বলিউড ২০১৯: সেরা ১০ ছবি

শুরুটা যত ঘটা করে হয়েছিল, শেষটা কি আদৌ ততটা ইতিবাচক হল বলিউডের জন্য? ২০১৯ সালে বছরের প্রথম অর্ধেকটা সময় যে প্রত্যাশাকেও ছাড়িয়ে গিয়েছিল ভারতের হিন্দি ছবি। পরের অর্ধতেও সাফল্য আছে, কিন্তু শুরুর সেই অভাবনীয় প্রশংসা আর ছিল না। এরই মধ্যে থেকে অলিগলি.কম বেছে নিয়েছে সেরা ১০ টি ছবি। শ্রেষ্ঠত্বের দিক থেকে ১০ থেকে ১ – এই ক্রমানুসারে ছবিগুলো সাজানো হল।

  •  বাটলা হাউজ

পুলিশ বা স্পাই থ্রিলারে নিজের আলাদা একটা জায়গা আগেই তৈরি করেছেন জন আব্রাহাম। আর এই বছর নিজের সেই জায়গাটাতে আরো সমৃদ্ধ করলেন তিনি। ২০০৮ সালের ‘বাটলা হাউজ এনকাউন্টার’-এর ওপর নির্মিত ছবিতে জন চেষ্টার কমতি রাখেননি। নির্মাতা নিখিল আদভানির ছবিটা দর্শক মহলেও পেয়েছে প্রশংসা।

  • ওয়ার

বছরের সবচেয়ে ব্যবসাসফল ছবি। হৃতিক রোশন আর টাইগার শ্রফের জুটি দর্শকরা লুফে নিয়েছেন। অ্যাকশনে ভরপুর এই ছবিটি এক মুহূর্তের জন্যও আপনাকে ‘বোর’ করবে না। সিদ্ধার্থ আনন্দের নির্মানে ছবির সঙ্গীতও ছিল দারুণ।

  • মিশন মঙ্গল

 

ভারতের মঙ্গল গ্রহে পদার্পনের সত্যি ঘটনার ওপর ভিত্তি করে নির্মিত ছবি। কেন্দ্রীয় চরিত্রে অক্ষয় কুমার দারুণ ছিলেন। সহ-অভিনেত্রী হিসেবে ছিলেন পাঁচ নায়িকা। বিদ্যা বালান, সোনাক্ষী সিনহা ও তাপসি পান্নুদের উপস্থিতির পরও সবটুকু আলো কেড়েছেন অক্ষয়ই। ভারতীয় আবেগকে সম্পূর্ণ রূপে তুলে ধরতে পেরেছে ছবিটি।

  • কবির সিং

বছরের অন্যতম আলোচিত ও সমালোচিত ছবি। দর্শক মহল সাদরে যে ছবিটিকে গ্রহণ করেছে সেটা না বলে দিলেও চলে। বক্স অফিস থেকে ছবিটির আয় প্রায় ৩৮০ কোটি রুপি। যদিও, নারীবাদিরা সন্দীপ রেড্ডি ভাঙ্গা পরিচালিত ছবিটির স্টোরিলাইন নিয়ে তীব্র আপত্তি জানিয়েছেন। তবে, যাই হোক না কেন অভিনেতা হিসেবে এই ছবিটি দিয়ে নিজেকে আরো এক ধাপ ওপরে নিয়ে গেছেন শহীদ কাপুর।

  • সেকশন ৩৭৫

পুরোদস্তর কোর্টরুম সাসপেন্স। একটা ধর্ষণের মামলা নিয়ে ছবির গল্প সাজানো হয়েছে। পুরোটা সময় জুড়ে ছবিতে এতটাই সাসপেন্স ছিল যে, দর্শকরা নি:শ্বাস নেওয়ার সময়ই পাননি। অক্ষয় খান্না ও রিচা চাড্ডার দ্বৈরথ পুরোটা সময় জুড়ে দর্শকদের মুগ্ধ করেছে। নির্মাতা হিসেবে শতভাগ নাম্বার পেয়েছেন অজয় ব্যাল।

  • ছিচোড়ে

বন্ধুত্বের জয়োগানের ছবি। অনেকদিন বাদে এই ছবিটি দিয়ে আবারা সাফল্যে ফিরেছেন সুশান্ত সিং রাজপুত। প্রশংসা পেয়েছেন শ্রদ্ধা কাপুরও। যদিও, জীবনের গল্প বলা ছবিটির মূল নায়ক হল ছবির গল্প। নিতেশ তিওয়ারির নির্দেশনায় ক্যারিয়ারের অন্যতম সেরা অভিনয় করেছেন বরুণ শর্মা।

  • সুপার ৩০

ভারতের জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত শিক্ষাবিদ আনন্দ কুমারের বায়োপিক। দু’বছর বিরতি দিয়ে ফিরেই চলতি বছর বাজিমাৎ করেছেন হৃতিক রোশন। বিকাশ ব্যালের নির্মানে এই ছবিটি নি:সন্দেহে হৃতিকের ক্যারিয়ারে আরেকটি মাইলফলক হয়ে থাকবে।

  • মার্দ কো দার্দ নেহি হোতা

সম্পূর্ণ ভিন্নধর্মী একটা গল্প অবলম্বনে নির্মিত একটা ছবি। বছরের অন্যতম আন্ডাররেটেড এই ছবিটিকে অবশ্যই বছরের অন্যতম সেরা বলতে হয়। ‘ম্যায়নে প্যায়ার কিয়া’ খ্যাত ভাগ্যশ্রী’র ছেলে অভিমন্যু দাসানি অভিষেকেই বাজিমাৎ করেছে। যদিও,  ভাসান বালার পরিচালনায় মুক্তি পাওয়া ছবিটির সবচেয়ে বড় নায়ক হল এর গল্প।

  • গালি বয়

জয়া আখতারের নির্মানে এই ছবিতে নিজেকে আমূল বদলে ফেলেছেন রণবীর সিং। বস্তি থেকে উঠে আসা এক র‌্যাপ গায়কের জীবনের গল্পটা এর চেয়ে ভাল ভাবে বলা কোনো ভাবেই সম্ভব ছিল না। রণবীর এবারও পুরস্কারের মঞ্চ কাঁপাবেন। নায়িকা সর্বস্ব ছবি না হলেও আলিয়া ভাটের উপস্থিতি ছবিটিকে দিয়েছে বাড়তি মাত্রা।

  • উড়ি দ্য সার্জিকাল স্ট্রাইক

বছরে আয়ের দিক থেকে ছবিটা আছে তৃতীয় স্থানে। কিন্তু, কনটেন্টের বিবেচনায় নি:সন্দেহে এটাই সবার সেরা। ভারতীয় আবেগ, অ্যাকশন, কূটনীতি – কী নেই এই ছবিতে। এই ছবিটি দিয়েই ভিকি কৌশলের নামের সাথে আনুষ্ঠানিক ভাবে ‘সুপারস্টার’ তকমাটা যোগ হয়ে গেছে। সত্য ঘটনার প্রেক্ষিতে আদিত্য ধর নির্মিত ছবি সর্বস্তরের দর্শকের প্রশংসা কুড়িয়েছে।

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।