সাবধান! সিনেমাগুলো নিষিদ্ধ!

বলিউডে এখন অনেক সাহসী সিনেমা নির্মিত হয়। সেন্সর বোর্ড আটকে দিতে পারে এমনটা আগেই বুঝে ফেলে অনেকে সিনেমাটিতে ওয়েবে বা নেটফ্লিক্সে মুক্তি দেয়। তাতে ব্যবসায়িক দিক থেকে খুব বেশি পতনের মুখে পড়তে হয় না। তবে, কিছুদিন আগেও বিষয়গুলো এতটা সহজ ছিল না। তাই তো, অসংখ্য সম্ভাবনায় ভারতীয় সিনেমাগুলো এর বিষয়বস্তু’র কারণে কোনোদিন মুক্তিও পায়নি।

  • ব্যান্ডিট কুইন

ডাকাত সর্দার থেকে সংসদের সদস্য বনে যাওয়া ফুলন দেবীর জীবনের ওপর ভিত্তি করে নির্মিত সিনেমা। শেখর কাপুরের সিনেমায় নাম চরিত্রে ছিলেন সিমা বিশ্বাস। অনেক বেশি অকথ্য ভাষা ব্যবহার স্বয়ং ফুলন দেবীর আপত্তির প্রেক্ষিতে সিনেমাটি নিষিদ্ধ করা হয়। যদিও পরে ‍মুক্তি পেয়ে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ও ফিল্মফেয়ার পুরস্কার পায় ‘ব্যান্ডিট কুইন’।

  • ব্ল্যাক ফ্রাইডে

ভারতীয় এই ক্রাইম সিনেমাটির রচনা ও পরিচালনায় ছিলেন অনুরাগ কাশ্যপ। ‍মুম্বাই বোম ব্লাস্টের ওপর ভিত্তি করে সিনেমাটি নির্মান করা হয়। এতটাই বিতর্কের জন্ম দেয় যে তিন বছর যাবৎ সিনেমাটি ভারতে মুক্তি দেওয়া সম্ভব হয়নি। পরে সুপ্রিম কোর্টের বিশেষ আদেশে সিনেমাটি মুক্তি পায়।

  • ডেজড ইন দুন

সিনেমাটির নির্মাতা আশভিন কুমার।  তিনি কৈশোরে ছিলেন দেহরাদুনের দ্য দুন স্কুলের শিক্ষার্থী। নিজের স্কুলের প্রযোজনাতেই তিনি সিনেমাটি বানান। যদিও, সিনেমা বানানোর পর স্কুল কর্তৃপক্ষ দাবী করে, সিনেমাটি মুক্তি পেলে স্কুলেরেই নাম খারাপ হবে। ফলে, সিনেমাটি আদৌ আর মুক্তি পায়নি।

  • ফিরাক

২০০২ সালে গুজরাটের হিন্দু মুসলমান দাঙ্গার ওপর ভিত্তি করে নির্মিত হয় পলিটিক্যাল থ্রিলার ‘ফিরাক’। নন্দিত নির্মাতা নন্দিতা দাসের প্রথম সিনেমা এটি। বিতর্ক ছড়ানোর কারণে সিনেমাটি নিষিদ্ধ করা হয়। বছর খানেক বাদে মুক্তি পাওয়ার পর সিনেমাটি বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক পুরস্কারসহ দু’টি ক্যাটাগরিতে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করে।

  • ফায়ার

দিপা মেহতা নির্মিত রোম্যান্টিক ড্রামায় অভিনয় করেন শাবানা আজমী ও নন্দিতা দাস। এটা ভারতের ইতিহাসের প্রথম সিনেমা যেখানে দুই নারীর সমকামী সম্পর্ককে তুলে ধরা হয়। এই নিয়ে বিতর্কের জের ধরে দু’বছর সিনেমাটি মুক্তি দেওয়া যায়নি।

  • ইনশাল্লাহ, ফুটবল

আশভিন কুমার নির্মিত আরেকটি সিনেমা। প্রযোজনায় ছিলেন জাভেদ জাফরি। সিনেমাটি কাশ্মীরের এক তরুণ ফুটবলারকে নিয়ে নির্মিত, বাবা যুদ্ধরত থাকায় তাঁকে বিদেশ যেতে দেওয়া হয়না। সিনেমাটি এর স্পর্শকাঁতর বিষয়বস্তুর কারণে নিষিদ্ধ করা হয়।

  • পাঞ্চ

অনুরাগ কাশ্যপের আরেকটি ক্রাইম। বিভৎষতা, মাদকাসক্তি ও অকথ্য ভাষার কারনে সেন্সর বোর্ড সিনেমাটি আটকে দেয়। ২০০১ সালে সিনেমাটি ছাড়পত্র পেলেও প্রযোজক টুটু শর্মার ব্যক্তিগত জটিলতায় সিনেমাটি আদৌ কখনো প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায়নি। পরে কয়েকটি ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে সিনেমাটি দেখানো হয়।

  • পারজানিয়া

রাহুল ঢোলাকিয়া নির্মিত সিনেমায় শীর্ষ চরিত্রে অভিনয় করেছেন নাসিরুদ্দিন শাহ ও শারিকা। ১০ বছর বয়সী পার্সি শিশু আজহার মোদির সত্যিকারের গল্প নিয়ে সিনেমাটি বানানে। ২০০২ সালে গুজরাটের সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা এর সাথে জড়িয়ে ছিল বলেই সিনেমাটি প্রথমে ফেস্টিভ্যাল বাদে মুক্তি দেওয়া সম্ভব হয়নি। বছর দুয়েক অপেক্ষার পর ২০০৭ সালে সিনেমাটি মুক্তি পায়।

  • দ্য পিংক মিরর

ভারতের তৃতীয় লিঙ্গর জীবন নিয়ে শ্রীধর রঙ্গায়নের সিনেমাটি আটকে দেয় ভারতের সেন্ট্রাল বোর্ড অব ফিল্ম সার্টিফিকেশন (সিবিএফসি) বা সেন্সর বোর্ড। তাঁদের দাবি ছিল সিনেমাটি বিভৎষ ও নেতিবাচক। তাই বিশ্বব্যাপী অনেক ফেস্টিভ্যালে সিনেমাটি দেখানো হলেও ভারতে কখনো মুক্তি দেওয়া হয়নি।

  • উরফ প্রফেসর

পঙ্কজ আদভানির পরিচালনায় সিনেমাটিতে অভিনয় করেছেন মনোজ পাহওয়া, অন্তরা মালি ও শারমান জোশি। সাহসী দৃশ্যের কারণে এই ব্ল্যাক কমেডি সিনেমাটি নিষিদ্ধ করা হয় ভারতে।

  • ওয়াটার

কানাডিয়ান এই সিনেমাটির নির্মাতা দিপা মেহতা। স্ক্রিনপ্লে করেছেন অনুরাগ কাশ্যপ। ছবির প্লট ১৯৩৮ সালের। বানারসের বিধবা আশ্রমের গল্প বলা হয়েছে এই সিনেমায়। ছবির বিতর্কিত বিষয়বস্তুর কারণে এটা নিষিদ্ধ করা হয়।

  • সিনস

বিনোদ পান্ডের পরিচালনা ও প্রযোজনায় নির্মিত সিনেমায় শীর্ষ চরিত্রে ছিলেন শাইনি আহুজা। এখানে এক তরুণীর সাথে এক ক্রিশ্চিয়ান পাদ্রির রোম্যান্টিক সম্পর্ক দেখানো হয় ন। ক্যাথোলিজমকে নেতিবাচক ভাবে দেখানোর দায়ে সিনেমাটি নিষিদ্ধ হয়।

  • আনফ্রিডম

রাজ অমিত কুমারের সিনেমা। দুই সমকামী নারীর গল্পটি বিষয়বস্তুর কারণে নিষিদ্ধ হয় ভারতে। যদিও, ২০১৫ সালে সিনেমাটি উত্তর আমেরিকায় মুক্তি পায়।

  • কামাসুত্র

মিরা নায়ারের রচনা ও পরিচালনায় নির্মিত ঐতিহাসিক রোম্যান্টিক সিনেমা। ১৯৯৬ সালের এই ছবিতে ছিলেন রেখা, ইন্দিরা ভার্মা ও নাভিন অ্যান্ড্রু। মাত্রাতিরিক্ত যৌন আবেদনের কারণে সিনেমাটি ভারতে নিষিদ্ধ হয়। যদিও, ইউটিউবে এই সিনেমাটির ট্রেইলারই দেখা হয়েছে ৯১ মিলিয়ন বার।

– বলিউড বাবল অবলম্বনে

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।