বেলিমের বিরুদ্ধে অভিযোগ: যুক্তি/ধারণা, সত্য/মিথ্যা ও বিসিবির অবস্থান

সাবেক ক্রিকেটার জাভেদ ওমর বেলিম গোল্লার বিপক্ষে আরোপিত অভিযোগ ভিত্তিহীন এবং আইসিসির কাছ থেকে কোন ধরনের নির্দেশনা বিসিবি পায়নি বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরৗ সুজন। এর আগে জাভেদ ওমর নিজেও সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বিস্ময় প্রকাশ করেছে।

কিন্তু, প্রশ্ন হল বিশ্বাসযোগ্য কিছু গণমাধ্যম কেন এই খবর প্রকাশ করলো। কিছু ধারণা এবং যুক্তির ব্যাপারে কথা বলি-

১.

যতদুর জানি, আইসিসি পরিপূর্ণ তদন্ত শেষ না করে জনসন্মুখে প্রকাশ করে না। প্রাথমিক তদন্ত শেষে বোর্ডকে অবহিত করে এবং নিতীমালা অনুযায়ী নির্দেশনা প্রদান করে। তদন্ত শেষ করে রেজাল্ট না আসা অবধি বোর্ডকে কোন কিছু পাবলিশ না করার নির্দেশনা দেয়া থাকে, সো বোর্ড কিছু জানলেও সেটা তদন্তের স্বার্থে গোপন রাখা হয়।

যেমন, সাকিবের ব্যাপারে বোর্ড এবং সাকিব দুজনেই জানতো, কিন্তু একটা পর্যায় পর্যন্ত কোন পক্ষই স্বীকার করেনি। প্রেসিডেন্ট সাহেব অবশ্য আকারে ইঙ্গিতে বেফাঁস কিছু বলে ফেলেছিলেন, কিন্তু সেটা অফিশিয়াল কিছু নয়।

২.

সাবেক ক্রিকেটার বলেই তদন্তের হাত থেকে বেঁচে গেছেন জাভেদ ওমর। তার গতিবিধি বা মেলামেশা সন্দেহজনক মনে হয়েছে আকসু কর্মকর্তাদের কাছে, আর সেটা তারা জানিয়েছে আইসিসি। আইসিসি তাই বিসিবিকে জাভেদের ব্যাপারে একটা গাইডলাইন মেনে চলতে বলেছে, বিসিবি সেটাই করছে। কিন্তু, ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হবে বলে গণমাধ্যমে কোনো কিছু খোলাসা করছে না।

৩.

এখন যদি জাভেদ ওমরের বিষয়টি সত্যি হয়েও থাকে, তাহলেও বিসিবির পক্ষে সেটা প্রকাশ করা সম্ভব হবার কথা নয়, যতক্ষণ না আইসিসি সেটা প্রকাশ করে। সো, খবর কোনভাবে লিক হয়ে থাকলে বিসিবি সেটা অস্বীকার করবে স্বাভাবিকভাবেই।

৪.

এমনও হতে পারে, জাভেদ ওমর বেলিমকে নিয়ে প্রকাশিত খবরটি বানোয়াট।  তাহলে বলা উচিৎ, খবরটি একাধারে এদেশের ক্রিকেট, সাবেক ক্রিকেটার এবং ক্রিকেট বোর্ডের ভাবমূর্তি নষ্ট করেছে।

আর সাকিব আল হাসানের বিরুদ্ধে তদন্ত হয়েছিল একটা বেশ বড় সময় জুড়ে। কিন্তু সেই তদন্তের খবর গোপন রেখেছিল তিন পক্ষই। জাবেদ ওমরের বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে কিনা সেটা নিয়ে ধোঁয়াশা সৃষ্টি হল, কিন্তু এই ধোঁয়াশা তৈরি হবার কোন কারন থাকারই কথা নয়। বিসিবির বিভিন্ন পদে আসীন কর্তাব্যক্তিদের মুখের লাগাম নিয়ে তাই প্রশ্ন থেকে যায়, আর সেই ফুটোকে কাজে লাগিয়ে নিউজ তৈরি করার সাহস পায় সাইটগুলো। গুডউইল এতটাই দুর্বল এদেশের সর্বোচ্চ ক্রিকেট সংস্থার!

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।