ছাপাক: একটি অতিমানবীয় রূপান্তরের গল্প

২০১৮ সালে সঞ্জয় লীলা বনসালীর আলোচিত এবং সুপার ডুপার হিট ‘পদ্মাবত’ সিনেমায় রানী পদ্মাবতীর চরিত্রে অসাধারণ অভিনয় উপহার দেবার পরে একবছরের বিরতির নিয়ে এবার নতুন সিনেমার শ্যুটিং শুরু করতে যাচ্ছেন বলিউডের এই সময়ের সুপারস্টার দীপিকা পাডুকোন। গত বছরের অন্যতম আলোচিত এবং ব্যবসাসফল সিনেমা ‘রাজি’র পরিচালক  মেঘনা গুলজারের পরিচালনায় এসিড আক্রান্ত লক্ষ্মী আগরওয়াল নামে এক নারীর সত্য ঘটনা অবলম্বনে নির্মিত৷ হতে যাওয়া সিনেমা ‘ছাপাক’ দিয়ে ফিরছেন দীপিকা।

আজ শ্যুটিং শুরুর আগেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই সিনেমায় দীপিকার লুক প্রকাশ করা হয়েছে। যা দেখে চমকে গেছে ভক্ত, সমালোচক থেকে শুরু করে সাধারন দর্শকেরা। এসিড আক্রান্ত দীপিকাকে চেনাই যাচ্ছেনা। প্রশংসা এবং অভিনন্দন কুড়াচ্ছে দীপিকা এবং তার টিম। পরিচালক মেঘনা বলেই দিয়েছেন, ‘এই চরিত্রে দীপিকা ছাড়া আর অন্য কেউ অভিনয় করতেই পারতোনা।’ আসলেই তাই ‘মালতী’ চরিত্রে দীপিকা যে বড় পর্দায় ঝড় তুলবেন তা এখনই বলে দেয়া যায় অনায়াসে।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে মেঘনা জানান, ‘বলিউডের কমার্শিয়াল সিনেমার জনপ্রিয় নায়িকা দীপিকার কাছে ছাপাকের কাহিনী নিয়ে যখন আমি যাই তখন  মনে সংশয় ছিল যে, দীপিকা এত বড় রিস্ক নিবেন কিনা! কেননা বলিউডের বানিজ্যিক সিনেমার এক নাম্বার নায়িকা অল্প বাজেটের এত সেনসেটিভ ইস্যু নিয়ে কোন সিনেমায় আদৌ অভিনয় করবেন কিনা তা নিয়ে মেঘনা এবং তার টিম যথেষ্ট সন্দিহান ছিল। কিন্তু কাহিনী শুনেই দীপিকা এক কথায় রাজি হয়ে যান। সেটি কোন চমকের চেয়ে কম ছিলনা আমাদের জন্য।’

সিনেমাটি কেমন হতে যাচ্ছে, সেই ব্যাপারে খোলাসা করেছেন দিপীকা। তিনি বলেন, ‘বাজিরাও মাস্তানি, পদ্মাবত সিনেমায় কঠিন এবং জমকালো ঐতিহাসিক দুটি চরিত্রে অভিনয় করার পরে আমি হালকা কিন্তু চ্যালেঞ্জিং কিছু করতে চেয়েছিলাম। যা আমাকে নতুন করে দর্শকদের সামনে নিয়ে আসবে। যদিও আমার কাছে ‘ছাপাক’ সিনেমার গল্প হালকা বা সিম্পল মনে হয়নি। কিন্তু পুরো কাহিনী পড়ার পর আমার মনে হয়েছে এরকম কিছু করার জন্যই আমি অপেক্ষা করছিলাম। ‘ছাপাক’ অ্যাসিড সহিংসতার উপর ভিত্তি করে নির্মিত হয়েছে। স্ক্রিপ্ট নিয়ে আমরা বারবার বসেছি, রিহার্সাল করেছি। সেই আক্রান্ত মেয়েটির সাথে ব্যক্তিগত ভাবে অনেক সময় কাটিয়েছি যা আমার মধ্য অনেক পরিবর্তন নিয়ে এসেছে। জীবনটা যে শত বাধা-বিপত্তির পরেও এগিয়ে নিয়ে যেতে হয় শক্তভাবে তা আমাকে এই সিনেমা নতুন করে শিখিয়েছে। আশাকরি দর্শকরা হতাশ হবেন না।’

ছপাকের দীপিকার চরিত্রটির নাম মালতি। তার বিপরীতে অভিনয় করছেন ছোট পর্দার দক্ষ অভিনেতা বিক্রম মেসিত। কিছুদিন আগে জনপ্রিয় ওয়েব সিরিজ ‘মির্জাপুর’-এ অভিনয় করে ব্যাপক আলোচিত এবং জনপ্রিয়তা লাভ করেন তিনি। লক্ষ্মী আগারওয়ালের বাস্তব জীবনসাথী অলোক দীক্ষিতের চরিত্রে তাকে দেখা যাবে।

একেতো মেঘনা গুলজারের পরিচালনায় অভিনয় করার সুযোগ, তাঁর উপর দীপিকার মতো জনপ্রিয় এবং সফল অভিনেত্রীর সাথে স্ক্রিন শেয়ার তাই স্বাভাবিকভাবেই উচ্ছ্বসিত বিক্রম। প্রথমে এই চরিত্রে ভিকি কৌশলের অভিনয় করার কথা থাকলেও শিডিউল জটিলতার কারণে সেটা হয়ে ওঠেনি, সুযোগ মেলে বিক্রমের।

নির্মাতা মেঘনা গুলজার

অভিনয়ের সাথে সাথে মেঘনা গুলজারের সাথে মিলে এই সিনেমাটি প্রযোজনাও করছেন দীপিকা। নিজের প্রযোজিত প্রথম সিনেমা,এর ওপর এক বছরের বেশি বিরতি দিয়ে বিয়ের পর প্রথম সিনেমা তাই দীপিকাও কোন কমতি রাখতে চাচ্ছেন না এই সিনেমার মধ্যে।

‘ফার্স্ট লুক’ দেখেই বোঝা যাচ্ছে, ছবিটির জন্য নিজেকে আমূল বদলে ফেলেছেন দিপীকা। আগামী বছরের জানুয়ারির ১০ তারিখে মুক্তি পাবার কথা রয়েছে ‘ছাপাক’ সিনেমার। সেই সময় পর্যন্ত ভক্তদের অপেক্ষা করতেই হচ্ছে।

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।