটে যে, মুখ ফঁসকেই বের হয়ে যায় এমন কিছু মন্তব্য। এর মধ্যে বাছাইকরা কয়েকটা ঘটনা নিয়ে আমাদের আজকের এই আয়োজন।

  • জন আব্রাহাম – বিপাশা বসু

জন আর বিপাশার প্রেম কাহিনীর খবর কে না জানে। তবে, হঠাৎ করেই তাঁদের ছাড়াছাড়ি হয়ে যাওয়ার পর মুখ দেখাদেখি বন্ধ হয়ে যায়। পরে এক সাক্ষাৎকারে জনের ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে বিপাশা জবাব দেন, ‘দু:খিত, এই নামের কাউকে আমি চিনি না!’

  • কারিনা কাপুর – ঐশ্বরিয়া রায়

কারিশমা কাপুরের সাথে বাগদান হয়েও বিয়ে ভেঙে গিয়েছিল অভিষেক বচ্চনের। তখন থেকেই বচ্চন পরিবারের সাথে কাপুর পরিবারের সম্পর্ক ভাল নয়। ফলে, বচ্চন পরিবারের বউ ঐশ্বরিয়া রায়ের সাথে কারিনা কাপুরের সম্পর্কটা যে খুব সুবিধার হবে না, তা তো না বলে দিলেও চলে।

কারিনা একবার অ্যাশের প্রসঙ্গে বলেছিলেন, ‘আসলে আমাদের মধ্যে তুলনা করা ঠিক নয়। আমরা তো দু’টি ভিন্ন প্রজন্ম থেকে এসেছি।’ এই সামান্য কথাটাই অনেক বিতর্ক ছড়ায়। কারণ, নিন্দুকেরা বলেন, বেবোর এই বক্তব্যেই বোঝা যায় অ্যাশকে তিনি অনেক ‘বুড়ি’ বলে মনে করেন।

  • সাইফ আলী খান – নাটালি পোর্টম্যান

ছোটে নবাব মজা করে বলেছিলেন তিনি হলিউড অভিনেত্রী নাটালি পোর্টম্যানের সাথে একটি সিনেমায় কাজ করতে যাচ্ছেন। তবে, এই ‘তামাশা’টা সহজভাবে নেননি পোর্টম্যান। তিনি রীতিমত সাইফকে লিগাল নোটিশ পাঠান। সাইফ অবশ্য পরবর্তীতে ক্ষমা চেয়ে বিষয়টা ধামাচাপা দেন।

  • ক্যাটরিনা কাইফ – রাহুল গান্ধী

এক সাক্ষাৎকারে ক্যাট বলেন, ‘আমি হাফ-এশিয়ান। কিন্তু এই নিয়ে লজ্জিত হওয়ার কোনো মানেই হয় না। রাহুল গান্ধীও তো অর্ধেক ভারতীয়, অর্ধেক ইতালিয়ান। তাতে কি আসে যায়? এটাতে গৌরব ক্ষুন্ন হওয়ার কিছু নেই। কেন এই নিয়ে আলোচনা হয় তাও আমি বুঝি না। এমনই যদি হত, তাহলে আমার মা যে ব্রিটিশ সেই তথ্যটাই তো আমি লুকিয়ে ফেলতাম।’

ভারতের কনগ্রেস পার্টি এই বক্তব্যের কড়া জবাব দেয়। পার্টির মুখপাত্র মানিষ তিওয়ারি টুইটারে লেখেন, ‘ইনি কে? আমি তাকে চিনি না। মনে হচ্ছে কাল জনি লিভারের কোনো বক্তব্যের প্রেক্ষিতেও আমাদের জবাব দিতে হবে। এদেশের রাজনীতিকে আর কত নিচে নামাতে চান আপনারা?’

  • প্রিয়াঙ্কা চোপড়া – আশুতোষ গোয়ারিকর

আইফা পুরস্কার দিতে এসে চলচ্চিত্র নির্মাতা আশুতোষ গোয়ারিকর বলে বসেন, ‘প্রিয়াঙ্কা তোমাকে আমি পছন্দ করি। কিন্তু আমি বুঝলাম না তুমি কি করে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার পেলে যখন একই ক্যাটাগরিতে যোধা আকবর সিনেমার জন্য ঐশ্বরিয়া রায়ও মনোনয়ন পেয়েছে।’ বক্তব্যটা যথেষ্ট আপত্তিজনক, কারণ ফ্যাশন সিনেমার জন্য সেবার অসংখ্য পুরস্কারের সাথে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও যায় প্রিয়াঙ্কার দখলে।

– বলিউডবাবল অবলম্বনে

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।