বাগদান হয়েছিল, বিয়ে হয়নি

বিয়ের আগে প্রেম করে আরেকজনের সাথে সম্পর্কে জড়ানোর অকে নজীর আছে বলিউডে। এর মধ্যে কিছু সম্পর্কের ক্ষেত্রে বাগদানও হয়েছিল। বিয়ের দিনক্ষণও ঠিক হয়, যদিও শেষ মুহূর্তে কোনো এক বিশেষ কারণে বিয়েটা আর হয়নি। দু’জনের রাস্তা হয়ে যায় আলাদা।

  • রাবিনা ট্যান্ডন ও অক্ষয় কুমার

এই সম্পর্কে কোনো লুকোছাপা ছিল না। তিন বছর টিকে ছিল প্রেম। এক সাক্ষাৎকারে  রাবিনা বলেছিলেন, এক মন্দিরে অক্ষয়ের সালে লুকিয়ে বাগদান সম্পন্ন করেছিলেন তিনি। অক্ষয় জনপ্রিয়তা কমে যাওয়ার ভয়ে বাগদানের কথা গোপন রাখতে চেয়েছিলেন। যদিও, এরপর অক্ষয়ের জীবনে শিল্প আসেন ও রাবিনার সাথে ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। যদিও, অক্ষয় পরবর্তীতে রাজেশ খান্না ও ডিম্পল কাপাডিয়ার কন্যা টুইঙ্কল খান্নাকে বিয়ে করেন।

  • অভিষেক বচ্চন ও কারিশমা কাপুর

এই সম্পর্ক ও তাঁদের বিয়ে বিষয়ক আলাপ তখন ভারতীয় গণমাধ্যমে রীতিমত আলোচনার ঝড় তুলছিল। অভিষেকের প্রথম সিনেমার সময়ও কারিশমার বোন কারিনা কাপুর অভিষেককে প্রায়ই ‘জিজু’ বলে ডাকতেন। বাগদানও হয়ে যায়। কারিশমার মা অবশ্য সেই সম্পর্কের বিরোধী ছিলেন।  তাঁর অভিষেককে পছন্দ ছিল না। কারণ, অভিষেকের ক্যারিয়ারের শুরুর দিকের সিনেমাগুলো মার খাচ্ছিল বক্স অফিসে। তাই নিজের সন্তানের ভবিষ্যৎ নিয়ে উদ্বিগ্ন ছিলেন তিনি। পরে অবশ্য অভিষেক বিশ্ব সুন্দরী ও হলিউড-বলিউড তারকা ঐশ্বরিয়া রায়কে বিয়ে করেন।

  • জীতেন্দ্র ও হেমা মালিনি

বাগদত্তা শোভা কাপুরের সাথে ছাড়াছাড়ি হওয়ার পর জীতেন্দ্র’র সাথে হেমা মালিনির বিয়েটা নিশ্চিতই ছিল। যদিও, এর মধ্যে ধর্মেন্দ্র চলে আসেন। এখন হেমার স্বামী ধর্মেন্দ্র। আর জীতেন্দ্র ফিরেছেন শোভা’র কাছে।

  • সালমান খান ও সঙ্গীতা বিজলানি

ভাইজানের সাথে সঙ্গীতার প্রেম খুব গভীর ছিল। দু’জনে বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন, বিয়ের কার্ডও ছাপা হয়ে যায়। ওই সময়ে সালমানের জীবনে আসেন সোমি আলী, বিদায় নেন সোমি আলী। এরপর সাল্লু ভাই ঐশ্বরিয়া রায়, দিয়া মির্জা, আমিশা প্যাটেল কিংবা ক্যাটরিনা কাইফ – অনেকের সাথেই সম্পর্কে জড়ান। সঙ্গীতার সাথে জ্যাকি শ্রফের সম্পর্ক ছিল। পরে তিনি সাবেক ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মোহাম্মদ আজহারউদ্দিনকে বিয়ে করেন। অনেকদিন টিকে থাকার পর সেই সংসারও ভেঙে যায়।

  • বিবেক ওবেরয় ও গুরপ্রিত গিল

২০০০ সাল থেকে বিবেক ওবেরয়ের সাথে গুরপ্রিতের সম্পর্ক। ২০০২ সালে বলিউডে বিবেকের অভিষেকের আগেই তাঁদের বাগদান হয়। যদিও, খুব বাজে ভাবে সম্পর্কের ইতি ঘটে তাঁদের। দু’জনেরই দাবী তাঁরা যথেষ্ট পরিমানে অন্যজনের কাছ থেকে সমর্থন পান না।

  • নিল নিতিন মুকেশ ও প্রিয়াঙ্কা ভাটিয়া

দু’বছর চুটিয়ে প্রেম করার পর ফ্যাশন ডিজাইনার প্রিয়াঙ্কার সাথে বাগদান হয় নিলের। তবে, এরপরই  ‍দু’জনের মতের অমিল দেখা যায়। ব্যাস তাতেই আলাদা হয়ে যায় দু’জনের রাস্তা।

  • গওহর খান ও সাজিদ খান

গওহর খান তখন মডেল। ২০০৩ সালে বলিউডের পরিচালক সাজিদ খানের সাথে তাঁর বাগদান হয়। যদিও কিছু বিশেষ কারণে তাঁদের সম্পর্ক ভেঙে যায়। সাজিদ খানের সাথে পরবর্তীতে জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজের সম্পর্ক ছিল। যদিও সেটা টিকেনি।

– বলিবাইটস.কম অবলম্বনে

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।