টলিউড ২০১৯: সেরা ১০ ছবি

নব্বই দশকের ব্যর্থতা কাটিয়ে এই যুগে নিজেদের হারানো সুনাম ফিরে পেয়েছে কলকাতার ছবি। ভারতের অন্যান্য আঞ্চলিক ফিল্ম ইন্ড্রাস্ট্রিগুলোর সাথে সমান তালে এগোচ্ছে তারা। আর সেই এগিয়ে যাওয়া অব্যহত ছিল ২০১৯ সালেও। তারই মধ্য থেকে সেরা ১০ টি ছবি নির্বাচন করেছে অলিগলি.কম।

  • দুর্গেশগরের গুপ্তধন

সোনাদা সিরিজের দ্বিতীয় কিস্তি। ধ্রুব বন্দোপাধ্যায়ের পরিচালনায় আবির চট্টোপাধ্যায়, ঈশা সাহা, অর্জুন চক্রবর্তী, কৌশিক সেন, খরাজ মুখোপাধ্যায়, লিলি চক্রবর্তীরা প্রশংসা কুড়িয়েছেন। বাংলার ফেলে আসা ইতিহাস এবং প্রাচীন স্থাপত্যের চোখ ধাঁধানো সমাহার, সাথে রহস্য আর রোমাঞ্চ তো আছেই।

  • পরিণীতা

রাজ চক্রবর্তীর ছবি ‘পরিণীতা’ ছিল কলকাতায় চলতি বছরের অন্যতম আলোচিত ছবি। নায়িকা শুভশ্রী সম্ভবত এই ছবিতে নিজের ক্যারিয়ারের সেরা অভিনয় করেছেন, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়ে গেলেও অবাক হওয়ার কিছু নেই। ভালবাসা, অপ্রাপ্তি ও প্রতিশোধের গল্পতে নিজের সাফল্যের ধারাবাহীকতা ধরে রেখেছেন ঋত্বিক চক্রবর্তী।

  • মহালয়া

‘মহালয়া’ কে ঐতিহাসিক ছবি বলা যায়, আবার বায়োপিকও বলা যায়। বীরেন্দ্র কৃষ্ণ ভদ্র ও উত্তম কুমারের চরিত্রে যথাক্রমে শুভাশিষ মুখোপাধ্যায় ও যীশু সেনগুপ্ত ছিলেন অনন্য। নেতিবাচক চরিত্রে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ও ভাল করেছেন। প্রতিটা সংলাপে বাংলা ও বাঙালির ইতিহাস তুলে ধরেছেন নির্মাতা সৌমিক সেন।

  • গুমনামি

নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুকে নির্মিত ছবিতে কেন্দ্রীয় চরিত্রে ছিলেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। সৃজিত মুখোপাধ্যায় ও তার দলের গবেষণা ছবিটিতে বোঝা গেছে। নেতাজীর অন্তর্ধান রহস্যের তিনটি সম্ভাব্য সমাধানের কথা বলেছেন তাঁরা।

  • কণ্ঠ

নন্দিতা রায় এবং শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় জুটির ছবি। শিবপ্রসাদ নিজে চলচ্চিত্রটির প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন। এর বাদে পাওলি দাম ও জয়া আহসান হয়েছেন প্রশংসিত। এটা একজন ক্যান্সার আক্রান্ত রোগী ও তাঁর নির্ভয় চিত্তের গল্প।

  • বর্ণ পরিচয়

মৈনাক ভৌমিকের সাসপেন্স থ্রিলার ছবি ‘বর্ণ পরিচয়’। বাংলা চলচ্চিত্র জগতের দুই বিখ্যাত অভিনেতা ও আলোচিত দুই ব্যোমকেশ বক্সী আবির চট্টোপাধ্যায় ও যিশু সেনগুপ্তকে প্রথমবারের মত এক সাথে কাজ করতে দেখা গেছে। আরো ছিলেন প্রিয়াঙ্কা সরকার।

  • ভিঞ্চি দা

সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের আরেক সৃষ্টি ‘ভিঞ্চি দা’। রুদ্রনিল ঘোষ, ঋত্বিক চক্রবর্তী, অনিরবান ভট্টাচার্য, রিদ্ধি সেন, গৌতম মৈত্র এবং সোহিনী সরকার অভিনীত ছবিটি পুরোদস্তর থ্রিলারে ভরপুর। নির্মাতা আবারো তাঁর নিজস্বতা বজায় রেখেছেন।

  • জ্যেষ্ঠপুত্র

ঋত্বিক চক্রবর্তী যে নিজেকে সময়ে অন্যতম সেরা অভিনেতা বানিয়ে ফেলেছেন, তার প্রমাণ মিলেছে এই ছবিতে। কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায় নির্মানে দেখিয়েছেন মুন্সিয়ানা। দুই ভাইয়ের টানাপোড়েনের মধ্যে দিয়ে প্রছন্নভাবে ঢুকে পড়ে এক সুপারস্টার ও আরেক ছাপোষা নাটকের অভিনেতার ব্যক্তিত্বের সংঘাত ৷ ঋত্বিক ও প্রসেনজিতের লড়াইটা ছিল উপভোগ্য।

  • টেকো

ঋত্বিক চক্রবর্তী’র আরেকটা ছবি। এটা অবশ্য সিরিয়াস কোনো ছবি নয়। অকালে চুল পড়ে গেলে বিজ্ঞাপনের ট্যাগ লাইন থেকে বাড়ির টোটকা, সবকিছু উপায় আঁকড়ে ধরার চেষ্টা করে মানুষ। কিন্তু টাক থেকে মুক্তি কি আদৌ মেলে? এবার চিরাচরিত এই সমস্যা নিয়ে ছবি তৈরি করছেন পরিচালক অভিমন্যু মুখোপাধ্যায়।

  • মুখার্জী দার বউ

এটা যেন আমাদের নিজেদেরই একটা গল্প। প্রতিটি বাড়ির অন্দরমহলেই লুকিয়ে আছেন একেকজন ‘মুখার্জী দা’র বউ’। শাশুড়ি-বৌমা জুটির এই পারিবারিক ছবিটি নির্মান করেছেন পরিচালক পৃথা চক্রবর্তী। বাঙালির আবেগ মাখা ছবিটিতে অভিনয় করেছেন অনসূয়া, কনীনিকা, ঋতুপর্ণা, বিশ্বনাথ, অপরাজিতারা।

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।