অজয় দেবগন: ১০ বছরে ২০০০ কোটি রুপি?

বলতে দ্বিধা নেই যে, ১৯৯১ সালের অভিষেকের পরে অজয় দেবগনের সেরাটা দর্শক দেখছেন এ যুগেই। এই সুপারস্টার গেল নয় বছরের মধ্যে যে ২১ টি সিনেমা করেছেন, তার মধ্যে ১১ টি ব্যবসায়িক দিক থেকে সফল হয়েছে। এর মধ্যে ১০ টি হিট কিংবা সুপারহিট, একটা অ্যাভারেজের তকমা পেয়েছে। সাফল্যের হার ৫২ শতাংশ।

আগামী ১৫ মাসের মধ্যে মুক্তি পাবে অজয় অভিনীত ‘টোটাল ধামাল’, ‘দে দে প্যায়ার দে’ ও ‘তানাজি: দ্য আনসাঙ ওয়ারিওর’-এর মত সিনেমা। তর্কের খাতিরে ধরে নিলাম, সবগুলো ছবিই ব্যবসায়িক সাফল্য পাবে। তাহলে এক দশকে ১৪ টি ব্যবসাসফল ছবির অভিনেতা বনে যাবেন অজয়। সেক্ষেত্রে গড়ে প্রতি দু’বছরে তিনটি করে ব্যবসাসফল ছবি উপহার দেন। এটা নি:সন্দেহে বড় এক অর্জন।

অজয়ের সর্বশেষ ২১ টি সিনেমা বক্স অফিস থেকে আয় করেছেন ১৫৬২ কোটি ভারতীয় রুপি। ২ হাজার কোটির ঘরে নাম লেখানোর জন্য অজয়ের প্রয়োজন আর মাত্র ৪৩৮ কোটি রুপি। বলা যায়, সব ঠিক ঠাক থাকলে আগামী তিনটি সিনেমা দিয়েই এই মাইলফলকে পৌঁছে যাবেন তিনি।

অজয়কে সাফল্য ও মিডিয়ায় প্রাধাণ্য পাওয়ার দিক থেকে একটা ‘আন্ডাররেটেড’ই বলা যায়। তবে, পরিসংখ্যানকে সত্যি মানলে বলতে হয় তিনি সময়ের অন্যতম সেরা ব্যবসাসফল অভিনেতা। কারণ, তিনি নিয়মিত বিরতিতে সাফল্য পেয় চলেছেন।

অনেকে অবশ্য বলেন,  নির্মাতা রোহিত শেঠির সাথে প্রচুর কাজ করেই অজয় এই সাফল্য কুড়িয়েছেন। এই তথ্যটা একেবারে মিথ্যা নয়। তবে, একই সাথে এটাও সত্যি যে অজয়ের স্টারডম, বাজারদর ও জনপ্রিয়তাই ছিল ছবিগুলোর মূল ‘সেলিং পয়েন্ট’। এই কাজটাই আজকের দিনের অসংখ্য অভিনেতা করতে পারেন না।

সাফল্যের বিবেচনায় এই দশকে অক্ষয় কুমারের পরেই অজয়ের অবস্থান। ফলে, দু’হাজার কোটির ক্লাবে পৌঁছে গিয়ে অক্ষয়ের সাথে প্রতিদ্বন্দীটা আরো একধাপ ওপরে নিয়ে যেতে পারবেন অজয়।

বলা হচ্ছে তানাজি অজয়ের ক্যারিয়ারেরই সবচেয়ে বড় সিনেমা হতে যাচ্ছে। ঐতিহাসিক এক যোদ্ধার গল্প অবলম্বনে নির্মিত এই সিনেমাটি মুক্তির সম্ভাব্য তারিখ ২০১৯ সালের ২২ নভেম্বর। আর মাল্টি স্টারার ‘টোটাল ধামাল’ পুরোপুরিই কমেডি সিনেমা। লাভ রঞ্জনের সিনেমা ‘দে দে প্যায়ার দে’ হবে রোম্যান্টিক কমেডি’।

এক নজরে এযুগের অজয়

  • মোট মুক্তি পাওয়া সিনেমা: ২১ টি
  • ব্যবসাসফল সিনেমা: ১১ টি
  • হিট সিনেমা: ১০ টি
  • বক্স অফিস থেকে আসা মোট আয়: ১৫৬২ কোটি রুপি
  • গড়ে প্রতি সিনেমায় আয়: ৭৪.৩৮ কোটি রুপি

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।