সেরা তারকার সবচেয়ে বাজে কাজ!

প্রত্যেকটা মানুষই নিজেদের ভুল থেকে শিক্ষা নেয়। একই ভুল আবারো না করার চেষ্টা করে সবাই। বলিউডের তারকারাও এর ব্যতিক্রম নয়। এই ইন্ডাস্ট্রিতে সেরা মানের ছবি যেমন হয়, তেমনি অনেক বস্তাপচা নির্মানও দেখা যায়। সেরা তারকাদের কেউ কেউই এমন কিছু বাজে ছবি করেছিলেন। সেরা তারকাদের তেমনই কিছু নিকৃষ্টতম ছবির কথা বলবো আজ।

  • প্রিয়াঙ্কা চোপড়া – লাভ স্টোরি ২০৫০ (২০০৮) 

তখন হারমান বাওয়েজার সাথে সম্পর্ক ছিল প্রিয়াঙ্কার। তাই প্রেমিকের অভিষেক ছবিতে প্রিয়াঙ্কা নিজেও ছিলেন বড় চরিত্রে। যদিও, তাতেও কাজ হয়নি। ছবি ও বাওয়েজার ক্যারিয়ার – কোনোটাই বিকশিত হয়নি। আজকের দিনে প্রিয়াঙ্কা আন্তর্জাতিক তারকা। এখন নিশ্চয়ই ছবিটির কথা মনে পড়লে মনে মনে হাসেন সাবেক এই বিশ্বসুন্দরী।

  • অমিতাভ বচ্চন – রাম গোপাল ভার্মা কি আগ (২০০৫)

‘শোলে’ ছবির রিমেক করার অর্থই হল আগুন নিয়ে খেলা করা। নির্মাতা রাম গোপাল ভার্মার চেষ্টা আইএমডিবির রেটিংয়ে ১০-এ পেয়েছে ১.৭। মূল ছবির ‘জয়’ মানে অমিতাভ এখানে ডাকাত সর্দার বাব্বান সিং। ছবিটি হিন্দি ছবির ইতিহাসেই অন্যতম বাজে ছবি হিসেবে পরিচিত। মালায়ালাম কিংবদন্তি মোহনলাল কিংবা অজয় দেবগন – কেউই ছবিটির পতন আটকাতে পারেননি।

  • কারিনা কাপুর – খুশি (২০০৩)

যদিও, কারিনা কাপুর ‘খুশি’ ছবিটি করার সময় আজকের মত বিরাট তারকা ছিলেন না। তারপরও ফ্লপ তারকা ফারদিন খানের বিপরীতে তাঁর এই ভুতুড়ে স্টোরিলাইনের ছবিটির জন্য নিশ্চয়ই নবাবপত্নী আজো আফসোস করেন।

  • হৃতিক রোশন – আপ মুঝে আচ্ছে লাগনে লাগে (২০০২)

হৃতিকের দারুণ একটা চেহারা আছেন, বিরাট মাপের অভিনেতা, সিক্স প্যাক শরীর, সফল নির্মাতা রাকেশ রোশন তাঁর বাবা। এত গুণ থাকার পরও তিনি কেন যে ছবিটা করতে গিয়েছিলেন – সেটা আজো এক বিরাট রহস্য। বিক্রম ভাটের নির্মানে ছবিটিতে হৃতিকের বিপরীতে ছিলেন আমিশা প্যাটেল।

  • রণবীর কাপুর – বেশরম (২০১৩)

এই ছবিটার জন্য আজীবন হয়তো আফসোস করবেন রণবীর। যিনি ‘রকস্টার’, ‘বারফি’ বা ‘সাঞ্জু’র মত ছবি করতে পারেন তিনি কি করে ‘বেশরম’ করতে গেলেন? – এই প্রশ্নের জবাব আদৌ পাওয়া যাবে না।

  • সালমান খান – দিল নে জিসে আপনা কাহা (২০০৪)

সালমান খানের উপস্থিতিই ছবিটির ব্যবসায়িক সাফল্যের জন্য যথেষ্ট ছিল। যদিও, কোনো যৌক্তিক ব্যাখ্যা পাওয়া যায় না যে ছবিটিতে প্রীতি জিনতা ও ভূমিকা চাওলার সাথে ঠিক কি করছিলেন তিনি।

– মেনএক্সপি অবলম্বনে

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।